শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ১৭ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৬ জানুয়ারি, ২০২০ ২১:৪৫

জেনে রাখুন

খাদ্যাভ্যাসে লাবণ্যময় ত্বক

খাদ্যাভ্যাসে লাবণ্যময় ত্বক
♦ মডেল : রিম ♦ ছবি : মনজু আলম

শীত মৌসুমে ত্বক হয় রুক্ষ এবং প্রাণহীন। বিশেষ করে যাদের শুষ্ক ত্বক তাদের জন্য ঋতুটি মোটেও সুখকর নয়। তাই এই ঋতুতে প্রয়োজন বাড়তি যত্ন। ডায়েট প্ল্যানে রাখতে হয় শীতকালীন পুষ্টিকর খাবার। যেসব পুষ্টিকর খাবার শীতকালের জন্য উপকারী সেগুলো হলো-

 

পানি : রূপ সচেতন মানুষের পানি অমূল্য সম্পদ। সৌন্দর্যবর্ধনে এর কোনো বিকল্প নেই। শীতকালে এমনিতেই পানি কম পান করা হয়। এতে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায়।

 

ফলাফল হিসেবে ত্বকে দেখা দেয় রুক্ষতা। কিন্তু শীতকালে বেশি করে পানি পান করলে ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি পায় এবং ত্বক হয়ে ওঠে স্বাস্থ্যকর।

 

শীতকালীন শাক-সবজি : প্রতিটি ঋতুর আকর্ষণ ঋতুকালীন শাক-সবজি, যা মানবদেহের জন্য দারুণ উপকারী। শীতে আমাদের দেহের প্রয়োজনীয় ভিটামিন, মিনারেলস এবং খাদ্যআঁশ প্রয়োজন। যা পুরোটাই আসে শাক-সবজি থেকে। নিয়মিত শাক-সবজি খাওয়ার মাধ্যমে ত্বকের লাবণ্যতা বৃদ্ধি পায়।

 

শীতকালীন ফল : বেশিরভাগ শীতকালীন ফল টকজাতীয় হয়ে থাকে। যা ভিটামিন সি-এ ভরপুর থাকে। ভিটামিন সি ত্বকের রুক্ষতা কমিয়ে ত্বককে করে লাবণ্যময়।

 

গ্রিন টি : গ্রিন টিতে আছে ক্যাটেচিন নামক অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট যা মানবদেহের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিতে সহায়তা করে। নিয়মিত গ্রিন টি পান করলে ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি পায় এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে।

 

সালাদ : টমেটো, শসা ও গাজরের সালাদ বা যে কোনো সবজি সালাদ শীতকালে মানবদেহের জন্য ভীষণ উপকারী। প্রাত্যহিক ডায়েট প্ল্যানে সালাদ ত্বককে করে স্বাস্থ্যোজ্জ্বল।

 

কাঁচা হলুদ : শীত মৌসুমে কাঁচা হলুদ দুধের সঙ্গে মিশিয়ে পান করলে ত্বকের সৌন্দর্য বৃদ্ধি পায়।

 

জাফরান : দুধের সঙ্গে জাফরান মিশিয়ে পান করলে ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধির পাশাপাশি লাবণ্যতা বৃদ্ধি পাবে।

 

কাঠবাদাম : কাঠবাদামে রয়েছে ভিটামিন-ই। যা আমাদের ত্বকের জন্য ভীষণ উপকারী। তাই তো বিশেষজ্ঞরা প্রতিদিন ৬-৭টি কাঠবাদাম খাওয়ার পরামর্শ দিয়ে থাকেন।

 

গাজর : গাজরে আছে ভিটামিন-এ। এটি ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়ায়। রোদের পোড়াভাব দূর করতে সাহায্য করে।

 

ডার্ক চকলেট : ডার্ক চকলেট ত্বকের সৌন্দর্য বৃদ্ধির পাশাপাশি মানবদেহের নার্ভকে ঠান্ডা রাখতে সাহায্য করে।

 

পরামর্শ দিয়েছেন-

রুবাইয়া পারভীন রীতি, পুষ্টিবিদ


আপনার মন্তব্য