শিরোনাম
সোমবার, ২৬ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ টা

ডেঙ্গু আতঙ্ক

এখনই সতর্ক হতে হবে

করোনা মহামারীতে যখন জনজীবন বিপর্যস্ত, প্রতিদিন সংক্রমণ ও মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে চলেছে, তখন ডেঙ্গুর প্রাদুর্ভাবের খবর বাড়তি উদ্বেগ তৈরি করেছে। এ যেন মড়ার উপর খাঁড়ার ঘা। ডেঙ্গু পরিস্থিতি এখনো নিয়ন্ত্রণের মধ্যে আছে। কিন্তু সজাগ না হলে যে কোনো সময় সংক্রমণ বাড়তে পারে বলে জনস্বাস্থ্যবিদেরা আশঙ্কা করছেন। ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে শনিবার রাজধানীর বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ১০৪ জন। এ বছরে এক দিনে সর্বোচ্চসংখ্যক রোগী হাসপাতালে ভর্তির রেকর্ড এটি। সারা দেশে সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে ভর্তি আছেন ৪২২ জন। তাদের মধ্যে রাজধানীতে ৩১৯ জন ও ঢাকার বাইরের হাসপাতালে তিনজন রয়েছেন। এ বছরের শুরু থেকে শনিবার পর্যন্ত সারা দেশে মোট ১ হাজার ৫৭৪ জন ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন। তাদের মধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১ হাজার ১৪৯ জন। চলতি বছরে যত ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত হয়েছেন, তার ৫৯ দশমিক ৫ শতাংশই জুন মাসে। এই সংখ্যা আরও বাড়ছে। অনেক ক্ষেত্রে ডেঙ্গু ও করোনার উপসর্গ প্রায় অভিন্ন। জ্বর, শ্বাসকষ্ট দুই রোগেরই উপসর্গ। তবে করোনা শরীরের অন্যান্য অঙ্গ-প্রত্যঙ্গকে যেভাবে অকেজো করে দেয়, ডেঙ্গু তা করে না। ডেঙ্গুর বাহক এডিস মশা। সাধারণত ভবন বা সড়কের পাশে জমে থাকা নোংরা ও ময়লাযুক্ত পানিতে এডিস মশা জন্ম নিয়ে থাকে। তাই এডিস মশা যাতে জন্মাতে না পারে সে জন্য কার্যকর ও টেকসই ব্যবস্থা নেওয়া প্রয়োজন। যেহেতু বর্ষা শুরু হয়েছে এবং এটা ডেঙ্গু জ্বরের মৌসুম, সেহেতু এই জ্বরে আরও বেশি সংখ্যক মানুষ আক্রান্ত হতে পারে, এমন আশঙ্কা বাস্তবসম্মত। তাই ডেঙ্গু জ্বর এড়ানোর জন্য সতর্কতা এবং এই জ্বরে আক্রান্ত ব্যক্তিদের সুচিকিৎসা নিশ্চিত করার প্রস্তুতি গ্রহণ করা একান্ত প্রয়োজন। ডেঙ্গু জ্বর বেশ যন্ত্রণাদায়ক,  তা স্বাস্থ্যের দীর্ঘমেয়াদি ক্ষতি বা মৃত্যু ঘটাতে পারে।

এই রকম আরও টপিক

সর্বশেষ খবর