Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ১ মে, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ৩০ এপ্রিল, ২০১৯ ২৩:৪২

কৃষকের হাসিতে হাসেন কান্নায় মন কাঁদে শেখ হাসিনার : শামীম

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি

কৃষকের হাসিতে হাসেন কান্নায় মন কাঁদে শেখ হাসিনার : শামীম
সুনামগঞ্জের হাওরের কৃষকদের সঙ্গে গতকাল ধানকাটার আনন্দে শরিক হন পানিসম্পদ উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম - বাংলাদেশ প্রতিদিন

পানিসম্পদ উপমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক শামীম বলেছেন, ‘কৃষকের মুখে হাসি দেখলে শেখ হাসিনা হাসেন। আর কৃষকের চোখে কান্না দেখলে তার মন কাঁদে। একদিন তিনি ‘‘কৃষক বাঁচাও দেশ বাঁচাও’’ স্লোগান তুলে যে আন্দোলন শুরু করেছিলেন, সেটি আজ সফলতা পেয়েছে। দেশ খাদ্যে তার হাত ধরে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করেছে। তার নির্দেশে আমাদের মন্ত্রণালয় সার্বক্ষণিক পরিশ্রম ও মনিটরিংয়ের মাধ্যমে হাওরে  সুরক্ষিত বাঁধ নির্মাণ করে কৃষকের ফসল রক্ষা করে আসছে। আপনারা নিশ্চিন্তে হাসিমুখে ধান কেটে ঘরে তুলছেন। প্রধানমন্ত্রী আপনাদের উৎপাদিত ধানের ন্যায্যমূল্য নিশ্চিত করারও ব্যবস্থা নেবেন।’ গতকাল সুনামগঞ্জ সফরকালে কৃষকদের সঙ্গে ধান কাটার আনন্দে শরিক হয়ে তাদের উদ্দেশে এসব কথা বলেন তিনি। এর আগে তিনি সুনামগঞ্জের জামালগঞ্জ ও ধর্মপাশা উপজেলার বিভিন্ন হাওরের ফসল রক্ষা বাঁধ পরিদর্শন করেন। এ সময় সুনামগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য মোয়াজ্জেম হোসেন রতন, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. মীজানুর রহমান, স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ, মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা, পানি উন্নয়ন বোর্ডের প্রকৌশলী, স্থানীয় সরকারের জনপ্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

বেলা আড়াইটার দিকে উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম সুনামগঞ্জ এসে পৌঁছালে সার্কিট হাউসে দলের নেতা-কর্মীরা তাকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান। তার সফরসঙ্গী হিসেবে সঙ্গে আসেন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ড. মীজানুর রহমান, তার স্ত্রী চিত্রশিল্পী নাজমা আক্তার, সিনিয়র সাংবাদিক পীর হাবিবুর রহমান, পানি উন্নয়ন বোর্ডের মহাপরিচালক প্রকৌশলী মাহফুজুর রহমান ও প্রধান প্রকৌশলী নিজামুল হক। দুপুরে এসে সদর আসনের সংসদ সদস্য ও সংসদে বিরোধী দলের হুইপ অ্যাডভোকেট পীর ফজলুর রহমান মিসবাহর বাসভবনে মধ্যাহ্ন ভোজ করেই হাওর পরিদর্শনে যান উপমন্ত্রী শামীম। হাওর পরিদর্শন শেষে সন্ধ্যার পর শহরে ফিরে এমপি মোয়াজ্জেম হোসেন রতনের বাসভবনে যান তিনি। রাতে সেখান থেকে সার্কিট হাউসে ফিরে এলে সদর উপজেলার নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান খায়রুল হুদা চপল তাকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানান। তিনি স্থানীয় আওয়ামী লীগ এবং অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীদের সঙ্গেও কুশল বিনিময় করেন। এ সময় স্থানীয় গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে তিনি এখানকার বিভিন্ন সমস্যার ব্যাপারে খোঁজখবর নেন। এ সময় তিনি বলেন, ‘সংসদ সদস্য পীর ফজলুর রহমান মিসবাহ সুনামগঞ্জ শহর ও সদর উপজেলাকে নদীভাঙনের হাত থেকে রক্ষা করার জন্য সংসদে কথা বলেছেন। আমাকেও ব্যক্তিগতভাবে জানিয়েছেন। সুনামগঞ্জবাসীর প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দরদ আছে। আমরা এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করব।’

এনামুল হক শামীম হাওর পরিদর্শনের সময় কৃষকদের বলেন, ‘আপনারা আমাদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্য দোয়া করবেন। তার হাতে দেশ থাকলে শুধু আপনাদের ফসলই নিরাপদ থাকবে না, দেশের মানুষও নিরাপদ থাকবে। আমরা হব উন্নত, আধুনিক রাষ্ট্রের নাগরিক।’ এবারের বোরো মৌসুমে কোনো কোনো হাওরের ধানে চিটা ধরা প্রসঙ্গে খোঁজখবর নেন উপমন্ত্রী। আগামীতে ধানে চিটা রোধে আগাম প্রস্তুতি রাখতে কৃষি বিভাগের কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেন তিনি। উপমন্ত্রী বলেন, সারা দেশে ইতিমধ্যে ভাঙনকবলিত ৫৫টি এলাকা চিহ্নিত করা হয়েছে। সেসব এলাকায় ভাঙন রোধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে।

এদিকে আজ সকালে উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীমের সুনামগঞ্জ শহরের ভাঙনকবলিত এলাকা পরিদর্শনের কথা রয়েছে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর