Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ১৬ জুলাই, ২০১৯ ১৯:২১

কমতে শুরু করেছে নদীর পানি

সিলেটে বন্যায় সাড়ে তিন লাখ মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক, সিলেট

সিলেটে বন্যায় সাড়ে তিন লাখ মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত

সিলেটে চলতি বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন প্রায় সাড়ে তিন লাখ মানুষ। বন্যার জন্য বন্ধ হয়ে গেছে ১৬০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পাঠদান। তবে আজ মঙ্গলবার থেকে সিলেটের সুরমা ও কুশিয়ারাসহ সবকটি নদীর পানি কমতে শুরু করেছে। টানা বৃষ্টিপাত না হলে বুধবারের মধ্যে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হওয়ার সম্ভাবনার কথা জানিয়েছে পানি উন্নয়ন বোর্ড। 

এদিকে, বন্যা নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই বলে জানিয়েছে জেলা প্রশাসন। ক্ষতিগ্রস্থদের জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণ ত্রাণও বরাদ্দ রয়েছে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

সিলেটের বন্যা পরিস্থিতি নিয়ে মঙ্গলবার জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। ওই সম্মেলনে জানানো হয় সিলেটের ১৩টি উপজেলার সবকটিই বন্যা কবলিত। এসব উপজেলার ৪৮ হাজার ৭৬৩টি পরিবারের ৩ লাখ ৩৮ হাজার ৬৩৫ জন মানুষ বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। এর মধ্যে ৫১টি পরিবারের লোকজন সরকারি আশ্রয় কেন্দ্রে অবস্থান নিয়েছেন।

সিলেটের জেলা প্রশাসকের দায়িত্বে থাকা স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ পরিচালক মীর মোহাম্মদ মাহবুবুর রহমান জানান, বন্যায় জেলার ৭৯টি প্রাথমিক এবং ৮১টি মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও কলেজের পাঠদান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। জেলার ১৩টি উপজেলায় বন্যা আক্রান্তদের স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতে ১৪০টি মেডিকেল টিম কাজ করছে। মীর মাহবুব আরও জানান, বন্যায় আক্রান্ত দুস্থদের জন্য ৬০০ মেট্রিক টন চাল, নগদ ৮ লাখ টাকা ও ৩ হাজার কার্টুন শুকনো খাবার বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে শুকনো খাবার, ২৪৩ টন চাল ও নগদ ৪ লাখ টাকা বিতরণ করা হয়েছে। প্রয়োজনে আরও বরাদ্দ দেয়া হবে বলেও জানান তিনি। 

এদিকে, গত সোমবার থেকে সিলেটের সুরমা, কুশিয়ারাসহ সবকটি নদীর পানি কমতে শুরু করেছে। মঙ্গলবারও পানি কমা অব্যাহত রয়েছে। তবে এখনো সুরমা, কুশিয়ারার সবকটি পয়েন্টে পানি বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। তবে বৃষ্টিপাত না হলে আজকের মধ্যে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হবে বলে জানিয়েছে পানি উন্নয়ন বোর্ড।  

বিডি প্রতিদিন/এনায়েত করিম


আপনার মন্তব্য