শিরোনাম
প্রকাশ : ১৭ জানুয়ারি, ২০২০ ২১:৩৯

অবশেষে ত্রিপুরায় স্থায়ী বসবাসের অনুমতি পেলো ব্রুরা

অনলাইন ডেস্ক

অবশেষে ত্রিপুরায় স্থায়ী বসবাসের অনুমতি পেলো ব্রুরা

প্রায় ২২ বছর পর ত্রিপুরায় স্থায়ী বসবাসের অনুমতি পেলো মিজোরাম রাজ্য থেকে আসা ৩৫ হাজার ব্রু বা রিয়াং জনজাতি অংশের মানুষ। ব্রু বা রিয়াং এ জনগোষ্ঠী দীর্ঘদিন ধরে অস্থায়ী ভাবে ত্রিপুরা রাজ্যের উত্তর জেলার কাঞ্চনপুর ও পানিসাগর এলাকায় বসবাস করছিল। 

বৃহস্পতিবার দিল্লিতে ত্রিপুরা সরকার, মিজোরাম সরকার এবং ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ এর মধ্যে এক বৈঠকের পর তাদের স্থায়ীভাবে বসবাসের অনুমতি দেয় ভারত সরকার। 

১৯৯৭ সালে জাতিগত দাঙ্গার কারণে রিয়াং অংশের মানুষ মিজোরাম ছেড়ে ত্রিপুরায় আশ্রয় নিয়েছিল। এরপর থেকে তারা ত্রিপুরায় রয়েছে।

রাজ্যে বিজেপি সরকারের শরিক দল আইপিএফটির সহ-সভাপতি মঙ্গল দেববর্মা বলেন, ব্রু বা রিয়াং জনজাতি অংশের মানুষের স্থায়ী পুনর্বাসনের জন্য ভারত সরকারের কাছে বারবার দাবি জানানো হচ্ছিল। অবশেষে সরকার দাবি মেনে নিয়েছে। এটা খুশির খবর। এদের জন্য এককালীন চার লাখ রুপি এবং দুই বছর রেশন দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

রাজ্যের প্রধান বিরোধী দল সিপিআই (এম) এর রাজ্য সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য পবিত্র কর বলেন, দীর্ঘ ২২ বছর পর জনজাতি অংশের মানুষগুলোর সমস্যার একটি সমাধান হয়েছে। তারা যখন মিজোরাম থেকে ত্রিপুরায় পালিয়ে আসে তখন মানবিক দিক বিবেচনা করে সাবেক বামফ্রন্ট সরকার থাকা ও রেশনের ব্যবস্থা করেছিল। পরে ভারত সরকার এগিয়ে আসে।

তবে, ত্রিপুরার উত্তর জেলার যেসব এলাকায় রিয়াং জনজাতিরা রয়েছেন সেই এলাকায় বসবাসরত বাঙালি অংশের মানুষের একটি অরাজনৈতিক সংগঠন হলো নাগরিক সুরক্ষা মঞ্চ। মঞ্চের সদস্যরা রিয়াং জনজাতিদের ত্রিপুরা রাজ্যে পুনর্বাসনের ঘোর বিরোধী।


বিডি-প্রতিদিন/বাজিত হোসেন


আপনার মন্তব্য