শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ১০ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ৯ এপ্রিল, ২০২১ ২৩:৩০

চলে গেলেন দানবীর আবুল হাশেম

কুমিল্লা প্রতিনিধি

চলে গেলেন দানবীর আবুল হাশেম
Google News

চলে গেলেন বিশিষ্ট দানবীর, সাবেক এমএলএ হাজী আবুল হাশেম। গতকাল ঢাকার শ্যামলীর নিজ বাসভবনে বার্ধক্যের কারণে তিনি মৃত্যুবরণ করেন। তার বয়স হয়েছিল ৯৯ বছর। আবুল হাশেম ১৯২২ সালের ২৫ এপ্রিল কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার রাজা চাপিতলা গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর মৃত্যুতে গভীর শোক ও সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন কুমিল্লা-৩ মুরাদনগরের সংসদ সদস্য ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুন, কুমিল্লা উত্তর জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ম. রুহুল আমিন, কোম্পানীগঞ্জ বদিউল আলম ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ মো. নূরুল হক প্রমুখ। তাঁর বাবার নাম বদিউল আলম, মায়ের নাম অজিফা খাতুন। তিনি ১০ মেয়ে, ২ ছেলের জনক।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, করোনা পরিস্থিতির কারণে লাশ মুরাদনগর আনা হয়নি। গতকাল বাদ আসর শ্যামলীতে প্রথম ও সেগুনবাগিচায় দ্বিতীয় জানাজা শেষে বনানী কবরস্থানে তাঁকে দাফন করা হয়।

বরেণ্য এই ব্যক্তি সমাজসেবায় ২০১১ সালে একুশে পদক লাভ করেন। ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধেও ছিল তাঁর অবদান। তিনি ৬৪টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রতিষ্ঠা করেছেন। তার মধ্যে কয়েকটি হচ্ছে ১৯৫৬ সালে মুরাদনগর উপজেলার কোম্পানীগঞ্জে বাবার নামে বদিউল আলম উচ্চবিদ্যালয়। ১৯৬৪ সালে বাখরনগর হাশেমিয়া ইসলামিয়া সিনিয়র মাদরাসা, ১৯৭০ সালে কোম্পানীগঞ্জ বদিউল আলম ডিগ্রি কলেজ, চাপিতলা অজিফা খাতুন উচ্চবিদ্যালয়, ১৯৭১ সালে মুরাদনগর নুরুন্নাহার বালিকা উচ্চবিদ্যালয়, হোমনায় কাশীপুর হাশেমিয়া উচ্চবিদ্যালয়, ১৯৭২ সালে হোমনার রামকৃষ্ণপুরে কামাল স্মৃতি বালিকা উচ্চবিদ্যালয়, ফেনীর পরশুরামে দক্ষিণ রাজেশপুর প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং দক্ষিণ রাজেশপুর করিমিয়া মাদরাসা ও মসজিদ, ১৯৮৬ সালে হোমনায় রামকৃষ্ণপুর কলেজ, ১৯৯৩ সালে মুরাদনগরে সলপা প্রাথমিক বিদ্যালয় ও কচুয়ার পাড় প্রাথমিক বিদ্যালয়, ২০০৩ সালে মুরাদনগরে অজিফা খাতুন জামে মসজিদ, ২০০৪ সালে ফুলগাজী দক্ষিণ রাজেশপুর থানা জামে মসজিদ ও ২০১০ সালে ঠাকুরগাঁওয়ের মিলনপুরে নুরুন্নাহার হাশেম স্মৃতি প্রাথমিক বিদ্যালয়। সর্বশেষ ২০২০ সালে প্রায় আড়াই কোটি টাকা ব্যয়ে কোম্পানীগঞ্জ বদিউল আলম কলেজ মসজিদ নির্মাণ করেন।

এই বিভাগের আরও খবর