Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ৬ মে, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ৫ মে, ২০১৯ ২৩:৩৫

ঈদে টিভিতে কমছে নাটক ও টেলিছবি

আলী আফতাব

ঈদে টিভিতে কমছে নাটক ও টেলিছবি

আগামী ৩০ মে থেকে শুধু হচ্ছে বিশ্বকাপ ক্রিকেট। তার মানে ঈদুল ফিতরের উৎসবে এবার টেলিভিশন অনুষ্ঠানমালায় ভাগ বসাবে বিশ্বকাপ ক্রিকেট। আর এ কারণে টিভি চ্যানেলগুলো উৎসাহ হারাচ্ছে ঈদের নতুন নাটক ও টেলিছবি নিয়ে। তবে ঈদ উৎসবকে কেন্দ্র করে ইউটিউবে নাটক ও টেলিছবির সংখ্যা বাড়বে বলে ধারণা করছেন ইউটিউব চ্যানেল মালিকরা। জানা গেছে, দেশে প্রায় ২০টি ইউটিউব চ্যানেলে নতুন নাটক ও টেলিছবি উঠবে।

কয়েক বছর ধরে ইউটিউবে নাটক, টেলিছবিতে দর্শকের আগ্রহ বেড়েছে। ঈদ উৎসব ঘিরে এ দর্শকসংখ্যা আরও বাড়বে। ইউটিউবের কোনো কোনো নাটক জনপ্রিয় হয়ে ওঠার কারণে নাটক থেকে ভালো আয়ও হচ্ছে। দিন দিন এসব চ্যানেলের সাবস্ক্রাইবারও বাড়ছে। চ্যানেলগুলো হলো বঙ্গবুম, ডেডলাইন এন্টারটেইনমেন্ট, ওজন এন্টারটেইনমেন্ট, সিনেমাওয়ালা, সিডি চয়েস, ঈগলস, ধ্রুব টিভি, রিংমিডিয়া, ক্লাব ইলেভেন, সেভেন টিউনস এন্টারটেইনমেন্ট, এফ-থ্রি, নাটক বক্স ইত্যাদি।

জানা গেছে, বঙ্গবিডির ঈদ সামনে রেখে এ চ্যানেলের জন্য প্রথম ড্রামা সিরিজ তৈরি করা হচ্ছে। সম্প্রতি সিনেমাওয়ালা ইউটিউব চ্যানেলে এক্স বয়ফ্রেন্ড ও প্লেবয় নামে দুটি নাটক বেশ আলোচিত হয়েছে। ঈদের জন্য প্রথম এ চ্যানেল চারটি নাটক নির্মাণ করছে। চ্যানেলটির স্বত্বাধিকারী মুহাম্মদ মোস্তফা কামাল রাজ বলেন, এখন ইউটিউবে নাটকের দর্শক বেড়েছে। ঈদ উৎসবে দর্শকের আগ্রহ আরও বেশি থাকে। নাটকের স্বত্ব আজীবন ইউটিউব চ্যানেল মালিকেরই। নাটক নির্মাণের সময় কিছু স্পন্সরও পাওয়া যাচ্ছে। এখানে নাটক থেকে আয়টাও ঝামেলামুক্ত। এই অনলাইনের যুগে সারা পৃথিবীতে কনটেন্টের মূল্য বেশি। একজন ইউটিউব স্বত্বাধিকারী একই নাটক ইউটিউবের বাইরেও বিভিন্ন প্ল্যাটফরমে ওঠাতে পারেন। সেখান থেকেও আয় হচ্ছে।’ এ প্রসঙ্গে  ধ্রুব টিভির কর্ণধার ধ্রুব গুহ বলেন,‘ অনলাইনে নাটক দেখার প্রবণতা আগে থেকে অনেক বেড়েছে। এর পেছনে অনেক কারণ আছে। তার মধ্যে একটি হলো, মানুষ যখনই সময় পাচ্ছে তখনই তার পছন্দমতো নাটক দেখতে পারছে অনলাইনে। আর বিষয়টি মাথায় রেখে আমাদের ইউটিউব চ্যানেলেও বেশ কয়েকটি নাটক প্রচার করব।’

এ পর্যন্ত ইউটিউবের জন্য প্রায় ৪০টি নাটক নির্মাণ করেছেন মাবরুর রশীদ বান্না। জীবন, ছেলেটি বেয়াদব, ছেলেটি মেয়েটি, বেড সিনসহ অনেক নাটক জনপ্রিয় হয়েছে। এসব নাটকে বিনিয়োগ উঠে লাভও হয়েছে বলে জানান বান্না। এবারের ঈদে ইউটিউবের জন্য পাঁচ-ছয়টি নাটক নির্মাণের পরিকল্পনা তার। বান্না বলেন, এখন ইউটিউবে প্রচুর দর্শক। ঈদের ছুটিতে আরও বাড়বে। ইউটিউবে নাটকের বাজার একসময় আরও প্রসারিত হবে। ইউটিউবে নাটকের স্বত্ব ইউটিউবের মালিকের। শুধু ইউটিউবেই নয়, একই নাটক বিভিন্ন প্ল্যাটফরমে ওঠানো যায়। এ প্ল্যাটফরম থেকেও আয় আসে। ফলে এখানে বিনিয়োগের অনেকটাই সুরক্ষা আছে।

টেলিভিশনের চেয়ে ইউটিউবে বেশির ভাগ নাটকের বাজেট বেশি থাকে। যেখানে টেলিভশনে এক ঘণ্টার নাটকের বাজেট ১ লাখ ৮০ হাজার থেকে আড়াই লাখ, সেখানে ইউটিউবের এক ঘণ্টার নাটকের বাজেট ৪ থেকে ৬ লাখ টাকা। অন্যদিকে বিভিন্ন টেলিভিশনে খবর নিয়ে জানতে পারা যায়, হাতেগোনা কয়েকটি টিভি ছাড়া বাকি টিভিগুলোর ঈদের বিশেষ নাটক নির্মাণ করছে বিভিন্ন বিজ্ঞাপন এজেন্সি। সব মিলিয়ে এবারের ঈদের নাটক ও টেলিফিল্ম দর্শকরা দেখবেন ইউটিউবে।


আপনার মন্তব্য