শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ২৪ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৩ আগস্ট, ২০১৯ ২৩:৫৭

অপহরণকারীদের টার্গেট নতুন প্রাইভেট কার

৪ সদস্য র‌্যাবের হাতে আটক

নিজস্ব প্রতিবেদক

অপহরণকারীদের টার্গেট নতুন প্রাইভেট কার

নতুন প্রাইভেটকার দেখে টার্গেট করতো অপহরণকারীরা। কৌশলে ওই গাড়ি ভাড়া করে চালক কিংবা মালিককে নির্দিষ্ট স্থানে নিয়ে আটকে রাখত। এরপর তাদের নির্যাতন করে পরিবারকে মোবাইলে শোনাত। এ সময় মুক্তিপণ দাবি করে হত্যার হুমকি দেওয়া হতো। এভাবেই তিন বছর ধরে অপহরণ চালিয়ে আসছিল চক্রটি। গতকাল ভোরে মাদারীপুরের শিবচর এলাকার একটি কাশবন থেকে এনায়েত উল্লাহ (৩২) নামে অপহৃত এক ব্যক্তিকে উদ্ধার করে র‌্যাব-৪। এ সময় অপহরণ চক্রের ৪ জনকে আটক করা হয়। আটককৃতরা হলেন শাহ জালাল (৩২), ফয়সাল (২২), জয়নাল হাজারী (৩০) ও রাকিব (২২)। এ সময় তাদের কাছ থেকে সাতটি দেশীয় অস্ত্র জব্দ করা হয়। গতকাল রাজধানীর কারওয়ান বাজারের র‌্যাবের মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব জানান র‌্যাব-৪ এর অধিনায়ক অতিরিক্ত ডিআইজি মোজাম্মেল হক। তিনি জানান, গত ১৯ আগস্ট সন্ধ্যায় যাত্রীবেশে দুজন রাজধানীর রূপনগর এলাকার শিয়ালবাড়ির মোড়ে এনায়েত উল্লাহর প্রাইভেটকার ভাড়া নেয়। পরে পদ্মা নদী পার হয়ে কাঁঠালবাড়ী এলাকায় রাত ২টার দিকে পৌঁছলে অপহরণকারী চক্রের আরও তিন সদস্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পরিচয়ে তল্লাশির নামে প্রাইভেটকারটি থামানোর সংকেত দেয়। সংকেত পেয়ে প্রাইভেটকারটি থামায় চালক এনায়েত। পরে অপহরণকারীরা গাড়িটি মাদারীপুরের শিবচর উপজেলার দত্তপাড়া চর এলাকায় নিয়ে যায়। সেখানে একটি কাশবনের পাশে ছোট ঘরে চালক এনায়েতকে আটকে হাত-মুখ বেঁধে টানা চার দিন নির্যাতন করে। এ সময় ছিনিয়ে নেয় তার কাছে থাকা ৭০ হাজার টাকা। অপহরণের পর তাকে নির্যাতনের শব্দও এনায়েতের পরিবারকে শোনানো হয় এবং মুক্তিপণ বাবদ চাওয়া হয় ১০ লাখ টাকা। এটি জানার পরই এনায়েতের ভাই কেফায়েত উল্লাহ রূপনগর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন। পরে ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য র?্যাব-৪ বরাবর একটি আবেদন দেন। গত ২০ আগস্ট থেকে টানা ৫২ ঘণ্টা অভিযান চালিয়ে মাদারীপুরের শিবচর থেকে এনায়েতকে উদ্ধার করা হয়। এসময় অপহরণ চক্রের ৪ জনকে আটক করা হয়। আটকের পর অপহরণকারীদের তথ্যে ফরিদপুরের সদরপুর উপজেলার আটরশি জাকের মঞ্জিলের পার্ক থেকে প্রাইভেটকারটি উদ্ধার করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আটককৃতরা জানায় তাদের চক্রে নয়ন তারা (২৩), সজীব (২২), রেজাউল (২৮), রবমিয়া (২৪), কামরুল (২৫) ও মেহেদী হাসান (২৩) নামে আরও ছয়জন জড়িত রয়েছে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর