শিরোনাম
প্রকাশ : ৪ মার্চ, ২০২১ ১৮:১০
প্রিন্ট করুন printer

‘এনভায়রনমেন্টাল ক্রাইম নিয়ে ভাবতে হবে এখনই’

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম

‘এনভায়রনমেন্টাল ক্রাইম নিয়ে ভাবতে হবে এখনই’

এনভায়রনমেন্টাল ক্রাইম নামে একটা বিষয় আছে। অপরাধ তো অপরাধই। পরিবেশ নষ্ট বা পরিবেশের ক্ষতি করাও অপরাধ। পাহাড় কাটা, নদী-খাল দূষণ করা, পরিবেশ-প্রকৃতিকে বিরক্ত ও বিনষ্ট করা- সবই বড় অপরাধ। তাই আমাদের এনভায়রনমেন্টাল ক্রাইম নিয়ে এখনই ভাবতে হবে। সঙ্গে সিদ্ধান্ত গ্রহণ ও পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করতে হবে।  

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে পরিবেশ অধিদপ্তর চট্টগ্রামের উদ্যোগে হালদা সভাকক্ষে ‘পাহাড় কর্তন: সমস্যা ও করণীয়’ শীর্ষক সেমিনারে বক্তারা এসব কথা বলেন। 

পরিবেশ অধিদপ্তর চট্টগ্রাম মহানগর কার্যালয়ের পরিচালক মোহাম্মদ নূরুল্লাহ নূরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সেমিনারে মুখ্য আলোচক ছিলেন চট্টগ্রাম বন্দরের সদস্য (প্রশাসন ও পরিকল্পনা) মো. জাফর আলম, মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) ইন্সটিটিউট অব ফরেস্ট্রি এন্ড এনভায়রনমেন্টাল সাইন্সেস এর অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ মোশাররফ হোসেন, বিশেষজ্ঞ আলোচক ছিলেন চবির ইন্সটিটিউট অব ফরেস্ট্রি এন্ড এনভায়রনমেন্টাল সাইন্সেসের অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ আল-আমীন ও আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. কামাল উদ্দিন। 

মুখ্য আলোচক মো. জাফর আলম বলেন, পরিবেশের সব বিষয় নিয়ে সাধারণ মানুষ পরিবেশ অধিদপ্তরকেই সব সময় কাঠগড়ায় দাঁড় করায়। কিন্তু পরিবেশের অনেক শাখা প্রশাখা আছে। প্রতিটি শাখাকেই রক্ষা করা পরিবেশের জন্য জরুরি। তাই পাহাড়, জলাশয়, খাল-বিল, নদী- এসব রক্ষা করতে হবে আমাদের স্বার্থেই। সকলের ঐক্যবদ্ধ প্রয়াসেই।  

মূল প্রবন্ধে অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ মোশাররফ হোসেন বলেন, জীবন প্রকৃতি ও প্রজন্মের বেঁচে থাকার স্বার্থে পাহাড়কে রক্ষা করতে হবে। কক্সবাজারে রোহিঙ্গারা যে হারে পাহাড় নিধন করেছে, তাতে করে পরিবেশের ভারসাম্য কতটুকু রক্ষা হবে তা নিয়ে এখনই চিন্তা করা দরকার। 

চবির আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক ড. মো. কামাল উদ্দিন বলেন, সমাজ ও পরিবারের প্রত্যেক সদস্যকে নিয়েই দেশ। দেশের প্রতিটি মানুষই পরিবেশের সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িত। পরিবেশ নষ্ট বা খারাপ হলে নির্দিষ্ট একজনের ক্ষতি হয় না, বরং পরিবার-সমাজের সবার জন্য তা ক্ষতিকর। তাই আমাদের প্রত্যেকেই পরিবেশবাদী হতে হবে। কেবল পরিবেশ অধিদপ্তর কিংবা একজন পরিবেশবিদ পরিবেশের জন্য ভাববে, তা মোটেও নয়।   

বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর