শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ২ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২৩:৫২

টিকা নিতে নিবন্ধন করেছেন ২০ হাজার মানুষ

নিজস্ব প্রতিবেদক

করোনার টিকাদান কর্মসূচির জন্য আগামী ১০ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত স্বাস্থ্যকর্মীরা কেউ কর্মস্থল ত্যাগ ও ছুটি নিতে পারবেন না। দেশের সব জেলা সিভিল সার্জন, উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা এবং মেডিকেলের পরিচালকদের সঙ্গে অনলাইন সভায় বিষয়টি জানানো হয়েছে। গতকাল স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম সভা শেষে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান। তিনি আরও বলেন, ‘মাঠ পর্যায়ের স্বাস্থ্যকর্মীরা টিকা কার্যক্রম এগিয়ে নিতে প্রস্তুত রয়েছেন। এরই মধ্যে তাদের প্রশিক্ষণ শেষ হয়েছে। এখন পর্যন্ত ২০ হাজারের বেশি মানুষ টিকা নিতে নিবন্ধন করেছেন। যারা অনলাইনে নিবন্ধন করতে পারবেন না, তাদের সহায়তা করবেন মাঠ পর্যায়ের স্বাস্থ্যকর্মী ও আইসিটি মন্ত্রণালয়।’ তিনি জানান, করোনার টিকা নেওয়ার পর বেশ কয়েকজনের শরীরে হালকা পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। তবে সবাই সুস্থ আছেন। সরকারি ছুটির দিন ছাড়া টিকাদান কর্মসূচি চলবে বলেও জানান তিনি। অন্য দেশকে টিকা দেওয়ার বিষয়ে মহাপরিচালক বলেন, হাঙ্গেরি বা অন্য দেশকে টিকা দেওয়ার বিষয়টি আনুষ্ঠানিকভাবে জানে না স্বাস্থ্য অধিদফতর।  এ সময় অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা জানান, ঢাকা জেলার জন্য করোনার টিকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে চার লাখ। আরেক অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক নাসিমা সুলতানা জানান, ‘তিনিসহ যারা টিকা নিয়েছিলেন সবাই বর্তমানে সুস্থ আছেন।’ ভারতের সেরাম ইনস্টিটিউট থেকে সরকারের কেনা ৫০ লাখ ডোজ ও ভারত সরকারের উপহার হিসেবে পাওয়া ২০ লাখ ডোজ টিকার মধ্য থেকে ৬০ লাখ ডোজ টিকা দিয়ে কর্মসূচি শুরুর পরিকল্পনা করেছে সরকার। গত ২৭ জানুয়ারি ঢাকার কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে টিকাদান কর্মসূচির উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ওই দিন ২৬ জনকে টিকা দেওয়া হয়। পরদিন ঢাকার পাঁচটি হাসপাতালে ৫৪১ জনকে টিকা দেওয়া হয়েছে। আগামী ৭ ফেব্রুয়ারি সারা দেশে টিকা কার্যক্রম শুরুর কথা রয়েছে। এ লক্ষ্যে দেশের সব উপজেলায় টিকা পৌঁছে গেছে। সেরাম থেকে সরকার তিন কোটি ডোজ টিকা কিনেছে। চুক্তি অনুযায়ী, প্রতি মাসে ৫০ লাখ ডোজ টিকা আসবে। আর বিশ্বজুড়ে ন্যায্যতার ভিত্তিতে টিকা বিতরণে আন্তর্জাতিক জোট কোভ্যাক্স  থেকে আসবে ৬ কোটি ৪০ লাখ ডোজ। এ টিকা আসবে জুন নাগাদ। প্রথম ধাপে চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মী, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী ও সশস্ত্র বাহিনী, মুক্তিযোদ্ধা, প্রবীণ, জনপ্রতিনিধি, সরকারের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা ও গণমাধ্যমকর্মীদের টিকা দেওয়া হবে।

টিকা পেতে আগ্রহীদের নিবন্ধনের জন্য ২৬ জানুয়ারি থেকে চালু হয়েছে? সুরক্ষা নামের অ্যাপ। আগামী ৪ ফেব্রুয়ারি থেকে মোবাইলে এই অ্যাপ ডাউনলোড দিয়ে নিবন্ধন করতে পারবেন টিকা নিতে আগ্রহীরা।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর