শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ৩০ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৯ নভেম্বর, ২০১৯ ২২:৩৪

আরচারি ঘিরে বড় স্বপ্ন

রাশেদুর রহমান

আরচারি ঘিরে বড় স্বপ্ন

আরচারি। সম্ভাবনার এক নতুন দিগন্তের নাম। হাজারো তরুণের নতুন স্বপ্নের নাম। ক্রীড়াপাগল বাংলাদেশের মানুষের সামনে এক নতুন দিগন্তই উন্মোচিত করেছে আরচারি। কয়েক বছর আগেও যে খেলাটার নাম জানা ছিল না বেশি ভাগেরই। সেই খেলা নিয়েই এখন দেশজুড়ে আলোচনা। তরুণদের মধ্যে নতুন আশার সঞ্চার হয়েছে। রোমান সানা তীর-ধনুক হাতে বিশ্ব মঞ্চে দেশের পতাকা উড়িয়ে সম্ভাবনার এক দিগন্ত মেলে ধরেছেন। এখন হাজারো তরুণ রোমান সানা হওয়ার স্বপ্ন দেখে। বিশ্ব মঞ্চে দেশের নাম উজ্জ্বল করার স্বপ্ন দেখে।

এসএ গেমসের ১৩তম আসরের উদ্বোধন হচ্ছে কাল। অবশ্য কয়েকদিন ধরেই এসএ গেমসের খেলা চলছে। ভলিবলের খেলা শুরু হয়েছে ২৭ নভেম্বর থেকে। প্যারাগ্লাইডিং শুরু হচ্ছে আজ থেকে। দক্ষিণ এশিয়ার অলিম্পিক খ্যাত এ গেমসেই রোমান সানাদের নিয়ে নতুন স্বপ্নের জাল বুনছে বাংলাদেশ। ক্রিকেট, ফুটবল, উশু, তায়কোয়ান্দো, কারাতে, গলফ আর শুটিংয়ের অ্যাথলেটরাও সোনার পদক জয়ের স্বপ্ন দেখাচ্ছেন। তবে আরচারি থেকে একাধিক সোনার পদক জয়ের আশা করছেন রোমান সানা, বিউটি, ইতি, শ্যামলীরা। আরচারির বিশ্বসেরা কোচদের মধ্যে অন্যতম মার্টিন ফ্রেডরিক নিবিড় পরিচর্যায় গড়ে তুলেছেন শিষ্যদের। বিভিন্ন আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্ট খেলে সিদ্ধি লাভের পথে ছুটছেন রোমান সানারা। এরই মধ্যে বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপ ও এশিয়ান কাপে সুনাম অর্জন করা রোমান সানা এসএ গেমস নিয়ে বলেছেন, ‘আমাদের প্রস্তুতিটা খুব ভালো। কঠোর পরিশ্রম করেছি। এসএ গেমসে সোনার পদক জিতেই দেশে ফিরতে চাই। ভাগ্য সহায় হলে আরচারিতে আমাদের টিম অনেক ভালো কিছু করবে।’ বিউটি রায়ও দারুণ আশাবাদী। তিনি বলেন, ‘আমাদেরকে কঠিন ফাইট দিতে হবে। চ্যালেঞ্জ তো আছেই। তবে এই চ্যালেঞ্জটা নেওয়ার জন্যই আমরা নিজেদের প্রস্তুত করেছি। কোচ আমাদেরকে নিয়ে অনেক কাজ করেছেন।’ কোচ মার্টিন ফ্রেডরিকও দারুণ আশাবাদী শিষ্যদের নিয়ে। গত কয়েক বছরে আরচারি দলটার সাফল্য ছিল ঈর্ষণীয়। ২০১৮ ও ২০১৯ সালে ৮টি আন্তর্জাতিক ইভেন্টে অংশ নিয়ে ১৫টি সোনার পদক জিতেছে বাংলাদেশ। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি উল্লেখযোগ্য রোমান সানার দুটি পদক জয়। ওয়ার্ল্ড আরচারি চ্যাম্পিয়নশিপে তিনি ব্রোঞ্জ পদক জিতেছেন। এশিয়ান কাপে জিতেছেন সোনার পদক। তাছাড়া দক্ষিণ এশিয়ান আরচারিতে ৬টি সোনার পদকসহ মোট ১২টি পদক জয়ের গৌরব আছে দলটির। এই অর্জনগুলোই বাংলাদেশের আরচারি দলের ওপর এসএ গেমসে প্রত্যাশার চাপ বাড়িয়েছে। তীর-ধনুক হাতে আরচারির লড়াই শুরু হবে ৫ ডিসেম্বর থেকে।

নেপালের কাঠমান্ডু ও পোখারাতে অনুষ্ঠেয় এ গেমসে বাংলাদেশ ২৫টি ক্রীড়া ডিসিপ্লিনে অংশ নেবে। ৫৯৪ সদস্যের দলের মধ্যে অনেকেই নেপাল পৌঁছেছেন। অনেকে দিন কয়েকের মধ্যেই যাবেন। সূচি অনুযায়ী দলগুলো নেপালে পৌঁছবে পর্যায়ক্রমে। দীর্ঘ প্রতীক্ষিত এ গেমস অবশেষে শুরু হচ্ছে। এর আগে নেপালেই বেশ কয়েকবার গেমসের তারিখ পরিবর্তন হয়েছে নানান কারণে। তবে শেষ পর্যন্ত সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে নেপাল। অবশ্য ভারতীয় দল বেশ কয়েকটা ক্রীড়া ডিসিপ্লিনে অংশ নিচ্ছে না। এ কারণে অন্যদের মধ্যে প্রতিযোগিতাটা বাড়বে। এসএ গেমসে সাধারণত একচ্ছত্র আধিপত্য থাকে ভারতের। সেই দল বেশ কয়েকটা ডিসিপ্লিনে না থাকায় অন্যদের মধ্যে সোনা জয়ের সম্ভাবনা বেড়েছে। এই সুযোগটা কাজে লাগাতে বদ্ধপরিকর বাংলাদেশ।


আপনার মন্তব্য