শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ১৬ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৫ এপ্রিল, ২০২১ ২২:৫৬

করোনাভাইরাস

রাজশাহীর ছয় জেলায় নেই আইসিইউ

করোনা উপসর্গে ২৪ ঘণ্টায় আটজনের মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী

রাজশাহীর ছয় জেলায় নেই আইসিইউ
Google News

রাজশাহী বিভাগের আট জেলার মধ্যে ছয় জেলার হাসপাতালেই নেই নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র (আইসিইউ)। যে দুই জেলায় আইসিইউ আছে তাও অপ্রতুল। ফলে করোনাকালে মুমূর্ষু রোগীদের আইসিইউ সেবা দেওয়া যাচ্ছে না। এ কারণে দীর্ঘ হচ্ছে মৃতের তালিকা। রাজশাহী বিভাগে আইসিইউ সংকটের কথা উল্লেখ করে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে একটি চাহিদাপত্র দিয়েছে বিভাগীয় স্বাস্থ্য দফতর। এতে ১২১টি আইসিইউ চাওয়া হয়েছে। তবে এগুলো কবে পাওয়া যাবে কিংবা আসলেই পাওয়া যাবে কি না তা নিশ্চিত নয়। বিষয়টি একেবারেই প্রাথমিক পর্যায়ে। বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালকের কার্যালয় জানিয়েছে, বিভাগের আট জেলার মধ্যে শুধু রাজশাহী ও বগুড়ায় মোট ৫১টি আইসিইউ শয্যা আছে। এর মধ্যে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে ২০টি শয্যা আছে। আর বাকি ৩১টি শয্যা বগুড়ায়। এর মধ্যে শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে ১৩টি, মোহাম্মদ আলী হাসপাতালে ৮টি এবং বেসরকারি টিএমএসএস মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ১০টি শয্যা আছে। বিভাগের চাঁপাইনবাবগঞ্জ, নাটোর, নওগাঁ, জয়পুরহাট, সিরাজগঞ্জ ও পাবনায় কোনো আইসিইউ শয্যা নেই। তাই এ ছয় জেলার রোগীদের আইসিইউর জন্য রাজশাহী ও বগুড়ায় নেওয়া হয়। কিন্তু বগুড়া কিংবা রাজশাহী গেলেই আইসিইউ শয্যা পাওয়া যায় না। স্বাস্থ্য বিভাগের তথ্যমতে, রাজশাহী বিভাগের ৪০টি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের জন্য আইসিইউ চাহিদাপত্র দেওয়া হয়েছে। বগুড়ার ১১টি, পাবনার ৮টি ও নাটোরের ৫টি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ছাড়া বাকি পাঁচ জেলার ৪০ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে অন্তত একটি করে আইসিইউ শয্যা সংযোজন করার প্রয়োজনীয়তা উল্লেখ করা হয়েছে চাহিদাপত্রে। এ ছাড়া রাজশাহী ও বগুড়ার সরকারি যেসব হাসপাতালে আইসিইউ আছে, সেখানে আরও শয্যা বৃদ্ধির প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরা হয়েছে। বিভাগে এখন অন্তত ১২১টি আইসিইউ শয্যা প্রয়োজন বলেও উল্লেখ করা হয়েছে। বর্তমান করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় ছয় মাসের একটি চিকিৎসা পরিকল্পনা নিয়ে এসব চাহিদাপত্র পাঠিয়েছে বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালকের দফতর। করোনা উপসর্গে আটজনের মৃত্যু : রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও উপসর্গ নিয়ে আটজনের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে করোনা আক্রান্ত পাঁচজন ও উপসর্গ নিয়ে তিনজন মারা যান। হাসপাতালের আইসিইউসহ করোনা ওয়ার্ড ও কেবিনগুলোতে তারা চিকিৎসাধীন ছিলেন। বুধবার রাতের বিভিন্ন সময়ে রামেক হাসপাতালে তাদের মৃত্যু হয় বলে নিশ্চিত করেছে রামেক হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

এ ছাড়া গতকাল পর্যন্ত হাসপাতালে করোনা আক্রান্ত ও উপসর্গ নিয়ে ১১২ জন ভর্তি আছেন। এদের মধ্যে করোনা শনাক্ত রোগী চিকিৎসা নিচ্ছেন ৫৯ জন ও উপসর্গ নিয়ে ভর্তি আছেন ৫৩ জন।

এই বিভাগের আরও খবর