শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৬ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০৬

পুলিশ কর্মকর্তা পরিচয়ে প্রতারণা...

নিজস্ব প্রতিবেদক

পুলিশ কর্মকর্তা পরিচয়ে প্রতারণা...

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে (ফেসবুক) পুলিশ কর্মকর্তা পরিচয়ে প্রতারণা করে মোটা অঙ্কের অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ-সিআইডি। তার নাম রিফাত আহম্মেদ ওরফে রুবন (৩০)। রিফাত দিনাজপুর কোতোয়ালি থানাধীন পাহাড়পুর এলাকার মাহফুজুল হকের ছেলে। গতকাল দুপুরে নিজ কার্যালয়ে সিআইডির বিশেষ পুলিশ সুপার মোস্তফা কামাল সংবাদ সম্মেলনে বলেন, দিনাজপুর জেলার পাহাড়পুর থেকে গত শনিবার রাতে রিফাতকে গ্রেফতার করা হয়। গত কয়েক মাস ধরে ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে ফ্রিল্যান্সিংয়ের মাধ্যমে টাকা দ্বিগুণ করে দেওয়ার নাম করে অন্তত ৩০ জনের কাছ থেকে কখনো পুলিশের এডিসি আবার কখনো ডিআইজি পরিচয়ে কখনো বা সিআইডি ও কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের কর্মকর্তা পরিচয়ে রকেট অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে অর্থ হাতিয়ে নিয়ে প্রতারণা করে আসছিলেন তিনি।

সিআইডির সাইবার পুলিশ সেন্টারের সাইবার মনিটরিং টিম বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নিয়মিতভাবে মনিটরিং করে তাকে গ্রেফতার করে। 

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, ধরা পড়ার আগে তার সম্পর্কে সাইবার মনিটরিংয়ের মাধ্যমে সিআইডি গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পায়। বিশেষ করে রিফাত আহমেদ নামে তার আইডির প্রোফাইল ও কভার পিকচারে পুলিশের ছবি ব্যবহার করার তথ্য পাওয়া যায়। সেই সঙ্গে বিভিন্ন সময়ে ‘ফ্রিলান্সিং’ করার জন্য তার ব্যবহৃত ফেসবুক আইডিতে কাউন্টার টেররিজম ও ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার পরিচয় দিয়ে পোস্ট দেওয়ার তথ্য মেলে। বিষয়টি সাইবার মনিটরিং টিম পর্যবেক্ষণে রেখে তাকে শনাক্ত করার  চেষ্টা করতে থাকে। এরই মধ্যে সিআইডির ফেসবুক পেইজে বেশ কিছু ব্যক্তি ওই ফেসবুক আইডি সম্পর্কে অভিযোগ করলে দিনাজপুর জেলার পাহাড়পুরে অভিযান চালানো হয়। সিআইডির সাইবার পুলিশ সেন্টারের এএসপি জুয়েল চাকমা ও এএসপি চাতক চাকমার নেতৃত্বে একটি টিম তাকে গ্রেফতার করে জানতে পারে, তিনি দিনাজপুর থেকেই প্রতারণামূলকভাবে ওই ফেসবুক আইডি পরিচালনা করে আসছিলেন। তিনি মূলত ফ্রিল্যান্সিংয়ের মাধ্যমে টাকা দ্বিগুণ করে দেওয়ার আশ্বাসে বিকাশ ও রকেট মোবাইল ব্যাংকিং অ্যাকাউন্টে টাকা নেওয়ার পর ওই নাম্বার ব্লক করে দিতেন। পরে ভুক্তভোগীরা তার সঙ্গে যোগাযোগ করতে না পেরে প্রতারণার বিষয়টি বুঝতে পারেন।

এভাবে আর কেউ যেন প্রতারণার ফাঁদে না পড়ে তা জানিয়ে গতকাল সিআইডির সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, এভাবে ফ্রিল্যান্সিংয়ের মাধ্যমে টাকা দ্বিগুণ করার আশ্বাস কেউ যেন বিশ্বাস না করেন। এটা কোনোভাবেই সম্ভব নয়। কেউ এমন প্রতারণা করলে দ্রুত বিষয়টি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে জানালে সহযোগিতা দেওয়া হবে বলে জানানো হয় সংবাদ সম্মেলনে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর