শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১২ জুন, ২০১৯ ২৩:০৮

বাজেট কমছে খুলনা সিটির

আকার হতে পারে ৫০০ কোটি টাকা

সামছুজ্জামান শাহীন, খুলনা

২০১৮-১৯ অর্থবছরে খুলনা সিটি করপোরেশনের (কেসিসি) বাজেট ছিল প্রায় ৬৩৭ কোটি টাকা। গত এক বছরে এই বাজেটের ৫০ শতাংশও বাস্তবায়ন সম্ভব হয়নি। এ কারণে আগামী ২০১৯-২০ অর্থবছরে বাজেটের আকার কমিয়ে ৫০০ কোটি টাকা করা হচ্ছে।

এতে মহানগরীর জলাবদ্ধতা নিরসন ও সড়ক সংস্কারকে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। কেসিসি’র মেয়র ও বাজেট কর্মকর্তাদের দেওয়া তথ্যে এসব কথা জানা গেছে। জানা যায়, গত কয়েক বছরে কেসিসি’র বাজেট বাস্তবায়নে সক্ষমতা কমেছে। উন্নয়ন কাজে ধীরগতি, জবাবদিহিতার অভাব ও অপ্রতুল বরাদ্দের কারণে বাজেট বাস্তবায়ন হচ্ছে না। কর্মকর্তারা জানান, ২০০৯ সালের আগে বাস্তবায়নকে গুরুত্ব না দিয়ে আকার বড় দেখিয়ে কেসিসির বাজেট ঘোষণা করা হতো। যার ৫০ শতাংশও বাস্তবায়ন হতো না। ২০০৯ সালে অনিয়ন্ত্রিত বাজেট ঘোষণার রাশ টেনে ধরেন সিটি মেয়র তালুকদার আবদুল খালেক। এরপর ২০০৯-১০ অর্থবছরে বাজেটের ৭৩ শতাংশ, ২০১০-১১ অর্থবছরে ৯৪ দশমিক ৩৫ শতাংশ বাজেট বাস্তবায়ন হয়েছে। তবে ২০১৩ সালের ১৫ জুনের নির্বাচনে মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান মেয়র নির্বাচিত হলে বাজেট বাস্তবায়নে ছন্দপতন ঘটে। অপ্রতুল বরাদ্দের কারণে ২০১৪-১৫ ও ২০১৬-১৭ অর্থবছরে বাজেটের মাত্র ৫৬ শতাংশ বাস্তবায়ন সম্ভব হয়। সর্বশেষ ২০১৮-১৯ অর্থবছরে ৬৩৭ কোটি টাকার ‘অনুদান নির্ভর’ বাজেট ঘোষণা করেন সাবেক মেয়র মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান মনি। এরপর নবনির্বাচিত মেয়র তালুকদার আবদুল খালেক নগর ভবনের দায়িত্বভার গ্রহণ করেন।  তিনি বলেন, আগামী ২০১৯-২০ অর্থবছরে বাস্তবমুখি বাজেট দেওয়া হবে। কাগজে-কলমে বিশাল অঙ্কের বাজেট থাকবে, আর বাস্তবায়ন হবে না- এমন বাজেট দেওয়া হবে না।

কেসিসি’র প্যানেল মেয়র আলী আকবর টিপু বলেন, এবার বাজেটের আকার কিছুটা কমিয়ে বাস্তবায়ন যোগ্য করা হবে। এতে মহানগরীর জলাবদ্ধতা নিরসন ও সড়ক সংস্কারকে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর