শিরোনাম
প্রকাশ : ৫ মার্চ, ২০২১ ১৭:৫৪
আপডেট : ৫ মার্চ, ২০২১ ১৭:৫৮
প্রিন্ট করুন printer

হাকিমপুরে শিক্ষা অফিস হিসাবরক্ষকের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ

দিনাজপুর প্রতিনিধি:

হাকিমপুরে শিক্ষা অফিস হিসাবরক্ষকের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ

দিনাজপুরের হাকিমপুর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের হিসাবরক্ষক আশরাফুল আলমের বিরুদ্ধে ব্যাপক অনিয়ম, দুর্নীতি, স্বেচ্ছাচারিতাসহ নানা অভিযোগ উঠেছে। 

আশরাফুল আলম হাকিমপুর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসে দীর্ঘ ৫ বছর অফিস সহকারী-কাম-ডাটা এন্ট্রি অপারেটর পদে কর্মরত থাকা অবস্থায় সম্প্রতি পদোন্নতি প্রাপ্ত হয়ে হাকিমপুর উপজেলায় হিসাবরক্ষক পদে কর্মরত আছেন।

অভিযুক্ত হিসাবরক্ষকের বিরুদ্ধে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারী ও জনপ্রতিনিধিদের মৌখিক ও লিখিত নানা অভিযোগের প্রেক্ষিতে দিনাজপুর জেলা শিক্ষা অফিসার রফিকুল ইসলাম গত বছরের ৪ নভেম্বর অভিযুক্ত আশরাফুল আলমকে অন্যত্র বদলিসহ বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বরাবর সুপারিশ করলেও অদ্যবধি তার বিরুদ্ধে কোন পদক্ষেপ নেয়া হয়নি। 

বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীরা জানান, হাকিমপুর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের হিসাবরক্ষক আশরাফুল আলমের নিকট আমরা বিভিন্নভাবে জিম্মি। শিক্ষক-কর্মচারীদের ইএফটিসহ সকল কাজ আমরা টাকার বিনিময়ে তার মাধ্যমে করতে বাধ্য হচ্ছি। প্রতিষ্ঠানের এমপিও পাসওয়ার্ড ভুলে গেলে বা হারিয়ে গেলে টাকার বিনিময়ে তার নিকট থেকে সংগ্রহ করতে হয়। সকল প্রকার ফাইল সংক্রান্ত কাজে অর্থ গ্রহণ, বিনামূল্যে সরকারি বই বিতরণে বিদ্যালয় প্রতি অর্থ গ্রহণ, শিক্ষকদের প্রশিক্ষণে অংশগ্রহণ করিয়ে দেয়ার নামে উৎকোচ গ্রহণ, শিক্ষক-কর্মচারীদের উচ্চতর স্কেল, বিএড স্কেল, নতুন নিয়োগপ্রাপ্ত শিক্ষক-কর্মচারীদের এমপিও সংক্রান্ত অনলাইন আবেদন সেন্ট বাবদ মোটা অংকের অর্থ দাবি করেন, অনাদায়ে নির্দিষ্ট তারিখের পূর্বেই ফাইল ব্যাক করেন। তার চাহিদা পূরণ না করলে নানা রকম হয়রানি, অশালীন, অসৌজন্যমূলক ও ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণের স্বীকারসহ তার রোষানলে পড়তে হয়। 

অভিযুক্ত হিসাবরক্ষক আশরাফুল আলম তার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ অস্বীকার করে জানান, শিক্ষক-কর্মচারীদের ইএফটি, এমপিও পাসওয়ার্ড দেয়া আমার কাজ নয় এবং গত ৩ বছর থেকে কোন বই বিতরণ কাজেও আমি নেই। তাই আমি ওইসব অনিয়ম ও দুর্নীতির সাথে জড়িত নয়। 

দিনাজপুর জেলা শিক্ষা অফিসার রফিকুল ইসলাম জানান, আমি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারী ও জনপ্রতিনিধিদের মৌখিক ও লিখিত অভিযোগের প্রেক্ষিতে অভিযুক্ত আশরাফুল আলমকে অন্যত্র বদলিসহ বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বরাবর সুপারিশ করেছি।

বিডি প্রতিদিন/হিমেল


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর