শিরোনাম
প্রকাশ : ২২ নভেম্বর, ২০১৯ ১৯:২১
আপডেট : ২২ নভেম্বর, ২০১৯ ২১:২৮

যুবলীগের সম্মেলন শনিবার

'স্বাক্ষর জাল' করেই যুবলীগের কাউন্সিলর তালিকা!

সাইদুল ইসলাম, চট্টগ্রাম

'স্বাক্ষর জাল' করেই যুবলীগের কাউন্সিলর তালিকা!

কেন্দ্রীয় যুবলীগের সম্মেলনে যোগ দিতে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদকের স্বাক্ষর জাল করেই কাউন্সিলর তালিকা জমা দেয়ার অভিযোগ উঠেছে সভাপতির বিরুদ্ধে। যৌথ স্বাক্ষরে কাউন্সিলর তালিকা তৈরির নিয়ম থাকলেও কাউন্সিলর কার হচ্ছেন সেটা জানেন না সাধারণ সম্পাদক নিজেই। এই নিয়ে দক্ষিণ জেলা যুবলীগের নেতা-কর্মীদের মধ্যে পাল্টাপাল্টি মন্তব্য এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেই ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনা চলছে। এখানে সভাপতি আনম টিপু সুলতান চৌধুরী স্বাক্ষরিত একটি তালিকা জমা দিলেও সেই তালিকায় সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক পার্থ সারথি চৌধুরী স্বাক্ষর করেননি।

অন্যদিকে, আরেকটি তালিকা সাধারণ সম্পাদকও জমা দিয়েছেন। এই পাল্টাপাল্টি তালিকা জমা দেয়ার কারণে মূলত ত্যাগী, যোগ্য নেতা, নাকি বির্তকিত ব্যক্তিসহ আদতে কারা কাউন্সিলর-ডেলিগেট হচ্ছেন সেটি ধোয়াঁশা রয়ে গেছে বলে সংশ্লিস্ট সুত্রে জানা গেছে। তবে কারা সম্মেলনে কার্ড পাচ্ছেন সেটাও সম্মেলনে যোগ দেয়ার আগ মুহূর্ত পর্যন্ত বলা যাচ্ছে না। এতে হতাশাগ্রস্থ হয়ে সেই উৎসাহ-উদ্দীপনাভাবটা কেটে যাচ্ছে দক্ষিণের নেতা-কর্মীদের। অনেকেই বলছেন, এসব নাটকের জন্য কি ঢাকায় এসেছি?

নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক নেতা-কর্মী বলেন, স্বাক্ষর জালের বিষয়টি ফাসঁ হয়ে যাওয়ায় সভাপতি নতুন করে আরেকটি তালিকা কেন্দ্রে জমা দিয়েছেন। অন্যদিকে, সাধারণ সম্পাদকও একটা তালিকা জমা দিয়েছেন। এতে আদতে কারা কাউন্সিলর হচ্ছেন সেটিই এখন প্রশ্নবিদ্ধ হয়ে পড়েছে।

চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা যুবলীগের সভাপতি আনম টিপু সুলতান চৌধুরী বলেন, আমার সাধারণ সম্পাদকের সাথে (দক্ষিণ জেলা যুবলীগ) আমার মতের অমিল রয়েছে কিছুটা। তাই আমি নিজেই একটি তালিকা জমা দিয়েছি। তাছাড়া সম্মেলনের আগেই যে কোন সময় এটা ঠিক হয়েছে যাবে। তবে আমি সাধারণ সম্পাদকের স্বাক্ষর জাল করিনি। এটা নিয়ে বিভিন্ন সামাজিক মাধ্যমেসহ রাজনৈতিক অঙ্গনে আমাকে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য চক্রান্ত করা হচ্ছে। তাছাড়া কাউন্সিলর-ডেলিগেট তালিকা ছাড়াও অনেকেই সম্মেলন দেখতে ঢাকায় এসেছেন বলে জানান তিনি।

অভিযোগ করে দক্ষিণ জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক পার্থ সারথি চৌধুরী বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, দক্ষিণ জেলা যুবলীগের কাউন্সিলর তালিকা এখনও দেখিনি এবং স্বাক্ষরও করিনি। এখানে কারা কাউন্সিলর হচ্ছেন সেটাও জানিনা। নিয়ম হচ্ছে সভাপতি-সম্পাদকের স্বাক্ষরেই কাউন্সিলর তালিকা তৈরি করতে হবে। কারা এই তালিকা জমা দিয়েছেন, সেটিও জানি না। 

তিনি আরও বলেন, যুবলীগের সম্মেলনে যোগ দিতে দক্ষিণ জেলা থেকে প্রায় ৬’শ কাউন্সিলর-ডেলিগেট ঢাকায় আসছেন সেটা জানি। এর মধ্যে কাউন্সিলর হবেন ২৫ জন। আজ শুক্রবার সকাল থেকেই ট্রেন, বাস, ব্যক্তিগত গাড়ি দিয়ে ঢাকায় নেতা-কর্মীরা ঢাকায় আসছেন। এর আগে আমিসহ অনেকেই ঢাকায় চলে এসেছি।

উত্তর জেলার রাউজান উপজেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি ও ক্রীড়া সংগঠক সুমন দে বলেন, এবার যুবলীগের সম্মেলনে যোগ দিতে শুধুমাত্র রাউজান উপজেলা থেকেই যাচ্ছি প্রায় ২’শ জনের উপরে নেতা-কর্মী। উপজেলার প্রতিটি ইউনিয়নসহ তৃনমূলের দায়িত্বশীলরা সম্মেলনে যাচ্ছেন। তাছাড়া উত্তর জেলা থেকেও ৫’শ এর উপরে কাউন্সিলর ডেলিগেট আসছেন ঢাকায়। এ সম্মেলনে যোগ দিতে নেতা-কর্মীরা ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা রয়েছে। একই কথা বললেন উত্তর জেলা যুবলীগ নেতা ও উপজেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি সারজু মো নাছেরও।

যুবলীগের সম্মেলনে এবার চট্টগ্রাম মহানগর, উত্তর ও দক্ষিণ জেলা থেকে যোগ দিচ্ছেন প্রায় ২ হাজার কাউন্সিলর- ডেলিগেট। এদের মধ্যে ৭৫ জন কাউন্সিলর এবং বাকি প্রায় ১৯’শ এর উপরে ডেলিগেট রয়েছেন। যুবলীগের এই সম্মেলনকে কেন্দ্র করে প্রায় ২ হাজার কাউন্সিলর-ডেলিগেট চট্টগ্রাম থেকে যোগ দিচ্ছেন। অনেকেই সম্মেলনের বাইরেও থাকতে হবে। কেন্দ্রীয় এই সম্মেলন দেখতেও যাচ্ছেন চট্টগ্রাম মহানগর, উত্তর ও দক্ষিণ জেলা যুবলীগের নেতা-কর্মীরা। ইতিমধ্যে অনেকে ঢাকায় পৌঁছেছেন। অধিকাংশ নেতা-কর্মী ট্রেন, সড়ক পথে এবং ব্যক্তিগত গাড়ি নিয়ে আজ শুক্রবার ভোর থেকেই ঢাকায় উদ্দ্যেশে চট্টগ্রাম ছেড়েছেন নেতা-কর্মীরা। এর মধ্যে শুধু মাত্র বিভিন্ন ট্রেন যোগেই যাচ্ছেন ৫’শ কাউন্সিলর-ডেলিগেট।

 

বিডি-প্রতিদিন/ সিফাত আব্দুল্লাহ


আপনার মন্তব্য