শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২১:৫২

প্রতিষ্ঠাতা আবুল হাসানাত বাবুল

একুশ নিয়ে জামতলায় ৩৮ বছর

মহিউদ্দিন মোল্লা, কুমিল্লা

একুশ নিয়ে জামতলায় ৩৮ বছর

৩৮ বছর। কুমিল্লা নগর উদ্যানের জামতলায় নতুন প্রজন্মকে ভাষা আন্দোলনের গৌরবোজ্জ্বল ইতিহাস শুনিয়ে আসছে তারা। তিননদী পরিষদ। সংগঠনটি ১৯৮৪ সাল থেকে ২১ দিনব্যাপী আলোচনা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করছে। মেঘনা, তিতাস ও গোমতী নদীপারের সংস্কৃতি চর্চার উদ্দেশ্যে ১৯৮৩ সালে সংগঠনটি গঠন করা হয়।

প্রবীণ শিক্ষাবিদ প্রফেসর আমীর আলী চৌধুরী বলেন, কুমিল্লার শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ থেকে শুরু করে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের উদ্যোক্তা রফিকুল ইসলাম বাংলা ভাষার সম্মানকে তুলে ধরতে কাজ করেছেন। কুমিল্লার অজিত গুহ, মেজর গণি ও মোহিনী মোহন বর্ধন ভাষার সম্মান রক্ষায় ভূমিকা রেখেছেন। অমর একুশ নিয়ে ২১ দিনব্যাপী ৩৮ বছর তিননদী পরিষদের অনুষ্ঠানমালা বাংলাদেশের ইতিহাসে ব্যতিক্রমী ঘটনা।

তিননদী পরিষদের সভাপতি আবুল হাসানাত বাবুল জানান, ভাষার গৌরব আর সংগ্রামের ইতিহাস জাগ্রত রাখতে কাজ করে যাচ্ছেন তিনি। ৩৮ বছর ধরে অনুষ্ঠান করতে গিয়ে অনেক দুর্ভোগে পড়তে হয়েছে। প্রথম প্রথম তেমন সাড়া পেতেন না। বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ঘুরতে হয়েছে। পরবর্তী সময়ে সুধীজনের ব্যাপক সাড়া পাওয়া যায়। একুশ নিয়ে অনুষ্ঠান করার জন্য নগর পার্কের জামগাছের নিচে জামতলার মঞ্চটি ১৯৮৪ সালে পাকা করা হয়। তিননদী পরিষদের কার্যক্রম এগিয়ে নিতে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক জমির উদ্দিন খান জম্পি ও সদস্য পারভীন হাসানাতের অবদানের কথা তিনি বিশেষভাবে উল্লেখ করেন। ভাষাসৈনিকদের মধ্যে এ মঞ্চে কথা বলেছেন-  প্রয়াত অ্যাডভোকেট আহমেদ আলী, অধ্যাপিকা লায়লা নূর, আলী তাহের মজুমদার, আবদুল জলিল প্রমুখ। তিনি আরও বলেন, ভাষাসৈনিক অ্যাডভোকেট আহমেদ আলীসহ কুমিল্লার অন্য ভাষা সৈনিকরা মৃত্যুবরণ করেছেন। এ বছর উদ্বোধনী বক্তব্যে জেলা প্রশাসক  মো. আবুল ফজল মীর বলেন, কুমিল্লার তরুণদের প্রতি আহ্বান  থাকবে প্রমিত বাংলা চর্চার।


আপনার মন্তব্য