শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ২৮ নভেম্বর, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৭ নভেম্বর, ২০২০ ২২:৪৫

সাত বছরেও সন্ধান মেলেনি বিএনপি নেতা হিরু-হুমায়ুনের

লাকসাম (কুমিল্লা) প্রতিনিধি

কুমিল্লার লাকসাম বিএনপির দুই নেতা সাইফুল ইসলাম হিরু ও হুমায়ুন কবির পারভেজের সন্ধান মেলেনি সাত বছরেও। দুই নেতাকে ফিরে পাবার আশায় স্বজনরা বছরের পর বছর পথ চেয়ে থাকলেও তাদের প্রতীক্ষার প্রহর যেন শেষ হয় না। স্থানীয় বিএনপি ও নিখোঁজ দুজনের পরিবার জানায়, ২০১৩ সালের ২৭ নভেম্বর রাতে লাকসাম বিএনপির সভাপতি সাইফুল ইসলাম হিরু, পৌর বিএনপির সভাপতি হুমায়ুন কবির পারভেজ ও পৌর বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক জসিম উদ্দিন একটি অ্যাম্বুল্যান্সযোগে লাকসাম থেকে কুমিল্লার উদ্দেশে রওনা দেন। পথে কুমিল্লা-নোয়াখালী মহাসড়কের আলীশ্বরে এলাকায় সাদা পোশাকধারী একদল লোক তাদের একটি মাইক্রোবাসে তুলে নিয়ে কুমিল্লার দিকে চলে যায়। ওই রাতেই জসিমকে লাকসামে গ্রেফতার হওয়া আরও ৯ জনের সঙ্গে থানায় হস্তান্তর করেন র‌্যাব-১১। কিন্তু বাকি দুজনের সন্ধান দিতে পারেনি র‌্যাব বা পুলিশ। নিখোঁজদের স্বজনদের অভিযোগ, নারায়ণগঞ্জের ৭ খুনের অন্যতম মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত আসামি তারেক সাঈদের নেতৃতে হিরু-হুমায়ুনকে গুম করা হয়েছে। এ ঘটনায় তারা ২০১৪ সালের ১৮ মে কুমিল্লা আদালতে মামলা করেন। আদালত মামলাটি তদন্ত করে প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য লাকসাম থানার তৎকালীন ওসিকে নির্দেশ দেন। কয়েক দফা সময় নিয়ে ২০১৪ সালের ১৫ অক্টোবর প্রথম তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করে পুলিশ। মামলার বাদী ওই প্রতিবেদনের বিরুদ্ধে নারাজি দিলে ২০১৫ সালের ৩ ফেব্রুয়ারি আদালত মামলাটি সিআইডিকে তদন্তের নির্দেশ দেন। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা সিআইডির অতিরিক্ত বিশেষ পুলিশ সুপার জালাল উদ্দিন আহম্মদ চলতি বছরের ২৭ আগস্ট মামলার তদন্ত প্রতিবেদন কুমিল্লার ৬ নম্বর আমলি আদালতে দাখিল করেন।

এরপর মামলার বাদী ১০ নভেম্বর কুমিল্লার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শারমিন রিমার আদালতে ওই তদন্ত প্রতিবেদনের বিরুদ্ধে নারাজি দিলে পিবিআইকে মামলা তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়। 

মামলার বাদী গোলাম ফারুক জানান, লাকসামের সামাজিক ও রাজনৈতিক অঙ্গনে হিরু ও পারভেজ জনপ্রিয় মুখ। স্বজনরা সাত বছর থেকে তাদের ফিরে আসার প্রতীক্ষার প্রহর গুনছে।

বাদী পক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট বদিউল আলম সুজন বলেন, সাড়ে ৫ বছরে সিআইডি অন্তত ৬৩ বার আদালত থেকে সময় নিয়ে একটি প্রতিবেদন জমা দিয়েছে। ওই প্রতিবেদন অগ্রহণযোগ্য হওয়ায় বাদী আদালতে নারাজি দেন।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর