শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ১৮ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৭ এপ্রিল, ২০২১ ২৩:১০

শ্রীলঙ্কায় বাংলাদেশ দল

প্রস্তুতি ম্যাচে দাপুটে ব্যাটিং

ক্রীড়া প্রতিবেদক

প্রস্তুতি ম্যাচে দাপুটে ব্যাটিং

করোনাভাইরাসের জন্য সূচিতে কোনো প্রস্তুতি ম্যাচ রাখেনি শ্রীলঙ্কান ক্রিকেট বোর্ড। ২১ এপ্রিল পাল্লেকেলেতে প্রথম টেস্ট খেলতে নামার আগে বিসিবি নিজ উদ্যোগে দুদিনের একটি প্রস্তুতি ম্যাচের ব্যবস্থা করে। কাতুনায়েকের প্রস্তুতি ম্যাচটিতে লঙ্কান কোনো ক্রিকেটার বা দল খেলেনি। নিজেদের মধ্যে দুই ভাগ হয়ে খেলেছেন মুমিনুল বাহিনী। সবুজ দলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হক এবং লাল দলের অধিনায়ক ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবাল। গতকাল দুদিনের প্রস্তুতি ম্যাচের প্রথম দিনে ব্যাটিং করেছে তামিমের লাল দল। প্রথম দিন ব্যাটিং অনুশীলনটা পুরোপুরি সেরে নিয়েছেন তামিম, সাইফ হাসান, নাজমুল হাসান শান্ত, মুশফিকুর রহিম ও নুরুল হাসান শান্ত। এই পাঁচ ক্রিকেটার বাধ্যতামূলক অবসর নিয়েছেন ব্যাটিং থেকে। সোহান ছাড়া হাফসেঞ্চুরি করেছেন তামিম, সাইফ, নাজমুল ও মুশফিক। চার হাফসেঞ্চুরিতে লাল দলের স্কোর ৭৯.২ ওভারে ৩১৪ রান। সবুজ দলের পক্ষে একমাত্র উইকেট শিকার করেছেন ৫ বছর জাতীয় দলে ডাক পাওয়া শুভাগত হোম।

সবুজ দলে খেলেছেন চার পেসার ইবাদত হোসেন ও তিন তরুণ পেসার শরীফুল ইসলাম, শহীদুল ইসলাম ও মুকিদুল ইসলাম। মূল একাদশে এই চার পেসারের খেলার সম্ভাবনা কম। চার পেসার ও দুই স্পিনার তাইজুল এবং নাঈমকে খুব সাবলীলভাবে ব্যাটিং করেছেন তামিম, সাইফ, নাজমুল ও মুশফিক। লাল বলে খেলার অভাব পূরণ করে নেন এই চতুষ্ঠয় হাফসেঞ্চুরির ইনিংস খেলেন। তামিম ৬৩ রান করেন ৬৩ বলে ৯ চার ও ২ ছক্কায়। সাইফ ৫২ রান করেন ৯৪ বলে ৮ চার ও ১ ছক্কায়। নাজমুল একটু আক্রমণাত্মক মেজাজে ৫৩ রান করেন। মুশফিক ৬৬ রান করেন ৮২ বলে ৯ চার ও এক ছক্কায়। সোহান ৪৮ রান এবং মেহেদী মিরাজ অপরাজিত থাকেন ২৪ রানে। চার পেসার ইবাদত, শরীফুল, শহীদুল ও মুকিদুল একত্রে বোলিং করেন ৪৪ ওভার এবং রান দেন ১৫৬।

তিন নম্বরে ব্যাট করা নাজমুল দলের ব্যাটিং নিয়ে সন্তোষ প্রকাশ করেন, ‘টেস্ট ম্যাচ শুরুর আগে এটা খুব ভালো প্রস্তুতি। ব্যাটিংয়ে যা করতে চেয়েছিলাম, পরিকল্পনা অনুযায়ী ব্যাটিং করতে পেরেছি। আশা করি, এভাবে যদি ব্যাটিং করতে পারি, তাহলে টেস্টে ভালো হবে।’ শ্রীলঙ্কায় এখন পর্যন্ত বাংলাদেশ টেস্ট খেলেছে ১২টি। ২০১৬ সালে কলম্বোয় নিজেদের ১০০তম টেস্টে জয় পায় টাইগাররা। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে এখন পর্যন্ত জয় এই একটিই। ২০১৩ সালে গলে ড্র করেছিল। এবারও পাল্লেকেলেতে সেসন বাই সেসন খেলার পরিকল্পনার কথা বলেন নাজমুল, ‘যে যত ধৈর্য সহকারে ব্যাটিং বা বোলিং করবে, টেস্টে সফল হওয়ার সম্ভাবনা তারই বেশি। ওতো লম্বা চিন্তা না করে সেসন বাই সেসন চিন্তা করি, তাহলে আরেকটু সহজ হবে আমাদের জন্য। আমাদের পরিকল্পনা যে, কিভাবে আমরা সেসন বাই সেসন ভালো করতে পারি।’

সফরে আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে দুটি টেস্ট খেলবে বাংলাদেশ। ২১-২৫ এপ্রিল এবং ২৮ এপ্রিল-২ মে টেস্ট দুটি খেলবেন মুমিনুলরা। 

সংক্ষিপ্ত স্কোর

বাংলাদেশ লাল : ৩১৪/১ (৭৯.২ ওভার) (তামিম ইকবাল ৬৩ (অব.), সাইফ হাসান ৫২(অব.), নাজমুল হোসেন শান্ত ৫৩ (অব.), মুশফিকুর রহিম ৬৬ (অব.), নুরুল হাসান সোহান ৪৮ (অব.), মেহেদী হাসান মিরাজ ২৪*, তাইজুল ইসলাম ২।

 ইবাদত হোসেন ১০-৩-২৪-০, শরীফুল ইসলাম ১১-৪-২৯-০, শহীদুল ইসলাম

১০-৩-৪২-০, মুকিদুল ইসলাম ১৩-০-৬১-০, শুভাগত হোম ১১.২-০-৪৬-১,

নাঈম ইসলাম ১৬-২-৭২-০, মুমিনুল হক ৮-০-৩১-০)।