শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ১ নভেম্বর, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ৩১ অক্টোবর, ২০২০ ২৩:৪০

ব্র্যাক ও পিপিআরসির প্রতিবেদন

করোনায় কাজ হারিয়েছেন ২৬ শতাংশ মানুষ

নিজস্ব প্রতিবেদক

চলমান কভিড-১৯ এর কারণে দেশে জুলাই পর্যন্ত প্রায় ২৬ শতাংশ মানুষ কাজ হারিয়েছেন। আর নতুন করে দরিদ্র হয়েছেন ২২ দশমিক ৮ শতাংশ মানুষ। একইভাবে পুরুষদের বেলায় ৩২ শতাংশ আর মেয়েদের বেলায় কাজ হারিয়েছেন ১৬ শতাংশ। শুধু তাই নয়, এর প্রভাবে আয় কমেছে ৮৪ শতাংশ মানুষের। বেসরকারি সংস্থা পাওয়ার অ্যান্ড পার্টিসিপেশন রিসার্চ সেন্টার (পিপিআরসি) ও ব্র্যাক ইনস্টিটিউট অব গভর্নেন্স অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট এক প্রতিবেদন প্রকাশ করে এ তথ্য জানিয়েছে। গতকাল ভার্চুয়ালি এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে দ্বিতীয় পর্যায়ের এ প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়। প্রথমটা প্রকাশ করা হয়েছিল গত এপ্রিলে।

মূল প্রবন্ধ যৌথভাবে উপস্থাপন করেন পিপিআরসির নির্বাহী চেয়ারম্যান ড. হোসেন জিল্লুর রহমান ও বিআইজিডির নির্বাহী পরিচালক ড. ইমরান মতিন। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন স্থানীয় সরকার মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম। আলোচনায় আরও অংশ নেন বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ ড. ওয়াহিদ উদ্দীন মাহমুদ, সিপিডির নির্বাহী পরিচালক ড. ফাহমিদা খাতুন।

মন্ত্রী তাজুল ইসলাম বলেন, করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় সরকার প্রণোদান প্যাকেজ বাস্তবায়ন করছে। এ ছাড়া মানুষকে নগদ সহায়তা দেওয়া হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে সব ধরনের অর্থনৈতিক কর্মকান্ড দ্রুত চালু করা হয়েছে। সরকারের সহায়তা ও কার্যকর পদক্ষেপের কারণে দেশের সামগ্রিক অর্থনীতি আবার ঘুরে দাঁড়িয়েছে বলে জানান তিনি।

প্রতিবেদনের তথ্য মতে, করোনায় যারা কাজ হারিয়েছেন বা দরিদ্রসীমার নিচে নেমে গেছেন তাদের কোথাও যাওয়ারও জায়গা নেই। সংস্থা দুটি গতকাল এ সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। জুন শেষে নতুন করে ২২ দশমিক ৮ শতাংশ মানুষ দরিদ্র হয়ে গেছে; যা এপ্রিলে ছিল ২১ দশমিক ৭০ শতাংশ। করোনা মোকাবিলায় সরকার যে প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করেছে সেটা বৃহৎ শিল্পের জন্য কিছুটা কার্যকর হলেও এসএমই খাতে তেমন কোনো কাজে আসেনি। এ ছাড়া পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য আর্থিক সহায়তা প্যাকেজের তুলনায় পলিসিগত সহায়তা বেশি গুরুত্বপূর্ণ বলে মনে করে সংস্থা দুটি। এমনকি এ করোনাকালে সামাজিক নিরাপত্তা খাতের যেসব কার্যক্রম ছিল সেগুলোও সঠিকভাবে কাজে আসেনি।


আপনার মন্তব্য