শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২২ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ২১ এপ্রিল, ২০২১ ২২:৫০

শঙ্কা বাড়ছে বোরো ধানে

খন্দকার একরামুল হক সম্রাট, কুড়িগ্রাম

শঙ্কা বাড়ছে বোরো ধানে
Google News

হঠাৎ শঙ্কা বাড়ছে বোরো ধানের আবাদ নিয়ে। গত বছর পর পর কয়েক দফা বন্যায় জেলার কৃষকরা আমন আবাদে অনেক ক্ষতির সম্মুখীন হন। এরপরও কষ্ট করে সে ক্ষতি পুষিয়ে নিতে আমন আবাদ করে কিছুটা লাভের মুখ দেখেন। কিন্তু এ বছর আগাম বোরো ধান লাগিয়ে আরও লাভের আশায় অনেক কৃষক বোরো খেত নিয়ে পরিচর্যা করে আসছিলেন। এরই মধ্যে কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলায় চলতি মৌসুমে বোরো ধানের পাতা ও শীষে এক প্রকার রোগ ভাবিয়ে তুলেছে তাদের। এ ধানের শীষ শুকিয়ে যাওয়ায় বোরো চাষিরা হতাশ হয়ে পড়েছেন। তারা মনে করছেন এবার বোরো ধানের ফলন বিপর্যয় হয় কিনা। এ কারণে চলতি বোরো  মৌসুমে ধানের উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা ব্যাপকভাবে ক্ষতির আশঙ্কা করছেন সংশ্লিষ্টরা। এ উপজেলার অনেক চাষি  বুকভরা স্বপ্ন নিয়ে চলতি মৌসুমে বোরো আবাদে নেমে পড়েন। সম্প্রতি বোরোর শীষ বের হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে কৃষকদের মন ভরে উঠে। কয়েকদিন পরই কৃষকরা বোরো ধান ঘরে তুলবেন এ প্রত্যাশা সবার। কিন্তু তাদের সে স্বপ্ন এখন ভেস্তে যেতে বসেছে। নষ্ট  বোরো খেতগুলো দূর থেকে দেখলে মনে হয় ধান পেকে  গেছে। কিন্তু কাছে গিয়ে দেখা যায় এখনো কাঁচা ধান। ধানের পরিপক্বতা আসার আগেই ধানের শীষ চিটা হয়ে শুকিয়ে সোনালি রঙ ধারণ করেছে। মনে হয় ধান পেকে  গেছে। আদৌ তা নয়। সোনালি রঙে মনে হচ্ছে ধানগুলো সব পেকেছে। কৃষিবিভাগ জানায়, এটি এক ধরনের ব্লাষ্ট রোগ। খেতে অধিক মাত্রায় নাইট্রোজেন সার ব্যবহার ও হঠাৎ করে বাতাসের আর্দ্রতা কমে যাওয়ায় দিনে গরম পড়ায় এ রোগের প্রাদুর্ভাব দেখা দেয়।

এই বিভাগের আরও খবর