Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ১৫ এপ্রিল, ২০১৯ ০৯:২৭

লিসবনে বাংলা নববর্ষ উদযাপন

রনি মোহাম্মদ (লিসবন,পর্তুগাল)

লিসবনে বাংলা নববর্ষ উদযাপন

''লিসবনের এই শহরে কথা হবে প্রাণ খুলে, জানিয়ে দিলাম আমি তোমাকে! দেখা হবে রে হবে দেখা হবে রে হবে, দেখা হবেই হবে দূতাবাসের পহেলা বৈশাখে''....

বছর ঘুরে আবার এলো উৎসব প্রিয় বাঙালির আনন্দঘন দিন পহেলা বৈশাখ। গুটি গুটি পায়ে বাংলা বছর এসে থামলো ১৪২৬ এর দুয়ারে। প্রতিবছর সব শ্রেণির সব বাঙালি এ দিনটিকে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে পালন করে ঠিক তার ব্যাতিক্রম নয় পর্তুগাল প্রবাসী বাঙালিরাও।

পর্তুগালের রাজধানী লিসবনের বাংলাদেশ দূতাবাসের আয়োজনে ১ বৈশাখ রবিবার পালিত হলো বৈশাখী বরণ উৎসব ১৪২৬ বঙ্গাব্দ। রবিবার ছুটির দিন থাকায় বিপুলসংখ্যক প্রবাসীর পদচারণায় স্থানীয় সময় বিকেলটি মুখরিত হয়ে ওঠে দূতাবাস প্রাঙ্গণ। আর বৈশাখী সাজ রঙিন পাঞ্জাবি, বৈশাখী শাড়ী পরে যোগদেয় নানান বয়সের প্রবাসী বাংলাদেশিরা।
এ সময় দূতাবাসে আগতো প্রবাসীদের কে স্বাগত জানায় দূতাবাসের প্রথম সচিব হাসান আব্দুল্লাহ তৌহিদ ও দূতাবাস কর্মকর্তাবৃন্দ। বাংলাদেশ দূতাবাসের রাষ্ট্রদূত মোঃ রুহুল আলম সিদ্দিকীর শুভেচ্ছা বক্তব্যের মাধ্যমে বৈশাখী বরণ উৎসব অনুষ্ঠানের সূচনা করা হয়। 
প্রথম পর্বের শুরুতে, প্রবাসে বেড়ে উঠা শিশুদের নৃত্য, ছড়া গান, মহিলাদের জন্য ছিল বালিশ খেলা, পুরুষদের হাঁড়ি ভাঙা আর প্রবাসী রেয়ার ব্র্যান্ড শিল্পীদের যন্ত্র সংগীতের মন ভোলানো ‘এসো হে বৈশাখ, এসো, এসো সুরের আবহের মধ্য দিয়ে মাতিয়ে তোলে পুরো দূতাবাস প্রাঙ্গণ। 
সবশেষ ছিলো র‌্যাফেল ড্র ও পুরস্কার বিতরণী। এছাড়াও বৈশাখী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন পর্তুগালের রাজনৈতিক, সামাজিক বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। 

বিডি-প্রতিদিন/সালাহ উদ্দীন


আপনার মন্তব্য