শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ২৭ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৬ ডিসেম্বর, ২০১৯ ২৩:৩৩

কী হচ্ছে ঢাকা সিটিতে

কাঁদলেন খোকন বললেন কঠিন সময়, উৎকণ্ঠা আতিকের মাঝেও, দক্ষিণে তাপস উত্তরে নানককে ঘিরে গুঞ্জন, বিএনপিতে প্রার্থী তাবিথ ও ইশরাকই চূড়ান্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক

কী হচ্ছে ঢাকা সিটিতে
মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করতে এসে কান্নায় ভেঙে পড়েন সাঈদ খোকন, বিএনপি থেকে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন তাবিথ আউয়াল ও ইশরাক হোসেন -বাংলাদেশ প্রতিদিন

কাঁদলেন সাঈদ খোকন। গতকাল দলীয় মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করতে এসে বাবা ঢাকার একসময়ের মেয়র মোহাম্মদ হানিফের নাম নিলেন। এ সময় তার দুই চোখজুড়ে ছিল অশ্রুর বন্যা। কাঁদতে কাঁদতেই বলেন, ‘রাজনৈতিক জীবনে একটা কঠিন সময় পার করছি।’

ঢাকা উত্তর-দক্ষিণ সিটি নির্বাচন নিয়ে দুই দলে নানারকম মেরুকরণ চলছে। বিএনপি দক্ষিণ সিটিতে ইশরাক হোসেন এবং উত্তরে তাবিথ আউয়ালকে মোটামুটি প্রার্থী হিসেবে চূড়ান্ত করলেও গতকাল ড. আসাদুজ্জামান রিপন উত্তরের মেয়র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন। আরও কয়েকজন মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করতে পারেন বলে জানা গেছে। এদিকে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে প্রার্থী দিচ্ছে জাতীয় পার্টি। এককভাবে দুই সিটিতে ভোট করার ঘোষণা দিয়েছে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ। এ ছাড়া আরও কয়েকটি রাজনৈতিক দল মেয়র পদে প্রার্থী দিচ্ছে। তবে রাজনীতি জমে উঠেছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের অভ্যন্তরে। দক্ষিণে মেয়র পদে লড়তে ঢাকা-১০ আসনের সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস এবং ঢাকা-৭ আসনের সংসদ সদস্য হাজী মোহাম্মদ সেলিম দলীয় মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করার পর এ রাজনীতি জমে ওঠে। তাপসের পক্ষে দলের একটি গ্রুপ অবস্থানও নিয়েছে। যদিও দলের আরেকটি অংশ মনে করে, ধারাবাহিক প্রক্রিয়া অব্যাহত রেখে সাঈদ খোকনকে আরেকবার রাখা হোক। অন্যদিকে ঢাকা উত্তরে মেয়র প্রার্থী হিসেবে আতিকুল ইসলাম মোটামুটি চূড়ান্ত হলেও গতকাল দিনভর আলোচনায় ছিল আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য জাহাঙ্গীর কবির নানকের নাম। তিনি উত্তরের মেয়র পদে দলীয় মনোনয়নপত্র নিচ্ছেন। দলের শীর্ষ মহলের গ্রিন সিগন্যাল পেলে তিনিও মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করতে পারেন। এ ছাড়া উত্তরে আরও একাধিক প্রার্থী মনোনয়নপত্র নিতে পারেন। সবকিছু নির্ভর করছে দলীয় হাইকমান্ডের ওপর। আওয়ামী লীগ ঢাকার দুই সিটি নির্বাচনকে অনেক গুরুত্বের সঙ্গে নিচ্ছে। ঢাকার দুই সিটি নির্বাচনে গতকাল পর্যন্ত মেয়র পদে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন ফরম কিনেছেন ১৬ জন। এর মধ্যে প্রথম দিন বুধবার আটটি এবং গতকাল দ্বিতীয় দিন বিক্রি হয়েছে আটটি। দ্বিতীয় দিন ঢাকা দক্ষিণে চারজন এবং উত্তর সিটিতে চারজন ফরম কিনেছেন। কাল শনিবার সন্ধ্যায় গণভবনে আওয়ামী লীগের স্থানীয় সরকার নির্বাচন মনোনয়ন বোর্ডের সভা হবে।

কাঁদলেন খোকন। বললেন কঠিন সময় : দ্বিতীয় দফা ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র হওয়ার আশায় দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করতে এসে মো. সাঈদ খোকন তার বাবার নাম নিলেন। কাঁদতে কাঁদতে বললেন, রাজনৈতিক জীবনে এখন তিনি ‘কঠিন সময়’ পার করছেন। গতকাল দুপুরে রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয় থেকে দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেন অবিভক্ত ঢাকা সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র মোহাম্মদ হানিফের ছেলে খোকন। পরে সাংবাদিকদের সামনে এসে তিনি বলেন, ‘প্রিয় ঢাকাবাসী, আপনাদের প্রিয় নেতা আমার পিতা প্রয়াত মেয়র মোহাম্মদ হানিফ। পিতার হাত ধরে রাজনীতিতে এসেছি। আজ আমার পিতা নেই, পিতাকে হারিয়েছি। পিতার অবর্তমানে আমার নেত্রী শেখ হাসিনা আমার অভিভাবক। তিনি আমার জন্য যেটা ভালো মনে করবেন, সেটাই করবেন।’ তিনি বলেন, ‘এই সাড়ে চার বছরে ঢাকা শহরে ইতিবাচক পরিবর্তনের সূচনা করতে সক্ষম হয়েছি। ঢাকাবাসীর সুখে-দুঃখে, আপদে-বিপদে পাশে ছিলাম।’ এর পরও রাজনৈতিকভাবে সময়টা ভালো যাচ্ছে না বলে জানান ঢাকা মহানগরী আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য খোকন। বলেন, ‘আমার রাজনৈতিক জীবনে এটি একটি কঠিন সময়। এই কঠিন সময়ে ঢাকাবাসীকে আমি আহ্বান জানাই, আমার জন্য দোয়া করবেন। প্রিয় দেশবাসী, আমার জন্য দোয়া করবেন। আপনাদের সুখে-দুঃখে যেভাবে ছিলাম, সেভাবেই যাতে আপনাদের পাশে থাকতে পারি। অনেক কাজ করেছি, কিছুটা কাজ বাকি আছে। সেই কাজগুলো যেন শেষ করে যেতে পারি। আজকের এই কঠিন সময়ে প্রিয় ঢাকাবাসীর কাছে, দেশবাসীর কাছে আমি দোয়া চাই, আমি যাতে কামিয়াব হই।’ কর্তব্যে কখনো অবহেলা করেননি দাবি করে মেয়র খোকন বলেন, ‘এই শহরের মানুষের জন্য এই কঠিন সময়ে ঢাকাবাসী, দেশবাসী যদি আমার পাশে দাঁড়ান, আমি আগামী পাঁচ বছর আপনাদের পাশে থাকব।’

বিএনপির মনোনয়ন ক্ষমতা মির্জা ফখরুলের হাতে : এবারে ঢাকা উত্তর-দক্ষিণ সিটির মেয়র পদে বিএনপির দলীয় মনোনয়ন দেওয়ার ক্ষমতা মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের হাতে থাকছে। গতকাল বিএনপির সিনিয়র যুগ্মমহাসচিব রুহুল কবির রিজভী স্বাক্ষরিত এক চিঠিতে এ বিষয়ে ইসিকে জানানো হয়েছে। এদিকে ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি নির্বাচন উপলক্ষে জামানতের টাকা জমা দেওয়ার সুবিধার্থে সিটি করপোরেশন এলাকার ব্যাংক আজ শুক্রবার ও কাল শনিবার (২৭ ও ২৮ ডিসেম্বর) খোলা রাখার নির্দেশ দিয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

ইসি থেকে মনোনয়নপত্র কিনলেন উত্তরে তাবিথ আউয়াল ও দক্ষিণে হাজী সেলিমসহ আটজন : রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে আলোচিতদের মধ্যে উত্তরে তাবিথ আউয়াল ও দক্ষিণে হাজী সেলিমের পক্ষে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করা হয়েছে। ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি নির্বাচনে মেয়র পদে রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় থেকে এ পর্যন্ত আটজন মনোনয়নপত্র নিয়েছেন। দুই সিটিতে সাধারণ ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ১ হাজার ৬০৮ জন নিয়েছেন মনোনয়নপত্র। ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত মেয়র ও কাউন্সিলর পদে মনোনয়নপত্র বিতরণ ও জমা নেবেন রিটার্নিং কর্মকর্তারা। ঢাকা উত্তরে মেয়র পদে বিএনপির তাবিথ আউয়াল ও আওয়ামী লীগের সালাউদ্দিন মাহমুদসহ পাঁচজনের পক্ষে মেয়র পদে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করা হয়েছে। অন্য মনোনয়নপত্র সংগ্রহকারীরা হলেন গণফ্রন্টের কাজী শহীদুল্লাহ, জাতীয় পার্টির জি এম কামরুল ইসলাম ও স্বতন্ত্র শাহীন আক্তার আইরিন। সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৫৬৪টি ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ১২৫টি মনোনয়নপত্র বিক্রি হয়েছে। ঢাকা দক্ষিণ থেকে আওয়ামী লীগের হাজী সেলিম, বিএনপির ইশরাক হোসেন ও বাংলাদেশ কংগ্রেসের আখতারুজ্জামানের পক্ষে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করা হয়েছে। সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা মোহাম্মদ শানিয়াজ্জামান তালুকদার এ তথ্য জানান। এ ছাড়া সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৭৮২টি ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ১৩১টি মনোনয়নপত্র নেওয়া হয়েছে। এ নির্বাচনে প্রার্থী হতে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ ও জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ৩১ ডিসেম্বর। ভোট হবে ৩০ জানুয়ারি।

উৎসবমুখর ধানমন্ডি কার্যালয় : ধানমন্ডির আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে দুই সিটির মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীদের দলীয় মনোনয়ন ফরম বিতরণ চলছে। দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহের আজ শেষ দিন। এ কার্যালয়ে বিরাজ করছে উৎসবমুখর নির্বাচনী আমেজ। নেতা-কর্মীদের পদচারণে সকাল থেকে রাত পর্যন্ত ধানমন্ডি কার্যালয় ও আশপাশ ছিল জমজমাট। প্রার্থীরা তাদের সমর্থকদের নিয়ে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করতে আসেন। আর তাদের পক্ষে সমর্থকরা এ সময় স্লোগান দেন। কেউ কেউ আবার ব্যান্ড-বাজনার তালে তালে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করতে আসেন। গতকাল সকাল থেকেই ধানমন্ডির কার্যালয়ের সামনে আওয়ামী লীগের কাউন্সিলর প্রার্থীরা লম্বা লাইনে দাঁড়িয়ে থেকে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেন। এ সময় কার্যালয়ের প্রবেশমুখ ও আশপাশে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর বিপুলসংখ্যক সদস্যকে দায়িত্ব পালন করতে দেখা যায়। ঠিক পাশেই আরেকটি ভবনে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র ও কাউন্সিলর এবং সংরক্ষিত (মহিলা) কাউন্সিলর পদে আবেদনপত্র সংগ্রহের জন্য নেতা-কর্মীদের দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়। এ সময় ধানমন্ডি কার্যালয়ের বাইরে শত শত সমর্থক ও নেতা-কর্মীকে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়। শীত উপেক্ষা করে রাজধানীর বিভিন্ন স্থান থেকে আগত কাউন্সিলর প্রার্থীরা নির্দিষ্ট পরিমাণ টাকার বিনিময়ে ফরম সংগ্রহ করেন। কাউন্সিলর পদে ফরম ১০ হাজার এবং মেয়র পদে ফরমের মূল্য ২৫ হাজার টাকা। গতকাল সকাল ১০টায় কাউন্সিলর পদে মনোনয়ন ফরম বিক্রি শুরু হয়। জানা গেছে, কাউন্সিলর পদে মোট ৮০৯ জন মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন। উত্তরে ৩৩৬ আর দক্ষিণে ৪৭৩ জন। আর সংরক্ষিত আসনে ৯৬ জন। এর আগে বুধবার ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনের জন্য আওয়ামী লীগের আগ্রহী প্রার্থীদের জন্য দলীয় মনোনয়ন ফরম বিক্রি শুরু হয়। আজ শুক্রবার ফরম বিক্রির শেষ দিন। আগ্রহী প্রার্থীরা বিকাল ৫টা পর্যন্ত ফরম সংগ্রহ করতে পারবেন।

বিএনপির উত্তরে মেয়রের ফরম নিলেন রিপন-তাবিথ, দক্ষিণে ইশরাক : ঢাকার দুই সিটি নির্বাচনে অংশ নিতে আনন্দ ও উৎসবমুখর পরিবেশে মেয়র পদে দলীয় মনোনয়ন ফরম বিক্রি শুরু করেছে বিএনপি। এ ফরম বিক্রি ও গ্রহণ কার্যক্রম আজ ২৭ ডিসেম্বর বিকাল ৪টা পর্যন্ত চলবে। কাল ২৮ ডিসেম্বর গুলশান কার্যালয়ে বিকালে দলের মনোনয়ন বোর্ডের সভায় দুই সিটির নির্বাচনের মেয়র প্রার্থী চূড়ান্ত করা হবে। গতকাল ঢাকা উত্তর সিটিতে মেয়র পদে দলের কেন্দ্রীয় কমিটির বিশেষ সম্পাদক ও চেয়ারপারসনের আন্তর্জাতিকবিষয়ক উপদেষ্টা ড. আসাদুজ্জামান রিপন ও কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সদস্য তাবিথ আউয়াল দলীয় মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন। ঢাকা দক্ষিণ সিটিতে মেয়র পদে দলীয় মনোনয়ন ফরম নিয়েছেন প্রয়াত বিএনপি নেতা ও অখ  ঢাকা সিটির সাবেক মেয়র মরহুম সাদেক হোসেন খোকার ছেলে ইঞ্জিনিয়ার ইশরাক হোসেন। এই তিনজনের ফরম নেওয়ার আগে ও পরের ঘণ্টা দুয়েক সময় রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয় ছিল জমজমাট ও স্লোগানমুখর। হাজার হাজার অনুসারী নেতা-কর্মী তাদের সঙ্গে যাওয়ায় দলীয় কার্যালয়ের ভিতরে ও বাইরে অবস্থান নেন। সেখানে তিল ধারণেরও ঠাঁই ছিল না। দুই সিটিতে প্রায় আগে থেকেই প্রার্থী নির্ধারিত থাকায় এবার মনোনয়ন ফরম বিক্রির পরিমাণ কম হয়েছে। তবে আজ শুক্রবার মেয়র পদের মনোনয়ন ফরম বিক্রি ও গ্রহণ দুটোই একসঙ্গে করা হবে জানান দলের সিনিয়র যুগ্মমহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদ। ঢাকা দক্ষিণ সিটির সম্ভাব্য প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার ইশরাক হোসেন সাংবাদিকদের বলেন, ‘দলীয় সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ভোটের অধিকার ফিরে পাওয়ার জন্য, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে কারামুক্ত করার জন্য এবং বাংলাদেশে ক্ষমতার ভারসাম্য ফিরিয়ে আনার জন্য আমরা এই নির্বাচনে অংশ নিতে যাচ্ছি।’ ঢাকা উত্তর সিটির সম্ভাব্য প্রার্থী ড. আসাদুজ্জামান রিপন বলেন, ‘এই নির্বাচন থেকে প্রত্যাশা করার কিছু নেই। দেশে অনেক আগে থেকেই ভোট নির্বাসিত হয়ে গেছে।’ উত্তর সিটি নির্বাচনের আরেক প্রার্থী তাবিথ আউয়াল বলেন, ‘জাতির কল্যাণে কাজ করার জন্য, জনগণের সব অধিকার রক্ষা করার জন্য আমরা প্রতিদিন প্রস্তুত থাকি। সেই প্রস্তুতির অংশ হিসেবে, আন্দোলনের অংশ হিসেবে আমরা এই নির্বাচনী প্রক্রিয়ায় অংশ নিচ্ছি। আমি আশা করি, এবার একটা সুষ্ঠু নির্বাচনের পরিবেশ আমরা পাব। আর যদি আমরা সে সুযোগ পাই, আশা করি আমরা জয়লাভ তো করবই এবং তখন জনগণের কল্যাণে আমরা প্রকৃত অর্থেই কাজ করার সুযোগ পাব।’ দুই সিটি নির্বাচনে কাউন্সিলর পদে অংশগ্রহণের লক্ষ্যে দ্বিতীয় দিনের মতো মনোনয়ন ফরম বিক্রি করেছে বিএনপি। প্রথম দিন বুধবার উত্তর ও দক্ষিণ সিটিতে মোট ১৩৪ জন ফরম কিনলেও গতকাল দ্বিতীয় দিনে কাউন্সিলর পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার জন্য মোট মনোনয়ন ফরম বিক্রি হয়েছে ২০০ এবং সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে মনোনয়ন ফরম বিক্রি হয়েছে ৫০টি। এদিকে গতকাল জাতীয় পার্টির কার্যালয়ে দিনভর মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন নেতা-কর্মীরা। কাল ২৮ ডিসেম্বর পর্যন্ত দলীয় মনোনয়ন ফরম উত্তোলন ও জমা দেওয়া যাবে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর