শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ৩ এপ্রিল, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২ এপ্রিল, ২০২০ ২৩:৩২

মহামারীতেও থেমে নেই অপরাধ

সাখাওয়াত কাওসার

মহামারীতেও থেমে নেই অপরাধ

বিশ্বব্যাপী মহামারীতে রূপ নেওয়া করোনাভাইরাসকে পুুঁজি করেই রাজধানীসহ সারা দেশে তৎপর হয়ে উঠেছে অপরাধীরা। ঘটিয়ে যাচ্ছে একের পর এক ঘটনা। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের চোখ ফাঁকি দিয়ে পাচার হচ্ছে মাদকও। এদিকে অপরাধ নিয়ন্ত্রণে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীও তৎপর রয়েছে। ক্রসফায়ারে অপরাধীদের মৃত্যুর খবরও পাওয়া যাচ্ছে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে।

ঘটনা-১ : বুধবার দিবাগত রাত ১২টা ৪৭ মিনিট। রাজধানীর মোহাম্মদপুর এলাকার কলেজ গেটের বিল্লাল ফার্মেসি। এসে থামল একটি পিকআপ ভ্যান। মুখে মাস্ক পরিহিত তিন অজ্ঞাত যুবক ফার্মেসিতে ঢুকলেন। দোকানের কর্মচারীদের ধারণা ছিল তারা হয়তো ওষুধ নিতেই এসেছেন। তবে তাদের ভাবনা ভুল প্রমাণ করে তিন যুবক বের করলেন ছুরি-চাপাতি। কর্মচারীরা সবাই প্রাণভয়ে দোকানের পেছনে আশ্রয় নিলেন। ওই সময় দোকানের ক্যাশে থাকা নগদ টাকা, মোবাইল ফোন এবং গুরুত্বপূর্ণ সামগ্রী নিয়ে ১২টা ৪৮ মিনিটে বীরদর্পে পালালেন তিন যুবক।

ঘটনা-২ : শনিবার দিবাগত রাত ২টার দিকে গ্রিন রোডের একটি চারতলা ভবনে বাসার গ্রিল ভেঙে চুরির ঘটনা ঘটেছে। দুর্বৃত্তরা বাসার আলমারি ভেঙে ৪০ ভরি স্বর্ণালঙ্কারসহ মূল্যবান সামগ্রী নিয়ে গেছে বলে ক্ষতিগ্রস্তরা অভিযোগ করেছেন।

ঘটনা-৩ : বুধবার সকালে ঢাকার পাশর্^বর্তী জেলা নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় শরীফ হোসেন (২৮) নামে এক যুবককে নৃশংসভাবে খুন করা হয়েছে। নিহতের পরিবারের অভিযোগ, মাদকে বাধা দেওয়ার কারণেই কিশোর গ্যাংয়ের সদস্যরা তাকে খুন করেছে।

এ তো গেল মাত্র কয়েকটি ঘটনা। এর বাইরেও রাজধানীসহ সারা দেশে করোনা আতঙ্ককে পুঁজি করে তৎপর হয়ে উঠেছে অপরাধীরা। ঘটিয়ে যাচ্ছে একের পর এক ঘটনা। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের চোখ ফাঁকি দিয়ে পাচার করছে মাদক। শুক্রবার সকালে রাজধানীর পোস্তগোলা এলাকায় কয়েক ব্যক্তি ছিনতাইয়ের শিকার হয়েছেন। ছিনতাইকারীরা তাদের কাছ থেকে টাকা ও মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেয়। ছিনতাইয়ের শিকার লোকজন সকালে মাওয়া যাওয়ার উদ্দেশে রাস্তায় মাইক্রোবাসের জন্য অপেক্ষা করছিলেন। এ সময় ছিনতাইকারী দল তাদের ভয়ভীতি দেখিয়ে টাকা ছিনিয়ে নেয়। এমন ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটছে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায়। তবে উল্টো পুলিশি হয়রানির ভয়ে ভুক্তভোগীরা থানায় অভিযোগ করেননি। চলমান সময়ে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কঠোর নজরদারি এবং নিয়মিত টহলের মধ্যেও এমন ঘটনায় আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন নগরবাসী। যদিও আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সদস্যরা বলছেন, সচেতনতা কার্যক্রমের পাশাপাশি  অপরাধ দমনেও তারা তাদের নিয়মিত টহল পরিচালনা করছেন। পুলিশ সদর দফতরের সহকারী মহাপরিদর্শক (মিডিয়া) সোহেল রানা বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, ‘করোনা মহামারীর সময়ে বেশ কিছু ধরনের অপরাধের হার কমে এসেছে। কিন্তু যেসব জায়গায় অপরাধ সংঘটিত হচ্ছে সেখানে আমরা টহল ও প্যাট্রল ডিউটি বাড়িয়েছি। অপরাধী যে-ই হোক না কেন, তাকে আমরা আইনের আওতায় নিয়ে আসব।’ অপরাধ-বিশেষজ্ঞরা বলছেন, করোনা আতঙ্কে একরকম জনশূন্য রাজধানীর বেশির ভাগ রাস্তাঘাটসহ বাড়িঘর। আর এ সুযোগ কাজে লাগাতে তৎপর হয়ে উঠতে পারে অপরাধীরা। ঘটতে পারে চুরি, ডাকাতি, ছিনতাই, খুনসহ নানা অপরাধ। জানা গেছে, করোনা মোকাবিলায় সরকার জরুরি অবস্থা ঘোষণার পর অনেকটাই জনশূন্য হয়ে পড়েছে রাজধানীসহ দেশের গুরুত্বপূর্ণ শহর। হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকার কথা থাকলেও কর্মজীবী মানুষ ছুটে গেছেন গ্রামের বাড়িতে। এমন বাসা-বাড়ির ভাড়াটিয়ারা রয়েছেন চুরির আতঙ্কে। খালি সড়কে কোথাও কোথাও মাঝেমধ্যে দু-একটি রিকশা দেখা যায়। এমন জনশূন্য ঢাকায় তৎপর হয়ে উঠেছে মাদক ব্যবসায়ীরাও। অ্যাম্বুলেন্সে রোগী সাজিয়ে পাচার করছে মাদক। গত সাত দিনে রাজধানীর বিভিন্ন থানা এলাকায় পুলিশের অভিযানে মাদক সেবন ও ব্যবসার অভিযোগে মোট ৭৬ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে মাদকদ্রব্য আইনে ৫৫টি মামলা করা হয়েছে।

র‌্যাব-২-এর পুলিশ সুপার মহিউদ্দিন ফারুকী বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, ‘চলমান মহামারীকে পুঁজি করার চেষ্টা করছে অপরাধীরা। তবে আমরাও থেমে নেই। এরই মধ্যে কিশোর গ্যাংয়ের তিন সদস্যকে আমরা গ্রেফতার করেছি। মাদকের চালানসহ গ্রেফতার করেছি মাদক ব্যবসায়ীকেও।’

এদিকে ২০ মার্চ রাজধানীর বনানীতে ছুরিকাঘাতে এক তরুণের মৃত্যু হয়। রাত সাড়ে ১১টার দিকে বনানীর সেতু ভবনের পাশে এ ঘটনা ঘটে। নিহত ব্যক্তির নাম মনির হোসেন (১৯)। তিনি নীলফামারী জেলার জলঢাকা উপজেলার পশ্চিম শিমুলবাড়ী গ্রামের হাবিবুর রহমানের ছেলে। তেজগাঁওয়ের পূর্ব নাখালপাড়া এলাকায় থাকতেন তিনি। ২৩ মার্চ রাজধানীর খিলগাঁওয়ে আমেনা (২৮) নামে এক মালয়েশিয়া প্রবাসী নারীর মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। তিলপাপাড়া এলাকার বহুতল ভবনের ছয়তলা থেকে মৃতদেহটি উদ্ধার করা হয়। একইভাবে কদমতলীর জনতাবাগ ১৭৪২ নম্বর বাড়িতে চতুর্থ তলার শয়নকক্ষ থেকে সিনথিয়া (৩০) নামের আরেক গৃহবধূর মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনার পর নিহতের স্বামী নুর মোহাম্মদ ভূঁইয়া তুহিনকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য কদমতলী থানায় নেওয়া হয়। এ ছাড়া পাবনার সাঁথিয়ায় দিনদুপুরে ছাত্রলীগ নেতার নেতৃত্বে এক গৃহবধূকে গণধর্ষণ, জামালপুরে করোনা রোগী শনাক্তের নাম করে এক কিশোরীকে তুলে নিয়ে পাঁচ যুবকের গণধর্ষণ, কুমিল্লার দেবীদ্বারে ১৫ বছর বয়সী এক বুদ্ধিপ্রতিবন্ধীকে মাদ্রাসাশিক্ষক কর্তৃক ধর্ষণ, ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে এক স্কুলপড়ুয়া ছাত্রীকে গভীর রাতে বাড়ি থেকে বের করে নিয়ে ধর্ষণের পর হত্যা, সর্বশেষ ১ এপ্রিল যশোরের বেনাপোল পৌর এলাকায় বাবু সরদার নামের এক আওয়ামী লীগ নেতা কর্তৃক হিন্দু নারী ধর্ষণসহ গত এক মাসে সারা দেশে প্রায় ৩৫টি ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে বলে বিভিন্ন সূত্র নিশ্চিত করেছে। র‌্যাবের গোয়েন্দা শাখার পরিচালক লেফটেন্যান্ট কর্নেল সারওয়ার বিন কাশেম বলেন, ‘মানবিক কার্যক্রম পরিচালনা করলেও জঙ্গিবাদ, ত্রাস, মাদক চোরাচালানি কার্যক্রম থেকে আমরা আমাদের চোখ সরাইনি। এরই মধ্যে আমরা অনেকগুলো সফল অপারেশন করেছি। গুজব সৃষ্টিকারীদের গ্রেফতার করেছি।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর