শিরোনাম
প্রকাশ : ২৪ জানুয়ারি, ২০২১ ০১:৩৮
আপডেট : ২৪ জানুয়ারি, ২০২১ ১১:০৭
প্রিন্ট করুন printer

যুক্তরাজ্য থেকে এলে এবার বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইন ৭ দিন

অনলাইন ডেস্ক

যুক্তরাজ্য থেকে এলে এবার বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইন ৭ দিন
প্রতীকী ছবি

যুক্তরাজ্যে কভিড-১৯-এর নতুন ধরন দেখা দেওয়ায় সেখান থেকে আসা যাত্রীদের সাত দিন বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। সাত দিন শেষ হলে কোয়ারেন্টাইন থেকেই সরকারিভাবে যাত্রীদের কভিড টেস্ট করে ছেড়ে দেওয়া হবে। দেশের কভিড পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতেই এ ব্যবস্থা। 

যুক্তরাজ্য থেকে আসা যাত্রীদের কোয়ারেন্টাইন পদ্ধতিতে এ নিয়ে তৃতীয় দফায় নিয়ম বদলানো হল। ১ জানুয়ারি থেকে যুক্তরাজ্য থেকে আসা যাত্রীদের সঙ্গে করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেট থাকলেও ১৪ দিন বাধ্যতামূলক প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে রাখা হতো। 

পরবর্তীতে ১৫ জানুয়ারি থেকে যুক্তরাজ্য থেকে আসা যাত্রীদের বাধ্যতামূলক ১৪ দিনের পরিবর্তে ৪ দিন কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়। এবার ২৪ জানুয়ারি থেকে ৪ দিনের পরিবর্তে ৭ দিনের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে।
 
শনিবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সিডিসি’র লাইন ডাইরেক্টর অধ্যাপক ডা. মো. নাজমুল ইসলাম স্বাক্ষরিত এক আদেশে এ নির্দেশনা জারি করা হয়।

আদেশে বলা হয়, যুক্তরাজ্যে নতুন ধরনের করোনাভাইরাসের সংক্রমণ দেখা দেওয়ায় ২৪ জানুয়ারি থেকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত এ ব্যবস্থা চলমান থাকবে। যুক্তরাজ্য থেকে আসা যাত্রীদের সরকার নির্ধারিত হোটেলে নিজ খরচে ৭ দিন বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে। কোনো যাত্রী হোটেলে যেতে না চাইলে সরকারি ব্যবস্থাপনার কোয়ারেন্টিন সেন্টারে থাকতে হবে। ৭ দিন পর যাত্রীদের পিসিআর পদ্ধতিতে করোনা পরীক্ষা করা হবে। পরীক্ষায় নেগেটিভ ফল আসলে ১৪ দিন কোয়ারেন্টিনের বাকি দিনগুলো বাড়িতে গিয়ে হোম কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে।

পরীক্ষায় করোনা পজিটিভ হলে সেই যাত্রীকে কোয়ারেন্টাইন থেকে সরকার নির্ধারিত হাসপাতালে আইসোলেশনে পাঠানো হবে। যাত্রীকে বহন করতে হবে হাসপাতালের চিকিৎসা ব্যয়। 

এদিকে, শনিবার রাজধানীর আশকোনা হজ ক্যাম্পে বিদেশ থেকে আসা যাত্রীদের জন্য জিন এক্সপার্ট মেশিন, মোবাইল পিসিআর ল্যাব ও অ্যান্টিজেন টেস্ট ব্যবস্থা উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, জিন এক্সপার্ট মেশিনে কভিড-১৯ টেস্টের মাধ্যমে দেশে নতুন আরেকটি প্রযুক্তি যুক্ত হলো। মোবাইল পিসিআর ল্যাবটি এশিয়ার প্রথম বিএসএল-২ সমৃদ্ধ ও আন্তর্জাতিক মানের মোবাইল করোনা টেস্টিং ল্যাব। যেখানে রোগীরা নিজের অবস্থানে থেকেই নিরাপদে ও স্বচ্ছন্দে করোনা পরীক্ষা ও অনলাইনে রিপোর্ট পাবেন। এ ছাড়া উন্নত বিশ্বের মতো জরুরি প্রয়োজনে নির্দিষ্ট স্থানে উপস্থিত হয়ে বা দেশের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও শিল্পাঞ্চলে গিয়ে স্যাম্পল নেওয়ার সুবিধা থাকছে। পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে যথাসময়ে অনলাইনে রিপোর্ট প্রদানের ব্যবস্থা থাকছে এ মলিকুলার ল্যাবে।

বিডি প্রতিদিন/ মজুমদার 


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর