শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ১৪ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৩ এপ্রিল, ২০২১ ২৩:৩৩

‘বোবা’ খালের কান্না

পাথরঘাটা (বরগুনা) প্রতিনিধি

‘বোবা’ খালের কান্না
পাথরঘাটায় বোবা খাল দখল করে নির্মাণ করা হয়েছে স্থাপনা -বাংলাদেশ প্রতিদিন
Google News

বোবা কথা বলতে না পারলেও কান্না করতে পারে। আর সেই বোবা কান্নাও মানুষ শুনতে পান কিন্তু  বোবা খালের বোবা কান্না কেউ শুনতে পান না। বরগুনার পাথরঘাটায় এ রকমই ‘বোবা’ খালের  বোবা কান্নার ঘটনা এখন বিরাজমান। এক সময়ের  যৌবন আজ শেষ প্রান্তে। খালের মধ্যেই ঘর তুলে মুরগির খামার করেছে। আস্তে আস্তে খাল ভরাট করে দখলে নিয়েছেন প্রভাবশালী মহল। এভাবে  বোবা খালের কান্নাও বোবা হয়ে যায়। সরেজমিন  দেখা গেছে, বরগুনার পাথরঘাটা উপজেলার কাঁঠালতলী ইউনিয়নের কালিবাড়ি গ্রামের প্রায় সাড়ে ৩ কিলোমিটার দীর্ঘ বোবা খালটি আজ মৃত প্রায়। স্থানীয়  প্রায় শতাধিক ব্যক্তি দখল করে নিয়েছে ওই খাল। ফলে ওই খালের প্রায় পুরোটাই ভরাট হয়ে এখন অস্তিত্বহীন হয়ে পড়েছে। এতে ওই এলাকার কয়েকশ লোকের অন্তত ২ হাজার বিঘা জমির আমন ফসলসহ চাষাবাদ বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়েছে। এলাকাবাসীদের দাবি অবৈধ দখলদারের হাত থেকে খালটি উদ্ধার করে পূর্বের অবস্থায় ফিরিয়ে দেওয়া হোক। জানা গেছে, এক সময়ে বলেশ্বর নদের সংযোগ খাল ছিল এই বোবা খাল। বলেশ্বর নদ হয়ে পূর্বদিকে বিষখালী নদীতে প্রবাহিত হতো। দিনে দিনে আজ ওই খালটি স্থানীয় একটি মহল দখল করে বাগান বাড়ি, মুরগির ফার্ম, গরু পালন, কৃষি চাষাবাদ ও বসতবাড়ি নির্মাণ করায় খালটি বিলীনের পথে। খালটি এমনভাবে দখল করা হয়েছে যে, এখন অনেকাংশ থেকেই বোঝার উপায়  নেই এখানে একটি খাল ছিল। এমনকি ওই খালের পশ্চিমাংশের সুইস ঘাটটিও বন্ধ করে রাখা হয়েছে। স্থানীয় বাসিন্দা জসিম উদ্দিন তালুকদার ও ফিরোজ বিশ্বাস বলেন, স্লুইসগেট বন্ধ থাকায় বর্ষা মৌসুমে কৃষি জমি তলিয়ে যায় আর শুষ্ক মৌসুমে খেতে পানির প্রয়োজন থাকায় ওই স্লুইসগেট থেকে পানি ওঠতে পারে না। এতে দুই মৌসুমেই কৃষকরা কৃষি ফলাতে ব্যর্থ হচ্ছেন। ওই এলাকার উপ সহকারী কৃষি কর্মকর্তা জালাল উদ্দিন বলেন, খাল সংলগ্ন এলাকায় পানির অভাবে বোরোসহ কৃষি চাষাবাদ করা সম্ভব হচ্ছে না। খালটির ব্যাপারে পদক্ষেপ  নেওয়া জরুরি। পাথরঘাটা ইউএনও সাবরিনা সুলতানা বলেন, সরকারি জমি দখল এবং কৃষকের ক্ষতি এটা কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যাবে না। এ ব্যাপারে শিগগিরি ব্যবস্থা গ্রহণ করব।