শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ২৩:৩০

বঙ্গবন্ধু ট্রাই টাওয়ারের নির্মাণ কাজ পরিদর্শন করলেন পূর্ত প্রতিমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক

পূর্বাচল নতুন শহরের সেন্ট্রাল বিজনেস ডিস্ট্রিক- সিবিডি-তে নির্মাণাধীন ঐতিহাসিক বঙ্গবন্ধু ট্রাই টাওয়ার প্রকল্প কাজের অগ্রগতি পরিদর্শন করেছেন গৃহায়ণ ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদ এমপি। বিশ্বের ৫ম বৃহত্তম ১১১ তলা বিশিষ্ট লিগ্যাসি টাওয়ার, ৭১ তলা বিশিষ্ট লিবারেশন টাওয়ার ও ৫২ তলা বিশিষ্ট ল্যাঙ্গুয়েজ টাওয়ার নিয়ে বঙ্গবন্ধু ট্রাই টাওয়ার যৌথভাবে নির্মাণ করছে সিকদার গ্রুপের সহযোগী প্রতিষ্ঠান পাওয়ারপ্যাক হোল্ডিংস লিমিটেড ও জাপানের কিজমা  করপোরেশন। গতকাল পূর্বাচল নতুন শহর প্রকল্পের ১৯ নম্বর সেক্টরে ১১৪ একর জমিতে নির্মাণাধীন বঙ্গবন্ধু ট্রাই টাওয়ার এলাকা পরিদর্শন করেন গৃহায়ণ ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদ এমপি। প্রকল্প এলাকায় প্রতিমন্ত্রীকে স্বাগত জানান সিকদার গ্রুপের পরিচালক এবং সিইও সৈয়দ কামরুল ইসলাম মোহন। এ সময়ে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন গৃহায়ণ ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদ এমপি। বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. শহীদ উল্লাহ খন্দকার এবং রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ- রাজউক চেয়ারম্যান মো. সাঈদ নূর আলম। এ সময়ে আরও উপস্থিত ছিলেন- রাজউক পূর্বাচল প্রকল্পের পরিচালক উজ্জ্বল মল্লিক, পরিচালক (প্রশাসন) নাইমুজ্জামান মুক্তা, পরিচালক (ব্যবসা উন্নয়ন) মোহাম্মদ সালেহউদ্দিন প্রমুখ। অনুষ্ঠানে শিকদার গ্রুপ ছাড়াও এই কাজের সঙ্গে যুক্ত আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন প্রতিষ্ঠান হেরিম, পিডব্লিউসি, আর্কেটাইপের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে গৃহায়ণ ও গণপূর্ত প্রতিমন্ত্রী শরীফ আহমেদ বলেন বঙ্গবন্ধু ট্রাই টাওয়ার প্রকল্পের মঙ্গল ও সাফল্য কামনা করছি। এটা সত্যিই গর্বের এই আইকনিক টাওয়ারে প্রতিফলিত হচ্ছে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে আমাদের ’৫২-এর ভাষা আন্দোলন, ’৭১-এর মহান মুক্তিযুদ্ধ, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার লিগ্যাসি। আমি আনন্দিত শিকদার গ্রুপ ও কাজিমা করপোরেশন অত্যন্ত গুরুত্বের সঙ্গে এই কাজটিকে এগিয়ে নেওয়ার জন্য। আমি তাদের ধন্যবাদ জানাই, তারা প্রস্তাবিত সময়সীমার আগেই কাজটি এগিয়ে নিচ্ছে। আমি আশা করব ২০২০-এ মূল কাজ শুরু করে ২০২৪ এর মধ্যে দৃশ্যমান অগ্রগতি যেন হয়। গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. শহীদ উল্লাহ খন্দকার বলেন, এই টাওয়ার দেশের জন্য গৌরবোজ্জ্বল স্মৃতি হবে। রাজউক চেয়ারম্যান মো. সাঈদ নূর আলম বলেন, স্বল্প সময়ে প্রকল্প কাজ পরিদর্শনে সিকদার গ্রুপের এই আয়োজন আমাদের কাছে অবিশ্বাস্য। আমরা অত্যন্ত খুশি। প্রসঙ্গত, পূর্বাচল সেন্ট্রাল বিজনেস ডিস্ট্রিক নামে রাজউকের আইকনিক টাওয়ার করার কাজটি দরপত্রের মাধ্যমে শিকদার গ্রুপ ও কাজিমা করপোরেশন, জাপান যৌথভাবে নির্বাচিত হয়। ইতিমধ্যেই প্রকল্পের মাটি পরীক্ষা, যানবাহন ব্যবস্থাপনাসহ বিভিন্ন সমীক্ষা প্রতিবেদন রাজউকে জমা দেওয়া হয়েছে। প্রকল্পের খসড়া মাস্টারপ্ল্যান ও ডিজাইন রাজউকে জমা দেওয়া হয়েছে। সম্প্রতি স্মার্ট ও নান্দনিক আইকনিক টাওয়ারের এই ডিজাইনের জন্য রাজউক আন্তর্জাতিক একটি পুরস্কার লাভ করে। এই ঐতিহাসিক টাওয়ারের আর্কিটেক্ট হিসেবে পৃথিবী বিখ্যাত হেরিম আর্কিটেক্ট কাজ করছে। হেরিম পৃথিবীর সেরা সাতটির একটি এবং কোরিয়ার শ্রেষ্ঠ আর্কিটেক্ট প্রতিষ্ঠান।


আপনার মন্তব্য