শনিবার, ১ এপ্রিল, ২০২৩ ০০:০০ টা

খুলনা ও মুজিবনগরে সাংবাদিকের বিরুদ্ধে মামলা, সাভারে হামলা

প্রতিদিন ডেস্ক

খুলনা ও মেহেরপুরে সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে ও মানহানির মামলা হয়েছে। এ ছাড়া সাভারে সাংবাদিকের ওপর হামলার অভিযোগ পাওয়া গেছে। আমাদের নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিরা এসব তথ্য পাঠিয়েছেন।

খুলনা : খুলনায় দেশ টিভির বিভাগীয় প্রতিনিধি মো. অসীমের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে দুটি মামলা হয়েছে। ২১ ও ২৮ মার্চ এসব মামলা হয়। আদালত অভিযোগ আমলে নিয়ে পিবিআই ও সিআইডিকে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন। এর মধ্যে ২১ মার্চ সাইবার ট্রাইব্যুনালে অভিযোগ দায়ের করেন নগরীর শেরেবাংলা রোডের তানিয়া বিউটি পারলারের মালিক তানিয়া ইসলাম (৩৬)। এতে সাংবাদিক অসীম ৪ নম্বর আসামি। অন্য আসামিরা হলেন, খালিশপুরের মাহফুজুর রহমান খান, ঢাকার ফাস্ট নিউজের প্রকাশক ও সম্পাদক সারোয়ার হোসেন খান ও ফাস্ট নিউজের ব্যবস্থাপনা সম্পাদক মো. আলম খান। মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়েছে, ১৮ মার্চ দেশ টিভিতে ‘বিউটি পারলারের অভ্যন্তরে চলে অসামাজিক কর্মকা-’ শিরোনামে একটি মিথ্যা সংবাদ প্রকাশ করা হয়। যা মানহানিকর। ওই প্রতিবেদন বিভিন্ন অনলাইনে ও ফেসবুকে প্রচার করা হয়। এ ঘটনায় ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে আদালতে অভিযোগ দায়ের করেন তানিয়া ইসলাম। বিচারক অভিযোগ আমলে নিয়ে পিবিআইকে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন।

মেহেরপুর : মেহেরপুরের মুজিবনগরে তিন সাংবাদিকের নামে মানহানি মামলা করেছেন বাগোয়ান ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য ও নারী শিশু নির্যাতন কমিটির সভাপতি আবদুর রাকিব। বৃহস্পতিবার মুজিবনগরের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলি আদালতে এ মামলা দায়ের করেন তিনি। মামলার আসামিরা হলেন- দৈনিক জবাবদিহির মুজিবনগর প্রতিনিধি শাকিল রেজা, মাথাভাঙ্গার প্রতিনিধি শেখ শফি ও সময়ের সমীকরণের প্রতিনিধি সোহাগ ম-ল। গত ২৫ মার্চ ঢাকা থেকে প্রকাশিত জবাবদিহি, চুয়াডাঙ্গা থেকে প্রকাশিত মাথাভাঙ্গা ও সময়ের সমীকরণে ‘সাংবাদিকদের নাম ভাঙিয়ে টিসিবি পণ্য নিলেন ইউপি সদস্য রাকিব’ শিরোনামসহ ভিন্ন শিরোনামে সংবাদ প্রকাশিত হয়। ওই সংবাদের জের ধরে তিনি ২০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দাবি করে সাংবাদিকদের বিরুদ্ধে তিনি এ মামলা করেন। আদালত মামলাটি আমলে নিয়ে পিবিআইকে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন।

সাভার : সাভারের আশুলিয়ায় চাকরি দেওয়ার নামে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগের বিষয়ে তথ্য সংগ্রহের সময় বেসরকারি ‘এখন টিভি’র সাভার প্রতিনিধি এইচ এম হুমায়ুন কবির ও ক্যামেরাম্যানের ওপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। এ সময় ক্যামেরা ছিনিয়ে নিয়ে ভাঙচুর করা হয়। এ ঘটনা ঘটে বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের বিপরীতে সাভার ডেইরি ফার্মে। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে এ ঘটনায় আশুলিয়া থানায় অভিযোগ করেন ক্যামেরাম্যান নয়ন ইসলাম (২২)। নয়ন জয়পুরহাট সদরের নতুন হাট গ্রামের মৃত ফয়েজ ইসলামের ছেলে। হুমায়ুন কবির সাভারের কলমা এলাকার বাসিন্দা। অভিযুক্তরা হলেন- সাভার ডেইরি ফার্মের ওয়ার্কার্স ইউনিয়নের সভাপতি মো. আসাদুর রহমান (৪৮) ও সাধারণ সম্পাদক মো. মাসুদ মুন্সি (৪২)। এ ছাড়া অজ্ঞাত আরও ৪০-৫০ জনকে আসামি করা হয়েছে। অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, ডেইরি ফার্মে চাকরি দেওয়ার কথা বলে বিপুল টাকা নিয়ে আত্মসাৎ করেন আসাদুর রহমান ও মাসুদ মুন্সি। ওই অভিযোগের ভিত্তিতে তথ্য সংগ্রহ করতে সাভার ডেইরি ফার্মে গেলে আসাদুর রহমান ও মাসুদ মুন্সি তাদের লোকজনসহ সাংবাদিক হুমায়ুন কবির ও নয়নের ওপর হামলা করে। তারা ক্যামেরা ছিনিয়ে নিয়ে ভাঙচুরের পর ক্যামেরাম্যান নয়নকে বেধড়ক মারধর করেন। তারা খুন করে লাশ গুম করার হুমকি দেন। পরে খবর পেয়ে স্থানীয় সাংবাদিকরা তাদের উদ্ধার করে সাভার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। আশুলিয়ার থানা পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) ফরহাদ বিন বলেন, থানায় মামলা হয়েছে। তদন্ত চলছে। আসামি ধরতে অভিযান চলছে।

সর্বশেষ খবর