শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ৭ জুলাই, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ৬ জুলাই, ২০২১ ২৩:১৭

নতুন যাত্রায়ও পিতার আদর্শেই থাকব

জয়ন্ত রায় চৌধুরী, কলকাতা

নতুন যাত্রায়ও পিতার আদর্শেই থাকব
অভিজিৎ মুখার্জি
Google News

ভারতের সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রয়াত প্রণব মুখোপাধ্যায়ের ছেলে অভিজিৎ মুখোপাধ্যায় জানিয়েছেন, তিনি কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিলেও তার নতুন যাত্রায় গুরুত্বপূর্ণ হয়ে থাকবে পিতার মহান আদর্শ অর্থাৎ ধর্মনিরপেক্ষ রাজনীতি আর ঐকমত্যের মাধ্যমে ভারতকে সুসংহতকরণ।

অভিজিৎ মুখার্জি ছিলেন প্রকৌশলী, একসময় চলে এলেন রাজনীতিতে। তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদানের পর বার্তা সংস্থার সঙ্গে সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ভারতের পূর্বাঞ্চলে ফের শিল্পায়নের সহায়ক হওয়ার প্রত্যাশী তিনি। তিনি মনে করেন শিল্পায়ন ঘটলে ওই অঞ্চলটি দেশের সঙ্গে প্রাচ্য ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায়  ‘লুক ইস্ট’ ধারণার বাণিজ্যিক করিডোর হয়ে উঠবে।

অভিজিৎ মুখার্জি বলেন, ‘আমার বাবা, তদানীন্তন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী ও সেই প্রজন্মের কংগ্রেস নেতারা ধর্মনিরপেক্ষতা আর অংশগ্রহণমূলক রাজনীতির আদর্শ মেনে চলেছেন। আমিও সেই আদর্শের আবহের মধ্যে বেড়ে উঠেছি। মর্যাদার দিক থেকে আমি তাদের ধারেকাছে যাওয়ার যোগ্য নই। তবে আমরা যারা জনগণের জীবনঘনিষ্ঠ হয়ে কাজ করি, তারা একটা ভূমিকা নিতে পারি। আমাদের উচিত ধর্মনিরপেক্ষ ভারতের ধারণাকে ঐক্যবদ্ধভাবে সমর্থন করা।’

অভিজিৎ দুই মেয়াদে লোকসভার (ভারতীয় সংসদের নিম্নকক্ষ) সদস্য ছিলেন। পিতা প্রণব মুখার্জির নির্বাচনী এলাকা মুর্শিদাবাদের জঙ্গিপুর থেকে এমপি হয়েছিলেন। ধর্মনিরপেক্ষতার নীতি ও ঐক্যবদ্ধ ভারত আদর্শের পক্ষে মমতা ব্যানার্জির দল তৃণমূল কংগ্রেস বলিষ্ঠ ভূমিকা নেওয়ায় এ দলে যোগ দিয়েছেন অভিজিৎ।

অভিজিৎ বলেন, ‘আমার বাবা যে আদর্শে ঐকমত্যের রাজনীতি করেছেন, রাষ্ট্রপতি হিসেবেও সেই আদর্শের সুরক্ষায় সচেষ্ট ছিলেন। তৃণমূল কংগ্রেসও সেই ধারায় কাজ করে চলেছে।’

প্রণব মুখার্জি ছিলেন আকর্ষণীয় রাজনীতিক। তৃণমূল কংগ্রেস সভানেত্রী মমতা ব্যানার্জি তাঁর রাজনৈতিক জীবনের শুরুতে প্রণব মুখার্জির ভাবশিষ্য ছিলেন। দুজনের মধ্যে মতভেদও ঘটেছে। (বামফ্রন্ট শাসনকালে পশ্চিমবঙ্গ যে বিপুল অঙ্কের ঋণ নিয়েছিল, মমতা ক্ষমতায় এসে সেই ঋণ মওকুফ চেয়েছেন, প্রণব সমর্থন দেননি।) তা সত্ত্বেও প্রণবের সঙ্গে বিশেষ সম্পর্ক রক্ষা করতেন মমতা। ফলত, তৃণমূল শিবিরে চলে আসতে অভিজিৎকে বেগ পেতে হয়নি।

যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাস করা অভিজিৎ মুখার্জি প্রকৌশলী হিসেবে রাষ্ট্রায়ত্ত শিল্প ‘স্টিল অথরিটি অব ইন্ডিয়া’য় (এসএআইএল) ২৫ বছর চাকরি করেন। ওই সময় ইস্পাতশিল্পের প্রসারে যথাসাধ্য করেছেন। যারা এসএআইএলের আধুনিকায়নে ইন্ডিয়ান আয়রন অ্যান্ড স্টিল কোম্পানিকে (আইআইএসসি) দুই সংস্থাকে একীভূতকরণে তাৎপর্যময় ভূমিকা রাখেন তাদের অন্যতম অভিজিৎ মুখার্জি। একীভূত করে বিনিয়োগ করা হয়েছিল ১৬ হাজার কোটি রুপি।

অভিজিৎ মুখার্জি বলেন, পশ্চিমবঙ্গে শিল্প বিকাশে তৃণমূল কংগ্রেস যেসব উদ্যোগ নিচ্ছে সেগুলো বাস্তবায়নে তিনি সহায়তা করতে পারবেন। তিনি বলেন, এ রাজ্যে প্রকৌশল শিল্পের পুনরুজ্জীবনে আকরিক লোহা, কয়লা, আর বন্দর ব্যবস্থাপনা সমন্বিত করা প্রয়োজন। এ ব্যাপারে যথাযথ দিকনির্দেশনা স্থির করতে হবে।