শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ৮ নভেম্বর, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ৭ নভেম্বর, ২০২০ ২৩:২০

মালামাল ওঠা-নামা ব্যাহত সৃষ্টি হয়েছে পণ্যজট

বেনাপোল স্থলবন্দর

বেনাপোল প্রতিনিধি

Google News

যশোরের বেনাপোল বন্দরের অধিকাংশ ক্রেন ও ফর্কলিফট অকেজো থাকায় মালামাল ওঠা-নামা ও ডেলিভারি করা সম্ভব হচ্ছে না। বন্দরে সৃষ্টি হয়েছে পণ্যজট। বিরাজমান সমস্যা সামাধান না হলে যে কোনো সময় বন্ধ হতে পারে দুই দেশের আমদানি-রফতানি বাণিজ্য।

বন্দর সূত্রে জানা যায়, বর্তমানে বেনাপোল বন্দরে ২৫ টন ধারণ ক্ষমতার একটি এবং পাঁচ টনের ফর্কলিফট রয়েছে পাঁচটি। এর মধ্যে চারটিই দীর্ঘদিন ধরে অচল। ৪০ টন, ৩৫ টন ও ১৯ টনের ক্রেন আছে একটি করে। আর ১০ টনের ক্রেন দুটি। এ সব ক্রেনের মধ্যে পাঁচটি অধিকাংশ সময় থাকে অকেজো। বর্তমানে ২৫ টনের ফর্কলিফটি অকেজো থাকায় বড় ধরনের বিপর্যয় ঘটছে মালামাল লোড-আনলোডে। বন্দর ব্যবহারকারীরা বলছেন, বন্দরের গুদামে জায়গার সংকট রয়েছে। ফলে সেখান থেকে পণ্য বের করার পর নতুন পণ্য ঢোকানো হচ্ছে। খালাসের অভাবে পণ্যবোঝাই ট্রাক বন্দরের ভিতর দাঁড়িয়ে থাকছে দিনের পর দিন। ট্রাক থেকে পণ্য নামানোর অনুমতি মিললেও ক্রেন বা ফর্কলিফট মিলছে না। জায়গা ও ক্রেন স্বল্পতায় বিপাকে পড়েছেন বন্দর ব্যবহারকারীরা। ফর্কলিফট ও ক্রেন সরবরাহকারী ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান সিস লজিস্টিক্যাল সিস্টেম লিমিটেডের বেনাপোলের ম্যানেজার ফখরুল ইসলাম জানান, ২০০৬ সালে আমাদের প্রতিষ্ঠান বন্দরের পণ্য ওঠানো ও নামানোর জন্য স্থলবন্দর কর্তৃপক্ষের সঙ্গে ৫ বছরের চুক্তি করে। পরবর্তীতে বন্দর কর্তৃপক্ষ আর চুক্তি নবায়ন করেনি। আমাদের কোম্পানির পাওনা পরিশোধ করেনি। আমরা অনেকটা বাধ্য হয়ে ১৪ বছর ধরে পুরনো চুক্তিতে বন্দরের কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছি।

এই বিভাগের আরও খবর