শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২৩ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২২ জানুয়ারি, ২০২০ ২৩:২৯

প্রেমে সাড়া না দেওয়ায় শিক্ষার্থীকে অটোরিকশা থেকে ফেলে হত্যা

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি

প্রেমে সাড়া না দেওয়ায় হবিগঞ্জে সিএনজিচালিত অটোরিকশা থেকে ফেলে এসএসসি পরীক্ষার্থীকে হত্যা করা হয়েছে। পরিকল্পনা অনুযায়ী হত্যা নয়, সিদ্ধান্ত ছিল অপহরণের। কিন্তু স্কুলের কাছে গাড়ি পৌঁছামাত্রই পরিকল্পনার ব্যত্যয় ঘটে। অটোরিকশায় শ্লীলতাহানির চেষ্টা চালায় জাকির হোসেন। এ সময় ধস্তাধস্তির একপর্যায়ে গাড়ি থেকে লাফ দিতে চায় ওই ছাত্রী। অবস্থা বেগতিক দেখে ধাক্কা দেয় জাকির। এতে সে গুরুতর আহত হয়। গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। সেখানে এক দিন চিকিৎসাধীন থাকার পর ১৯ জানুয়ারি মারা যায় মদিনাতুল কোবরা জেরিন। আদালতে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে এসব তথ্য জানিয়েছে গ্রেফতারকৃত জাকির হোসেন। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় হবিগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সুলতান উদ্দিন প্রধানের আদালতে তার জবানবন্দি রেকর্ড করা হয়।

 সে সদর উপজেলার ধলগ্রামের বাসিন্দা। তার স্বীকারোক্তির বরাত দিয়ে মঙ্গলবার রাতে নিজ কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান পুলিশ সুপার মোহাম্মদ উল্ল্যা। তিনি বলেন, ১৮ জানুয়ারি রিচি উচ্চ বিদ্যালয় সংলগ্ন এলাকায় সিএনজি অটোরিকশা থেকে ফেলে আহত করা হয় জেরিনকে। ১৯ জানুয়ারি সকালে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। প্রথমে ধারণা করা হয়েছিল দুর্ঘটনায় তার মৃত্যু হয়েছে। ফলে পরিবারের সদস্যরা ময়নাতদন্ত ছাড়াই লাশ দাফন করেন। কিন্তু বিষয়টিতে পুলিশের সন্দেহ হয়। তদন্ত করতে গিয়ে হত্যাকাে র বিষয়টি বেরিয়ে আসে। গ্রেফতার করা হয় জাকির হোসেনকে। নিহত মদিনাতুল কোবরা জেরিন স্থানীয় রিচি উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ছিল। সে সদর উপজেলার ধলগ্রামের আবদুল হাইর মেয়ে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর