শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২৩:২১

পি কে হালদারের ১৪ সহযোগীকে দুদকে তলব

নিজস্ব প্রতিবেদক

সাড়ে তিন হাজার কোটি টাকা আত্মসাৎ ও অর্থ পাচারের অভিযোগ নিয়ে বিদেশে পালিয়ে থাকা এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংকের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রশান্ত কুমার হালদার ওরফে পি কে হালদারের ১৪ সহযোগীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তলব করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

দুদকের উপ-পরিচালক গুলশান আনোয়ার প্রধানের স্বাক্ষরিত পৃথক নোটিসে গতকাল বৃহস্পতিবার ১০টি ভুয়া কোম্পানি সংশ্লিষ্ট ওই ১৪ জনকে আগামী ১১ ও ১২ ফেব্রুয়ারি কমিশনে হাজির হতে বলা হয়। তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ, পি কে হালদারের সহযোগিতায় ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস লিমিটেড থেকে ঋণের নামে কোটি কোটি টাকা উত্তোলন করে আত্মসাৎ ও পাচার করা হয়েছে। কমিশনের পরিচালক (জনসংযোগ) প্রণব কুমার ভট্টাচার্য্য জানান, ১১ ও ১২ ফেব্রুয়ারি সকাল সাড়ে ৯টা থেকে দুপুর আড়াইটার মধ্যে নির্ধারিত সময়ে এই ১৪ জনকে রাজধানীর সেগুনবাগিচায় দুদকের প্রধান কার্যালয়ে উপস্থিত হতে বলা হয়েছে। তাদের মধ্যে সাতজনকে ১১ ফেব্রুয়ারি তলব করা হয়েছে। তারা হলেন- আর বি এন্টারপ্রাইজের স্বত্বাধিকারী রতন কুমার বিশ্বাস, আর্থস্কোপ লিমিটেডের এমডি প্রশান্ত দেউরি, পরিচালক মোস্তাফিজুর রহমান, নিউট্রিক্যাল লিমিটেডের চেয়ারম্যান স্বপন কুমার মিস্ত্রি, ওয়াকামা লিমিটেডের চেয়ারম্যান সুব্রত দাস, পরিচালক সুভ্রা রানী ঘোষ, পরিচালক তোফাজ্জল হোসেন। বাকি সাতজনকে ১২ ফেব্রুয়ারি জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তলব করেছে দুদক। তারা হলেন কোলাসিন লিমিটেডের এমডি উত্তম কুমার মিস্ত্রি, চেয়ারম্যান অতশী মৃধা, হাল ইন্টারন্যাশল লিমিটেডের এমডি সুস্মিতা সাহা, জি অ্যান্ড জি এন্টারপ্রাইজের স্বত্বাধিকারী গোপাল চন্দ্র গাঙ্গুলী, দ্রিনান অ্যাপারেলেসের এমডি মোহাম্মদ আবু রাজিন মারুফ, কণিকা এন্টারপ্রাইজের স্বত্বাধিকারী রাম প্রসাদ রায় ও ইমেক্সোর স্বত্বাধিকারী ইমাম হোসেন। ভুয়া ও কাগুজে পাঁচটি কোম্পানির নামে ৩৫১ কোটি টাকার ঋণ অনুমোদন ও আত্মসাতের অভিযোগে গত ২৫ জানুয়ারি পি কে হালদারসহ ৩৩ জনের বিরুদ্ধে পাঁচটি মামলা করে দুদক। এর মধ্যে এক মামলায় পি কে হালদারের সহযোগী পিপলস লিজিং অ্যান্ড ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস লিমিটেডের চেয়াররম্যান উজ্জ্বল কুমার নন্দী এবং ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফাইন্যান্সিয়াল সার্ভিসেসর সাবেক এমডি রাশেদুল হককে ওই দিনই গ্রেফতার করা হয়।


আপনার মন্তব্য