শিরোনাম
প্রকাশ : ২১ জুন, ২০২১ ০০:১৫
প্রিন্ট করুন printer

কিশোরগঞ্জে করোনায় আক্রান্ত আরও ৪১, মৃত্যু এক

কিশোরগঞ্জ প্রতিনিধি

কিশোরগঞ্জে করোনায় আক্রান্ত আরও ৪১, মৃত্যু এক
প্রতীকী ছবি
Google News

কিশোরগঞ্জে গত ২৪ ঘণ্টায় (রবিবার রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত) ৪১ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। একই সময়ে মৃত্যু হয়েছে আরও একজনের। এনিয়ে জেলায় মোট করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়াল ৫ হাজার ২৫৮ জন। করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন মোট ৮৭ জন। 

করোনায় নতুন আক্রান্তদের মধ্যে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলায় ২৯ জন, করিমগঞ্জে ২ জন, তাড়াইলে ৪ জন, পাকুন্দিয়ায় ১ জন, কুলিয়ারচরে ১ জন, ভৈরবে ১ জন ও  বাজিতপুরে ৩ জন। 

রবিবার রাতে সিভিল সার্জন ডা. মুজিবুর রহমান এ তথ্য জানিয়েছেন।

গত ১৯ ও ২০ জুন (আংশিক) কিশোরগঞ্জ শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আরটি পিসিআর ল্যাব হতে ১৮৪ জনের নমুনা পরীক্ষা করে ৩৭ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। গত ১৯ জুন বাজিতপুর জহুরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আরটি-পিসিআর ল্যাবে ৭৫ জনের নমুনা পরীক্ষায় ২ জনের করোন শনাক্ত হয়। এছাড়াও কিশোরগঞ্জ-২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ১১ জন, পাকুন্দিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ১ জন ও ভৈরব উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ১৫ জনসহ মোট ২৭ জনের রেপিড এন্টিজেন টেস্টে ২ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

এদিকে, শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নতুন রোগী ভর্তি হয়েছেন ৪ জন, সুস্থ হয়ে ছাড়পত্র পেয়েছেন ২ জন, করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন ১ জন এবং আইসিইউতে ভর্তি রয়েছেন ৭ জন।

সিভিল সার্জন আরও জানান, গত ২৪ ঘণ্টায় জেলায় করোনা থেকে সুস্থ হয়েছেন ১২ জন। এ পর্যন্ত জেলায় মোট ৪ হাজার ৮৩৭ জন সুস্থ হয়েছেন।

এদিকে, করোনায় আক্রান্ত কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলার ৬৮ বছর বয়সী একজন পুরুষ শহীদ সৈয়দ নজরুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত ১৯ জুন দুপুর ২টায় মৃত্যুবরণ করেছেন। জেলায় করোনায় আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন মোট ৮৭ জন। 

বর্তমানে জেলায় সর্বমোট আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৩৩৪ জন। এরমধ্যে কিশোরগঞ্জ সদর উপজেলায় ২৫২ জন, হোসেনপুরে ৫ জন, করিমগঞ্জে ১০ জন, তাড়াইলে ৯ জন, পাকুন্দিয়ায় ১৮ জন, কটিয়াদীতে ৯ জন, কুলিয়ারচরে ১০ জন, ভৈরবে ১৩ জন, নিকলীতে ১ জন ও বাজিতপুরে ৭ জন।

সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, বর্তমানে হোম কোয়ারেন্টাইনে/আইসোলেশনে রয়েছেন ৩১৮ জন। আর হাসপাতাল আইসোলেশনে রয়েছেন ১৬ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় ভ্যাকসিনের জন্য কেউ রেজিস্ট্রেশন করেননি বলে সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে। 

গত ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে এ পর্যন্ত রেজিস্ট্রেশন করেছেন ১ লাখ ২৭ হাজার ৪৮১ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনার দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন ৪০ জন। গত ৭ ফেব্রুয়ারি থেকে এ পর্যন্ত প্রথম ডোজ নিয়েছেন ৭৬ হাজার ৬৬৫ জন এবং মোট দ্বিতীয় ডোজ নিয়েছেন ৫৯ হাজার ২১০ জন। 

উল্লেখ্য, ২৫ এপ্রিল থেকে প্রথম ডোজ টিকাদান কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে।

বিডি-প্রতিদিন/বাজিত হোসেন

এই বিভাগের আরও খবর