শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ২২ জুন, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২১ জুন, ২০২১ ২৩:২৮

৪০ কোটি টাকা বিলের দাবিতে হোটেলকর্মীদের মানববন্ধন

স্বাস্থ্যকর্মীদের কোয়ারেন্টাইন

নিজস্ব প্রতিবেদক

Google News

মহামারী করোনার মধ্যে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের ডাক্তার, নার্স, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের হোটেলে কোয়ারেন্টাইন ও খাবার সরবরাহ বাবদ বকেয়া ৪০ কোটি টাকা পরিশোধের দাবিতে মানববন্ধন করেছে বাংলাদেশ হোটেল ইন্টারন্যাশনাল

অ্যাসোসিয়েশন (বিহা)। গতকাল ঢামেক হাসপাতালের প্রশাসনিক ভবনের সামনে এই মানববন্ধনে ৩০টি হোটেলের কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন বলে সংগঠনের পক্ষ থেকে জানানো হয়। বিহার কো-চেয়ারম্যান খালেদ-উর-রহমান বলেন, ঢামেক হাসপাতালের সঙ্গে চুক্তির অন্যতম শর্ত ছিল হোটেল কর্তৃপক্ষ প্রতি ১০ দিন অন্তর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের কাছে বিল জমা দেবে এবং সাত কার্যদিবসের মধ্যে হাসপাতাল বিল পরিশোধ করবে। গত বছর আগস্টের প্রথম সপ্তাহে আমাদের জুলাই মাসের বিল জমা দেওয়া হয়। পরে আগস্ট, সেপ্টেম্বরের বিলও সাবমিট করা হয়। কিন্তু ঢামেক হাসপাতাল ও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দ্বারে দ্বারে ঘুরেও ওই তিন মাসের টাকা হোটেলগুলো পায়নি। ২০২০-২০২১ অর্থবছর শেষ হয়ে যাচ্ছে ৩০ জুন। এর মধ্যে পাওনা টাকা পরিশোধ করা না হলে ঢামেক হাসপাতালের অনুকূলে বরাদ্দ টাকা ফেরত চলে যাবে, বিষয়টি নিয়ে তারা উদ্বিগ্ন। তিনি আরও বলেন, আমাদের দাবিকৃত ন্যায্য বিল স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে অনুমোদন হয়ে গেছে। তারপরও আমাদের হাতে এসে পৌঁছেনি। ৩০ জুনের মধ্যে বিল না পেলে আন্দোলনে যাওয়ার হুঁশিয়ারি দেন বিহার কো-চেয়ারম্যান খালেদ। তিনি বলেন, গত এক বছর ধরে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ, ডিজি হেলথ, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এবং অর্থ মন্ত্রণালয়ের চাহিদা অনুযায়ী প্রয়োজনীয় সব ডকুমেন্টস সরবরাহ করেছি। কিন্তু আমাদের প্রাপ্য বিলের বিষয়ে কোনো সুরাহ হয়নি। হোটেলগুলোর কর্মীরা মানববন্ধন কর্মসূচি শেষে ঢামেক হাসপাতালের পরিচালক বরাবর স্মারকলিপি দেন। এদিকে বিল বকেয়া থাকার বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে ঢামেক হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নাজমুল হক বলেন, পদ্ধতিগত কারণে বিলম্ব হচ্ছে। আশা করছি শিগগিরই এ সমস্যার সমাধান হবে।

এই বিভাগের আরও খবর