শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ১৩ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ১২ জানুয়ারি, ২০২০ ২৩:৫৭

ইরানে সরকারবিরোধী বিক্ষোভ

আটকের পর ছাড়া পেলেন ব্রিটিশ রাষ্ট্রদূত, বিক্ষোভকারীদের প্রশংসায় ট্রাম্প, বিমান বিধ্বস্তে কানাডা ও ইউক্রেনের ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া

তানভীর আহমেদ

ইরানে সরকারবিরোধী বিক্ষোভ

মাত্র দুই দিনের ব্যবধানে পাল্টে গেছে ইরানের দৃশ্য। তেহরানে ভুলবশত ছোড়া ক্ষেপণাস্ত্রে ১৭৬ জন যাত্রীসহ ইউক্রেনের বিমান বিধ্বস্তের খবর এত দিন স্বীকার না করায় বিক্ষোভ করেছেন ইরানিরা। সিএনএন জানায়, ইরানের দুটি বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে কয়েক হাজার বিক্ষোভকারী রাজপথ দখল করে রাখে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প এই বিক্ষোভকারীদের সাহসী আখ্যায়িত করে এক টুইটে লেখেন, ‘আমরা আপনাদের বিক্ষোভ খুব কাছ থেকে লক্ষ করছি। আপনাদের সাহস উদ্দীপনা জোগায়।’ এই বিক্ষোভে উসকানি দেওয়ার অভিযোগে তেহরানে ব্রিটিশ রাষ্ট্রদূত রব ম্যাকএয়ারকে আটকের কয়েক ঘণ্টা পর ছেড়ে দেয় ইরান। এদিকে ইউক্রেনের বিমানে ক্ষেপণাস্ত্র হামলার সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য অপারেটর মাত্র ১০ সেকেন্ড সময় পেয়েছিলেন বলে বিবৃতি দিয়েছেন রেভল্যুশনারি গার্ডের অ্যারোস্পেস কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আমির আলি হাজিজাদেহ। ইরান দোষ স্বীকার করে নেওয়ার পর এ ঘটনায় ইউক্রেন ও কানাডা পূর্ণ তদন্তের পর অভিযুক্তের শাস্তি ও ক্ষতিপূরণ দাবি করেছে। এদিকে ইরানের শীর্ষ জেনারেল সোলাইমানিকে হত্যার কথা ইসরায়েলি প্রধানমন্ত্রীকে অবহিত করা হয়েছিল বলে জানিয়েছে নিউইয়র্ক টাইমস। পত্রিকাটি জানায়, ১৮ মাসের পরিকল্পনায় মার্কিন বাহিনীর নিখুঁত এ হামলায় সোলাইমানির সঠিক অবস্থান নিশ্চিত করতে সহায়তা করেছেন ইসরায়েলের গোয়েন্দারা।

বিক্ষোভকারীদের প্রশংসায় ট্রাম্পের টুইট : সরকারকে ‘মিথ্যুক’ আখ্যায়িত করে ইরানে বিক্ষোভ করেছেন হাজার হাজার মানুষ। বিবিসি অনলাইনের খবরে বলা হয়েছে, তেহরানে শরিফ ইউনিভার্সিটি এবং আমির কাবির ইউনিভার্সিটির বাইরে শিক্ষার্থীরা শুরুতে উড়োজাহাজের নিহত আরোহীদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে সমবেত হন। সন্ধ্যায় তা বিক্ষোভে রূপ নেয়। বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে কাঁদুনে গ্যাসের শেল ছোড়ে পুলিশ। বিক্ষোভের প্রতিক্রিয়ায় ইংরেজি ও ফারসিতে ট্রাম্প তার টুইটে লেখেন, ‘সাহসী এবং দুর্ভোগের শিকার ইরানি জনগণ। প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নেওয়ার শুরু থেকেই আমি আপনাদের পাশে আছি এবং আমার সরকার আপনাদের পাশে সব সময় থাকবে।’

ব্রিটিশ রাষ্ট্রদূতকে ছেড়ে দিল ইরান : তেহরানের আমির কাবির বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনে শৃঙ্খলাবিরোধী তৎপরতার কারণে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সঙ্গে সমাবেশকারীদের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এই সমাবেশ থেকে আটক করা হয় তেহরানে নিযুক্ত ব্রিটিশ রাষ্ট্রদূত রব ম্যাকএয়ারকে। অবশ্য কয়েক ঘণ্টা পর তাকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

১০ সেকেন্ডের ভুলে বিমানে হামলা : ইউক্রেনের বিমানে হামলার একটি ব্যাখ্যা দিয়েছেন ইরানের রেভল্যুশনারি গার্ডের অ্যারোস্পেস কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আমির আলি হাজিজাদেহ। তিনি জানান, ‘দায়িত্বরত ক্ষেপণাস্ত্র অপারেটরের হাতে সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য মাত্র ১০ সেকেন্ড সময় ছিল। ওই সময় ইউক্রেনের উড়োজাহাজটিকে ভুল করে মার্কিন ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র ভেবে আঘাত হানেন ওই অপারেটর।’

তদন্ত চায় ইউক্রেন ও কানাডা : তেহরানে বিমান হামলায় সম্পূর্ণ দায় ইরানকে অবশ্যই নিতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। তিনি বলেন, এ ঘটনার জবাবদিহি, সুস্পষ্ট ব্যাখ্যা ও নিহত ব্যক্তিদের পরিবারকে ন্যায়বিচার না দেওয়া পর্যন্ত শান্ত হবে না কানাডা। এ ঘটনায় ইরানের কাছে ক্ষতিপূরণ চেয়েছে ইউক্রেন। ইউক্রেনের প্রধানমন্ত্রী জেলেনস্কি লেখেন, ‘যারা এ ঘটনার জন্য দায়ী, তাদের যথাযথ বিচার করতে হবে। ক্ষতিপূরণের অর্থ দিতে হবে।’ এদিকে ইউক্রেন ও কানাডার প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ফোনালাপে ইরানের রাষ্ট্রপতি হাসান রুহানি বলেন, ‘মানবীয় ত্রুটির কারণে এই হৃদয়বিদারক ঘটনা ঘটেছে এবং এর সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের বিচার করা হবে।’


আপনার মন্তব্য