শিরোনাম
প্রকাশ : ২০ জানুয়ারি, ২০২১ ১৮:৪০
প্রিন্ট করুন printer

তরুণ জীব প্রযুক্তিবিদদের নিয়ে এনওয়াইবিবি’র সম্মেলন

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম:

তরুণ জীব প্রযুক্তিবিদদের নিয়ে এনওয়াইবিবি’র সম্মেলন

তরুণ জীবপ্রযুক্তিবিদদের নিয়ে নেটওয়ার্ক অফ ইয়াং বায়োটেকনোলজিস্ট অফ বাংলাদেশ (এনওয়াইবিবি) এর জাতীয় সম্মেলন ও অভিষেক অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়েছে। তরুণ জীব প্রযুক্তিবিদদের দক্ষতা বৃদ্ধি, কাজের সুযোগ তৈরি ও যোগাযোগ সৃষ্টির লক্ষ্যে গত এক যুগ ধরে কাজ করে যাচ্ছে সংগঠনটি। 

অনলাইনে জুম সামজিক মাধ্যমে অনুষ্ঠিত এই আয়োজনে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্বাধীনতা পদকপ্রাপ্ত বিজ্ঞানী ও ইউজিসি অধ্যাপক ড. হাসিনা খান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বায়োকেমিস্ট্রি এবং মলিকুলার বাায়োলজি বিভাগের অধ্যাপক ড. জেবা ইসলাম সিরাজ, ড. সাবিনা ইয়াছমিন, ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অব বায়োটেকনোলজি’র মহাপরিচালক ড. মো. সলিমুল্লাহ, চুয়েটের অধ্যাপক ড. নুরুল আবছার। সম্মেলনে তরুণ জীবপ্রযুক্তিবিদদের সাম্প্রতিক উদ্যোগ ও কর্মপরিকল্পনা তুলে ধরেন- ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড বায়োটেকনোলজি বিভাগের শিক্ষক ড. মুশতাক ইবনে আইযুব, ড. এস এম মাহবুবুর রশিদ ও  চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ড. আদনান মান্নান। গবেষণা নিয়ে তরুণদের ভাবনা উপস্থাপন করেন এনওয়াইবিবি’র সমন্বয়কারী  ড. আব্দুল মহিন সজিব, আরিফ খান, মুহাম্মদ সালমান, আবদুল্লাহ আল যুবায়ের, আফরিন সুলতানা চৌধুরী এবং মাহামুদুল হাসান। 

বক্তব্য রাখেন হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ডা. মো. আরিফুজ্জামান, ইসলামিক বিশ্ববিদ্যালয়ের ড. মোহাম্মদ মিন্নাতুল করিম, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের আব্দুল্লাহ-আল-জুবায়ের, ইস্ট ওয়েস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের ড. সুরাইয়া নাসরিন, মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ড. কেএম কাদেরি কিবরিয়া, নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ড. মো. মুরাদ হোসেন। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন তাহরিমা জাহান জেরিন, প্রীতম হাসান ও নাবিলা রহমান জুঁই। সমাপনি বক্তব্য রাখে এনওয়াইবিবি’র মুখ্য কর্মকর্তা মাহমুদা কবির শাওন এবং সম্পাদক শাহাদাৎ হোসাইন অর্ক।

বক্তারা বলেন, বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাস সংক্রমণকালে রোগ নির্ণয়ে বায়োটেকনোলজিস্টদের অসাধারণ ভূমিকা ছিল। আগামীতেও এ ভূমিকা অব্যাহত রাখতে হবে। আমরা মনে করি, ভবিষ্যতেও দেশকে বায়োটেকনোলজিস্টদের আরও অনেক কিছু দেওয়ার সুযোগ আছে। এ জন্য সবাইকে জীব নিয়ে গবেষণায় এগিয়ে আসতে হবে।  

বিডি প্রতিদিন/ মজুমদার 


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর