শিরোনাম
প্রকাশ : ২৩ জানুয়ারি, ২০২১ ১২:৫৬
আপডেট : ২৩ জানুয়ারি, ২০২১ ১৩:০১
প্রিন্ট করুন printer

মহামারীর মধ্যেও মোদির জনপ্রিয়তা অটুট!

দীপক দেবনাথ, কলকাতা

মহামারীর মধ্যেও মোদির জনপ্রিয়তা অটুট!

কোভিড-১৯ মহামারী নিয়ে গোটা ভারতবাসীর মনের মধ্যে এক অনিশ্চয়তা তৈরি হলেও অন্তত একটি ব্যাপারে তারা সকলেই নিশ্চিত-এই সঙ্কটের মধ্যে দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ওপর সমগ্র দেশবাসীর আস্থা এখনও অটুট। করোনা, মূল্যবৃদ্ধি বা বেকারত্ব-কোন ইস্যুই ভারতের নরেন্দ্র মোদির জনপ্রিয়তাকে এতটুকু টলাতে পারেনি। সেই সাথে বিজেপির জনপ্রিয়তাও অটুট রয়েছে।

ইন্ডিয়া টুডে এবং কার্ভি ইনসাইটস দ্বারা পরিচালিত ‘মুড অব দ্য নেশন’ (এমওটিএন)-এর একটি জরিপেই উঠে এসেছে এই তথ্য। এই জরিপ চালানো হয়েছিল ৩ জানুয়ারি থেকে ১৩ জানুয়ারি পর্যন্ত। ভারত জুড়ে ১৯টি রাজ্যের ১৯৪টি বিধানসভা ও ৯৭টি সংসদীয় আসনে এই জরিপ চালানো হয়। মোট ১২ হাজার ২৩২ জন মানুষের অভিমত নিয়েই তৈরি করা হয়েছে এই জরিপ।

জরিপ চালানো মানুষদের ৭৪ শতাংশ প্রধানমন্ত্রী মোদির কাজের প্রশংসা করেছেন। এর মধ্যে ৩০ শতাংশের অভিমত মোদির কাজ অসামান্য, ৪৪ শতাংশের মতে ভাল।

এমওটিএন’এর জরিপ অনুযায়ী মোদির পরই সেরা পারফরমেন্সের নিরিখে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছেন তারই মন্ত্রিসভার সদস্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ (৩৯ শতাংশ), এরপরই রয়েছে প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং (১৪ শতাংশ) পরিবহন মন্ত্রী নিতীন গড়করি ৯১০ শতাংশ)। 
জরিপে আরও দেখা গেছে দেশের ৭৩ শতাংশ মানুষই ‘কোভিড-১৯’ মহামারী মোকাবিলায় প্রধানমন্ত্রী মোদির ভূমিকায় সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। ২৩ শতাংশ মানুষের অভিমত করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় মোদির অবদান অসামান্য, ৫০ শতাংশের অভিমত ‘ভাল’।

বর্তমান এনডিএ-২ সরকারের সবচেয়ে বড় অর্জন হচ্ছে সুপ্রিম কোর্টের রায়ে অযোধ্যায় ‘রাম মন্দির’ নির্মাণের পথ প্রশস্ত হওয়া - দেশের ২৭ শতাংশ মানুষ অন্তত তাই মনে করেন। এপরই রয়েছে জম্মু-কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা প্রত্যাহার (২০ শতাংশ), কোভিড মোকাবিলা (১৫ শতাংশ), মেক ইন ইন্ডিয়া প্রচারণা (৯ শতাংশ)।

সরকারের ব্যর্থতার মধ্যে ‘বেকারত্ব’ সবচেয়ে বড় কাঁটা হয়ে দেখা দিয়েছে মোদি সরকারের কাছে। জরিপকৃত ২৯ শতাংশ মানুষের অভিমত ‘বেকারত্ব’ দূরীকরণে এই সরকার সম্পূর্ণ ব্যর্থ। এরপর রয়েছে মূল্যবৃদ্ধি (১৩ শতাংশ), নোট বাতিল (১০ শতাংশ), কৃষকদের দুরবস্থা (৯ শতাংশ), কোভিড মোকাবিলা (৮ শতাংশ)।

অন্তত ২৪ শতাংশ মানুষের অভিমত ভারতের সবচেয়ে বড় ইস্যুগুলির মধ্যে প্রথম স্থানে অবস্থান করছে কোভিড-১৯, এরপরই রয়েছে বেকারত্ব (২৩ শতাংশের অভিমত), মূল্যবৃদ্ধি (৯ শতাংশ)।

জরিপকৃত ৩৯ শতাংশ মানুষ বলেছেন দেশজুড়ে লকডাউন জারির ফলে করোনা সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়া ঠেকানো গেছে, যদিও ২৮ শতাংশের অভিমত সংক্রমণ ঠেকানো গেলেও গোটা দেশেই সমস্যা তৈরি হয়েছে। ১৩ শতাংশের অভিমত লকডাউনে কোন কাজই হয় নি, ১০ শতাংশের অভিমত লকডাউনে দেশের অর্থনীতি ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এমনকি যে ‘সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন’ (সিএএ) নিয়ে দিল্লি সহ গোটা ভারতে সহিংসতা ছড়িয়ে পড়েছিল সেই বিতর্কিত নাগরিকত্ব আইনকেও অধিকাংশ মানুষ (জরিপকৃত ৫৩ শতাংশ মানুষ) সমর্থন জানিয়েছেন।

এমওটিএন’এর জরিপে দেখা গেছে, দেশে যদি এই মুহূর্তে নির্বাচন হয় তবে বিজেপি-নেতৃত্বাধীন এনডিএ সরকারই ফের ক্ষমতায় আসতে চলেছে। এক্ষেত্রে বিজেপি একাই ২৯১টি আসনে জয় পেতে পারে (গত সাধারণ নির্বাচনে ৩০৩ আসনে জয় পায় বিজেপি) এবং এনডিএ জোটের ঝুলিতে যেতে পারে ৩২১টি আসন (২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে এনডিএ জোট পায় ৩৫৩ আসনে)। তবে কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন ইউপিএ জোটের অবস্থান খুব একটা পরিবর্তন হয়নি। তারা ৯৩টি আসনে জয় পেতে পারে, অন্য দলগুলির সম্মিলিতভাবে পেতে পারে ১২৯টি আসন।

দেশের সেরা প্রধানমন্ত্রী হিসাবে অন্যদের চেয়ে এখনও অনেকটাই এগিয়ে নরেন্দ্র মোদি। ৩৮ শতাংশ মানুষের অভিমত মোদিই সেরা প্রধানমন্ত্রী। এরপরই রয়েছেন অটল বিহারী বাজপেয়ী (১৮ শতাংশ), ইন্দিরা গান্ধী (১১ শতাংশ), জওহরলাল নেহেরু (৮ শতাংশ) এবং মনমোহন সিং (৭ শতাংশ)।

যদিও দক্ষিণ ভারতে প্রধানমন্ত্রী বা বিজেপির জনপ্রিয়তায় বেশ খানিকটা ভাটা পড়েছে। জরিপে দেখা গেছে দক্ষিণ ভারতের ৬৩ শতাংশ মানুষ মোদির কাজকর্মে সন্তোষ প্রকাশ করেছে। মাত্র ৩৮ শতাংশ মুসলিম মোদির কাজকর্মে সন্তোষ প্রকাশ করেছে। 

বিডি প্রতিদিন/ফারজানা


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর