শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ৯ নভেম্বর, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ৮ নভেম্বর, ২০২০ ২৩:৩৭

মিয়ানমারের বিরুদ্ধে শক্ত অবস্থানে যেতে পারেন

ড. দেলোয়ার হোসেন

মিয়ানমারের বিরুদ্ধে শক্ত অবস্থানে যেতে পারেন

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের অধ্যাপক ড. দেলোয়ার হোসেন বলেছেন, মিয়ানমারের প্রতি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র আরও বেশি কঠোর মনোভাব ধারণ করতে পারে। কেননা, ডেমোক্র্যাটরা সব সময় মিয়ানমারের সামরিক জান্তাদের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছিল। বিশেষ করে মিয়ানমার রোহিঙ্গাদের প্রতি যে নির্মম নির্যাতন চালিয়েছে, সেখানে ডেমোক্র্যাটরা আরও শক্ত অবস্থানে যেতে পারে। এটা বাংলাদেশের জন্য ইতিবাচক হবে।

গতকাল বাংলাদেশ প্রতিদিনের সঙ্গে তিনি এ কথা বলেন। ড. দেলোয়ার হোসেন বলেন, বৈশ্বিক ইস্যু যেমন জলবায়ুর বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্র আরও সক্রিয় হওয়ার ফলে বাংলাদেশ লাভবান হবে। তাছাড়া মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে আমাদের বাণিজ্য সম্প্রসারণের বিষয়ে ট্রাম্পের আমলে কোনো আলোচনাই করা যায়নি। জিএসপি সুবিধা শেষ পর্যন্ত না পাওয়া গেলেও জো বাইডেনের আমলে আলোচনার সুযোগ থাকবে। তিনি বলেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রশাসন পরিবর্তনের মধ্য দিয়ে তাদের পররাষ্ট্রনীতির আমূল পরিবর্তন ঘটে না। যেসব বিষয় তাদের জাতীয় স্বার্থের অনূকুলে সেসব বিষয়ে তারা তাদের নীতি পরিবর্তন করে না। বাংলাদেশ বা দক্ষিণ এশিয়ার অনেক কিছুই তাদের জাতীয় স্বার্থের সঙ্গে সরাসরি সম্পর্কিত নয়। এগুলোকে আমরা বলে থাকি ‘পেরিফেরাল’ বিষয়। ড. দেলোয়ার বলেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রশাসন পরিবর্তনের কারণে সরাসরি বাংলাদেশে প্রভাব পড়বে না। তবে যেহেতু ডোনাল্ড ট্রাম্পের শাসনামল একটু ব্যতিক্রমধর্মী ছিল, তাই তার পরিবর্তনে মার্কিন পররাষ্ট্রনীতির মধ্যে একটা পরিবর্তন আসবে। তবে সেই পরিবর্তনটা রাশিয়া এবং ইউরোপের দিকে বেশি হবে। ট্রাম্পের কারণে বিশ্বব্যাপী তাদের ভাবমূর্তির যে সংকট তৈরি হয়েছে, সেটি তারা উদ্ধার করার চেষ্টা করবে। আবার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অভ্যন্তরেও যেহেতু নানা সমস্যা তৈরি হয়েছে এবং এগুলো নিয়ে প্রধান দুটি দলের সমর্থকরা মুখোমুখি অবস্থানে আছে। ফলে পররাষ্ট্রনীতিসহ অন্য বিষয়গুলোতে বাইডেন প্রশাসন মনোযোগ দেওয়ার সুযোগ কম পাবে। সেই হিসেবে বাংলাদেশের সঙ্গে তাদের সম্পর্কের ধারাবাহিকতা থাকবে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর