শিরোনাম
প্রকাশ : ২৮ জানুয়ারি, ২০২১ ২০:১৬
প্রিন্ট করুন printer

ভিত্তিপ্রস্তরেই আটকে আছে ‘দেশরত্ন শেখ হাসিনা সেতু’

নিজস্ব প্রতিবেদক, সিলেট

ভিত্তিপ্রস্তরেই আটকে আছে ‘দেশরত্ন শেখ হাসিনা সেতু’
২০১৮ সালের ১৮ এপ্রিল শেখ হাসিনা সেতুর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন সিলেট-৩ আসনের সাংসদ মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী ও সিলেট-২ আসনের তৎকালীন সাংসদ ইয়াহইয়া চৌধুরী এহিয়া। ফাইল ছবি

বছর তিনেক আগের কথা। জাঁকজমকপূর্ণ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে সিলেটের বালাগঞ্জ উপজেলা সদরের বড়ভাঙ্গা নদীতে ‘দেশরত্ন শেখ হাসিনা সেতু’ নির্মাণের জন্য ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়। কিন্তু কিছুদিন পরেই বন্ধ হয়ে যায় সেতুর কাজ। বর্তমানে ওই ভিত্তিপ্রস্তরেই আটকে আছে সেতুটি। এ নিয়ে স্থানীয়দের মধ্যে ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে। দায়িত্বশীলরা বলছেন, আগের নকশা বদলে এখন নতুন নকশায় হবে সেতুটি। 

জানা গেছে, ২০১৮ সালের ১৮ এপ্রিল শেখ হাসিনা সেতুর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন সিলেট-৩ আসনের সাংসদ মাহমুদ উস সামাদ চৌধুরী ও সিলেট-২ আসনের তৎকালীন সাংসদ ইয়াহইয়া চৌধুরী এহিয়া। বালাগঞ্জ উপজেলা পরিষদের অর্থায়নে প্রকল্প ব্যয় ধরা হয়েছিল ২ কোটি ৬৭ লাখ টাকা। সেতুটি প্রায় ১শ মিটার দীর্ঘ ও ৪ মিটার প্রস্থ হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের কিছুদিন যেতে না যেতেই বন্ধ হয়ে যায় কাজ। কয়েকটি পিলার ছাড়া আর কিছুই নেই সেতুটির।

জানা গেছে, বালাগঞ্জ উপজেলার সদর ইউনিয়নের কয়েকটি ওয়ার্ডসহ উপজেলার পশ্চিম গৌরীপুর ও দেওয়ান বাজার ইউনিয়ন সরাসরি সড়ক যোগাযোগ থেকে বিচ্ছিন্ন রয়েছে। এ ছাড়া সিলেট-সুলতানপুর-বালাগঞ্জ সড়কের শেষপ্রান্তে ওই সেতুটি না হওয়ায় বালাগঞ্জসহ পার্শ্ববর্তী মৌলভীবাজার জেলার বিভিন্ন উপজেলাবাসীকেও দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। স্থানীয়রা ডিঙি নৌকা দিয়ে নদী পারাপার হন। 

সেতুটির নির্মাণকাজ প্রসঙ্গে বালাগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোস্তাকুর রহমান মফুর বলেন, কারিগরি ত্রুটির কারণে সেতুটির কাজ আটকে আছে।

বালাগঞ্জ উপজেলা প্রকৌশলী এএসএমজি কিবরিয়া জানান, কাজটি মূলত উপজেলা পরিষদের অর্থায়নে শুরু হয়েছিল। আগের ডিজাইনে (নকশা) সেতুটি নির্মাণ করা উপযুক্ত নয়। এখন নতুন ডিজাইন প্রস্তুত করতে হবে।

বিডি প্রতিদিন/জুনাইদ আহমেদ


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর