Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ২৬ জুন, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৫ জুন, ২০১৯ ২৩:২৬

মাশরাফি-সাকিবদের সুবিধা বাড়ানো হবে

-------------------------- প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক

মাশরাফি-সাকিবদের সুবিধা বাড়ানো হবে

দেশের জন্য সম্মান বয়ে আনা ক্রীড়াবিদদের যেন বুড়ো বয়সে কষ্টে পড়তে না হয়, সে জন্য পুনর্বাসন পরিকল্পনা সাজানোর নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বিশ্বকাপ অভিযানে থাকা বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের প্রশংসা করেন প্রধানমন্ত্রী। জানান, খেলোয়াড়দের তিনি আরও সুযোগ-সুবিধা দিতে চান।

গতকাল জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। বৈঠকের পর পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান সাংবাদিকদের সামনে তা বিস্তারিত তুলে  ধরেন। এদিকে একনেক সভায় দেশের ঝুঁকিপূর্ণ সব রেলসেতু সংস্কারের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, বর্ষার আগেই সেতুগুলো দ্রুত সংস্কার করতে হবে। বৈঠকে সিলেট থেকে ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে যাওয়া উপবন এক্সপ্রেসের পাঁচটি বগি লাইনচ্যুত হয়ে হতাহতের ঘটনা নিয়ে আলোচনা হয়। মন্ত্রী বলেন, খেলা নিয়ে সবাই প্রশংসা করেছেন। তাদের প্রধানমন্ত্রী সন্তানের মতো মনে করেন। সাকিব, মুশফিক এদের সম্পর্কে খুব ভালো মন্তব্য করেছেন তিনি। এদের নিয়ে তিনি আরও কিছু করতে চান। ময়মনসিংহের ধোবাউড়া উপজেলার কলসিন্দুরের কিশোরী ফুটবলারদের সুযোগ-সুবিধা বাড়াতেও প্রধানমন্ত্রী নির্দেশনা দিয়েছেন বলে জানান পরিকল্পনামন্ত্রী। তিনি বলেন, তার নির্দেশনাটা হলো খেলোয়াড়দের শুধু খেলার সময়ে নয়, এখন তারা তরুণ, কিন্তু যখন পরবর্তী পর্যায়ে আমাদের মতো বার্ধক্যে যাবে, তখন খুব কষ্ট হয়। প্রধানমন্ত্রী এ সম্পর্কে অবহিত। কম বয়সে খরচ করে ফেলে, টাকা জমায় না। নানা ধরনের সমস্যায় পড়ে যায়। তিনি বলছেন, আমরা এটা হতে দেব না। পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, এখন যেমন তাদের সাহায্য দেব, তাদের মাথায় হাত রাখব, পরবর্তী পর্যায়েও তারা যেন নিচে পড়ে না যায়, সেজন্য ক্রীড়া মন্ত্রণালয়কে সুনির্দিষ্ট নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। তাদের জন্য প্রকল্প নিয়ে আসতে বলেছেন। আমাদের বিভিন্ন সেক্টর, করপোরেশন বা প্রাইভেট সেক্টর বা সরকারি বিভিন্ন জায়গায় তাদের (ক্রীড়াবিদ) চাকরি-বাকরি দিয়ে পুনর্বাসনের একটা ব্যবস্থা করার জন্য বলেছেন তিনি।

অনুশীলনের জন্য তহবিল : খেলোয়াড়রা সারা বছর যেন খেলাধুলার চর্চা চালিয়ে যেতে পারেন, সেজন্য প্রধানমন্ত্রী তহবিলের ব্যবস্থা করতে বলেছেন বলে জানান পরিকল্পনামন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, খেলা এলেই প্র্যাকটিস শুরু হয়। তারপর আর খবর থাকে না। তার কথা হলো, যে খেলোয়াড়, পেশাজীবী সে সারা বছরই প্র্যাকটিস করবে। খেলোয়াড় তো নিজের পয়সায় করবে না, কেন করবে? প্রধানমন্ত্রী চান একটা ভালো তহবিল থাকবে, যাতে এর আওতায় তারা সারা বছর প্র্যাকটিস করতে পারে। মান্নান বলেন, সংশ্লিষ্ট খেলার জন্য যে কর্তৃপক্ষ আছে, তারাই সারা বছর অনুশীলনের ব্যবস্থা করে দেবে। সরকার শুধু টাকা দেবে। তিনি (প্রধানমন্ত্রী) সরাসরি অর্থ মন্ত্রণালয়কে নির্দেশনা দিয়েছেন এর জন্য একটি বিশেষ তহবিল গঠন করতে।

‘তীর, ধনুক যেন মরে না যায়’ : পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, শুধু ক্রিকেট নয়, ফুটবল, হকি, ভলিবল, বাস্কেটবল- সব ধরনের খেলাকেই সহযোগিতা করার আশ্বাস দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। শুটিং আর আরচ্যারিতেও আমাদের সম্ভাবনা আছে। সেখানে ইনটেনসিভ ট্রেনিংয়ের ব্যবস্থা করতে বলেছেন তিনি।

 

এম এ মান্নান বলেন, প্রধানমন্ত্রী এও বলেছেন, শুধু পশ্চিমা আরচ্যারি নয়, আমাদের এখানে তীর, ধনুক, বল্লম রয়েছে। আমাদের সাঁওতালরা ব্রিটিশদের তীর, ধনুক দিয়ে তাড়াতে চেয়েছিল। সেই তীর, ধুনকও যাতে মরে না যায়, বিকশিত হয়- সেজন্য তহবিল, প্রশিক্ষণের আশ্বাস দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। এ ছাড়া একনেক সভায় খেলোয়াড়দের জন্য বিশেষ সহায়তা তহবিল ও প্রশিক্ষণ তহবিল গঠনের নির্দেশনাও দিয়েছেন তিনি।

সারা দেশে একই ডিজাইনের অফিস স্থাপনের নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর : সারা দেশে সমন্বিতভাবে সরকারি অফিস স্থাপনের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বড়, ছোট ও মাঝারি এ তিন ভাগে ভাগ করে জেলা সদরের সরকারি অফিসগুলো যেন একই ডিজাইনের হয় সে নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। গতকাল একনেক বৈঠকে এ নির্দেশনা দেওয়া হয়।

রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে বেইজিং গঠনমূলক ভূমিকা রাখবে : বাংলাদেশে চীনের রাষ্ট্রদূত ঝ্যাং জুয়ো বলেছেন, রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধানে তার দেশ গঠনমূলক ভূমিকা পালন করবে। চীনা রাষ্ট্রদূত গতকাল সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে তার জাতীয় সংসদ ভবনের কার্যালয়ে এক সৌজন্য সাক্ষাতে এ কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গাদের তাদের নিজ মাতৃভূমিতে ফেরত যেতে হবে এবং এই বিষয়ে মিয়ানমারকে বোঝানোর জন্য তিনি চীনের প্রতি আহ্বান জানান।


আপনার মন্তব্য