শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ৮ জুলাই, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ৮ জুলাই, ২০২০ ০০:৩২

ময়ূর-২ লঞ্চের ভুলেই প্রাণহানি ২০ দফা সুপারিশ তদন্ত কমিটির

বুড়িগঙ্গায় লঞ্চ ডুবিতে তদন্ত প্রতিবেদন

নিজস্ব প্রতিবেদক

ঢাকা-চাঁদপুর রুটে ময়ূর-২ লঞ্চের ভুলের কারণেই বুড়িগঙ্গায় মর্নিং বার্ড লঞ্চটি ডুবে ছিল বলে প্রতিবেদন দিয়েছে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় গঠিত তদন্ত কমিটি। তবে পুলিশি তদন্তের স্বার্থে দায়ীদের নাম প্রকাশ করা হয়নি। পাশাপাশি নৌ-দুর্ঘটনা প্রতিরোধে ২০ দফা সুপারিশও করেছে তদন্ত কমিটি। গতকাল সচিবালয়ে বুড়িগঙ্গায় ডুবে যাওয়া লঞ্চ মর্নিং বার্ড দুর্ঘটনার বিষয়ে তদন্ত রিপোর্ট প্রকাশ উপলক্ষে সংবাদ সম্মেলনে আসেন নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী। তিনি বলেন, যেহেতু ওই ঘটনায় মামলা হয়েছে, সুষ্ঠু বিচার কাজের স্বার্থে দোষীদের নাম প্রকাশ করা হচ্ছে না। নিহতদের পরিবারের সদস্যরা ন্যায়বিচার পাবেন বলেও আশ্বস্ত করেন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী। সংবাদ সম্মেলনে তদন্ত কমিটির দেওয়া সুপারিশ তুলে ধরা হয়। গত ২৯ জুন বুড়িগঙ্গায় লঞ্চডুবির ঘটনাটি হত্যাকান্ড হিসেবে প্রমাণিত হলে এ সংক্রান্ত অবহেলাজনিত মামলাটি ফৌজদারি কার্যবিধির ৩০২ ধারায় স্থানান্তর করা হবে বলে জানান নৌ প্রতিমন্ত্রী। তিনি বলেন, বুড়িগঙ্গার নৌ-দুর্ঘটনায় পুলিশের চূড়ান্ত তদন্ত প্রতিবেদন ১৭ আগস্টের মধ্যে পাওয়া যাবে। যদি ঘটনাটি ইচ্ছাকৃতভাবে হত্যাকান্ডের ঘটনা বলে প্রমাণিত হয় তবে মামলাটি দন্ডবিধির ৩০২ ধারায় স্থানান্তরিত হবে। সরকার নিরাপদ নৌপথ তৈরিতে কাজ করে যাচ্ছে জানিয়ে প্রতিমন্ত্রী বলেন, নৌযান মালিক, শ্রমিক ও জনগণ সবার স্বার্থ দেখছে সরকার। ভেসেল ট্রাফিক সিস্টেম (ভিটিএস) চালুর লক্ষ্যে সরকার কাজ করছে। ভিটিএস চালু ও ডিজিটালাইজড হলে দুর্ঘটনা নিয়ন্ত্রণ সম্ভব হবে।

২০ দফা সুপারিশ : ২০ দফা সুপারিশ তুলে ধরেন মন্ত্রণালয়ের সচিব মেজবাহ উদ্দিন চৌধুরী। সদরঘাট থেকে ভাটিতে ৭/৮ কিলোমিটার অংশে অলস বার্দিং উঠিয়ে দেওয়া, সদরঘাটের কাছে কোনো টার্মিনাল না রাখাসহ ২০ দফা সুপারিশের মধ্যে অন্যতম হলো : সদরঘাটের তিন কিলোমিটারের মধ্যে কোনো অলস লঞ্চ না রাখা, লঞ্চ টার্মিনালের আশপাশে কোনো খেয়াঘাট রাখা যাবে না, লঞ্চের ধারণক্ষমতার বেশি টিকিট বিক্রি করা যাবে না, লঞ্চের সামনে-পেছনে সিসি ক্যামেরা রাখার বাধ্যবাধকতা। এ ছাড়া পন্টুন ছাড়া নৌযান না রাখা, শিপইয়ার্ড এবং ডকইয়ার্ড তুলে দেওয়া, খেয়াঘাট ওয়াইজঘাটের উজানে স্থানান্তর, নৌ আইন যুগোপযোগী করাসহ কয়েকটি বিষয় সুপারিশ করা হয়। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে বিআইডব্লিউটিএর চেয়ারম্যান কমোডর গোলাম  মোহাম্মদ সাদেক উপস্থিত ছিলেন।


আপনার মন্তব্য