শিরোনাম
বুধবার, ২৯ জুন, ২০২২ ০০:০০ টা

শিক্ষক হত্যায় তিন দিনেও গ্রেফতার হয়নি কেউ

সাভার প্রতিনিধি

হাজী ইউনুছ আলী স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষক উৎপল কুমার সরকারকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় উত্তপ্ত হয়ে উঠছে আশুলিয়ার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো। ইতোমধ্যে বিক্ষোভ মিছিলে যোগ দিয়েছে বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা। গতকাল সকালে আশুলিয়ার চিত্রশাইল এলাকার হাজী ইউনুছ আলী স্কুল অ্যান্ড কলেজের আশপাশের কয়েকটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান হত্যার বিচার দাবিতে আন্দোলনে নামে। উপজেলা পরিষদের সামনে মানববন্ধন করে স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদ। আন্দোলনরত শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা ছয় দফা দাবি করেন। দাবিগুলো হলো- মামলার প্রধান আসামিকে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে গ্রেফতার, অজ্ঞাতনামা আসামিদের গ্রেফতার, প্রধান আসামি ওই ছাত্রের পলাতক পরিবারের সদস্যদের আইনের আওতায় আনা, নিহতের পরিবারকে আর্থিক ক্ষতিপূরণ, স্কুল ও কলেজের শিক্ষার্থীদের মধ্যে স্থানীয় ও বাইরের শিক্ষার্থীদের মধ্যকার ভেদাভেদ দূর করতে আইন প্রণয়ন এবং কিশোর গ্যাং ও কিশোর অপরাধ দূর করতে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ। আশুলিয়া থানার তদন্ত কর্মকর্তা জিয়াউল হক বলেন, আসামি গ্রেফতার করতে র‌্যাব ও পুলিশের চারটি টিম কাজ করছে। ঘটনার তিন দিন পর ঘটনাস্থল থেকে স্ট্যাম্প ও সিসিটিভি ফুটেজ উদ্ধার করেছে পুলিশ। প্রসঙ্গত অভিযুক্ত আশরাফুল ইসলাম জিতু হাজী ইউনুস আলী স্কুল অ্যান্ড কলেজের দশম শ্রেণির ছাত্র। গত শনিবার স্কুল মাঠে মেয়ে শিক্ষার্থীদের ক্রিকেট খেলা চলছিল। মাঠের এক পাশে দাঁড়িয়ে থাকা শিক্ষক উৎপলকে হঠাৎ জিতু ক্রিকেট খেলার স্ট্যাম্প দিয়ে এলোপাতাড়ি পেটাতে থাকে। সোমবার ভোরে চিকিৎসাধীন অবস্থায় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। শিক্ষক উৎপল সিরাজগঞ্জের উল্লাপাড়া থানার এলংজানি দত্তপাড়া গ্রামের মৃত অজিত সরকারের ছেলে। তিনি ২০১৩ সালে হাজী ইউনুস আলী স্কুল অ্যান্ড কলেজের কলেজ শাখার রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক হিসেবে যোগ দেন। প্রতিষ্ঠানটির শৃঙ্খলা কমিটির সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছিলেন। কিছুদিন আগে জিতু নামে ওই শিক্ষার্থীকে শাসন করেছিলেন শিক্ষক উৎপল। এরই জেরে তাকে পিটিয়ে হত্যা করে জিতু।

সর্বশেষ খবর