শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ১০ জুলাই, ২০১৮ ০০:০০ টা
আপলোড : ৯ জুলাই, ২০১৮ ২৩:২৪

আসলামের কলাম

দুই দলের ডিফেন্ডাররা চাপে থাকবে

দুই দলের ডিফেন্ডাররা চাপে থাকবে

রাশিয়া বিশ্বকাপে বেলজিয়াম ভালো খেলবে এ ধারণা অনেকেরই ছিল। কিন্তু এতটা জ্বলে উঠবে ভাবতেই পারিনি। ফেবারিটদের পেছনে ফেলে তারা সেমিফাইনালে জায়গা করে নিয়েছে। এখন বিশ্ব জয়ের স্বপ্ন দেখছে। আজই বেলজিয়ামকে কঠিন পরীক্ষা দিতে হবে। ফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে ফ্রান্সের মোকাবিলা করতে হবে। ১৯৯৮ সালে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পরই বিশ্বকাপে ফ্রান্সকে নিয়ে আলোচনা হচ্ছে। এরপর থেকেই তারা ফেবারিট। এবার গ্রুপ পর্বে গ্রিজম্যানরা ততটা ক্যারিশমা দেখাতে পারেনি। অস্ট্রেলিয়া ও পেরুর বিপক্ষে ঘাম ঝরিয়েছে। ডেনমার্কের সঙ্গে ড্র করেছে।

দ্বিতীয় রাউন্ডে ফ্রান্স তাদের চেনা রূপে ফিরেছে। আর্জেন্টিনাকে হারানোর পর কোয়ার্টার ফাইনালে উরুগুয়েকে সহজে পরাস্ত করেছে। গ্রিজম্যান, এমবাপ্পে, পগবা অসাধারণ খেলছে। রক্ষণভাগও বেশ শক্ত। সব মিলিয়ে ফ্রান্স ব্যালেন্স দলে পরিণত হয়েছে। অন্যদিকে বেলজিয়ামতো আরও ভয়ঙ্কর। বিশ্বকাপে একমাত্র দল যারা নির্ধারিত সময়ে সব ম্যাচে জয় পেয়েছে। সবচেয়ে বড় কথা কোয়ার্টার ফাইনালে পাঁচবারের চ্যাম্পিয়ন ব্রাজিলকে পরাজিত করেছে। এটা আজ তাদের অনুপ্রেরণা হিসেবে কাজ করবে। হ্যাজার্ড ও লুকাকুর কথা বেশি উচ্চারিত হলেও বেলজিয়ামের কোনো ঘাটতি দেখছি না। দেখেন দলের ভিতর কি চমৎকার বোঝাপড়া। জাপানের বিপক্ষে দ্বিতীয়ার্ধে ২-০ গোলে পিছিয়ে থেকেও শেষ ২০ মিনিটে ৩ গোল দিয়ে জিতে গেছে। পারফরম্যান্সের বিচারে আজকের ম্যাচে আমি বেলজিয়ামকে এগিয়ে রাখব।

আজকের ম্যাচে উভয় দলের ডিফেন্ডাররা বড্ড চাপে থাকবে। কারণ সেমির লড়াই। গোল পেতে দুদলই আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলবে। ফ্রান্সের এমবাপ্পে যদি ফ্রি থাকে তাহলে বেলজিয়ামকে ভোগান্তির মধ্যে পড়তে হবে। হ্যাজার্ডদের আবার আলাদা একটা গুণ আছে। যে ফরম্যাটে তারা খেলুক না কেন পরিস্থিতি বুঝে সবাই প্রতিপক্ষদের ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে আবার নিচেও নেমে আসে। কোচ তো আর মাঠে খেলেন না। তারপরও আজকের ম্যাচে জয় পরাজয়টা নির্ভর করবে দুই কোচের রণ কৌশল সাজানোর ওপর। ইউরোপের দুই সুপার পাওয়ার আজ লড়বে। চাপ মুক্ত হয়ে খেলাটাই দুদলের ভালো মন্দটা নির্ভর করছে।


আপনার মন্তব্য