৩১ আগস্ট, ২০২১ ১৩:৫৩

সিঙ্গাপুরের তরুণরা ৩০ বছরের পর পরিবারের সঙ্গে থাকতে চান না

অনলাইন ডেস্ক

সিঙ্গাপুরের তরুণরা ৩০ বছরের পর পরিবারের সঙ্গে থাকতে চান না

দক্ষিণ পূর্ব-এশিয়ার দ্বীপরাষ্ট্র সিঙ্গাপুর যেন অবিবাহিতদের জন্য একটি স্বর্গরাজ্য। এখানকার তরুণরা চাইলে ফ্রিতে বসবাস করতে পারেন। আবার গৃহকর্মীর সহায়তায় আয়েশি জীবনও কাটাতে পারেন। মাঝে মাঝে জীবনটাকে অন্যভাবেও উপভোগ করতে পারেন সিঙ্গাপুরের তরুণরা। এজন্য তাদের হয় পরিবারের সঙ্গে থাকতে হবে না হয় ৩০ বছরের মধ্যে স্বাবলম্বী হতে হবে।

সিঙ্গাপুরের ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির ওয়ে-জুন জিন ইয়ুং বলেন, আবাসননীতি তরুণদের জন্য এক ধরনের জটিলতা তৈরি করেছে। দেশটির ৮০ শতাংশ লোক সরকারের ভর্তুকি দেওয়া বাড়িতে বসবাস করে। কিন্তু একজন তরুণ ৩৫ বছর বয়স না হলে কিংবা বিয়ে না করলে বাড়ি পাবেন না।

দেশটিতে ১৯৯০ থেকে ২০২০ সাল পর্যন্ত ৩৫ বছরের নিচে তরুণ, যারা একাই বাস করছে অথবা পরিবারের বাইরের লোকজনের সঙ্গে বসবাস করছে তাদের সংখ্যা ৩৩ হাজার চারশ থেকে ৫১ হাজার তিনশ’তে এসে দাঁড়িয়েছে। তারা সরকারি বাড়ি পাওয়ার জন্য যোগ্য বিবেচিত হননি, বাধ্য হয়ে ব্যক্তিগত খরচে থাকছেন।

আবাসন প্রকল্পের সঙ্গে জড়িতরা বলছেন, ২০১৪ সালে গড়ে ৯০ জন ভাড়াটিয়া ছিল। ২০১৯ সালে এসে সেখানে ৬৫৮ জনে দাঁড়িয়েছে। যাদের বয়স ২১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে। এটি একটি বড় কারণ হতে পারে যে সিঙ্গাপুরের তরুণরা দেরিতে বিয়ে করেন।

১৯৮০ সালে যেখানে তরুণ-তরুণীরা ২৪ থেকে ২৭ বছরের মধ্যে বিয়ে করেন সেটি এখন ২৯ থেকে ৩০ বছরে চলে এসেছে। অনেক তরুণ এটাও মনে করেন বিয়েই সব সমস্যার সমাধান নয়। আবার সিঙ্গাপুরে সমকামী বিয়েও বৈধ নয়। সূত্র: দ্য ইকোনমিস্ট

বিডি প্রতিদিন/আবু জাফর

এই রকম আরও টপিক

এই বিভাগের আরও খবর