শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ৩১ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ৩০ মার্চ, ২০২১ ২১:৪৬

রোদেও প্রাণবন্ত

রোদেও প্রাণবন্ত
মডেল : জাকিয়া মুন, ছবি : বাংলাদেশ প্রতিদিন

চৈতালী গরম জানান দিচ্ছে গ্রীষ্মের আগমনী বার্তা। আগামী তিন মাস গরমের প্রকোপ থাকবে। সঙ্গে থাকবে স্যানটান, রোদে পোড়াভাবসহ নানা সমস্যা। তাই প্রয়োজন সতর্কতা...

কথায় আছে, বারো মাসে তেরো পার্বণ। চৈতালী গরমের পর আসছে গ্রীষ্মের দাবদাহ হয়তো এমনই সংকেত দিচ্ছে। বাতাসে আর্দ্রতা না থাকায় গরম উঠেছে চরমে। আর উষ্ণ আবহাওয়া এবং গরমে ত্বক হয়ে যায় নির্জীব। প্রচন্ড গরম আর ধুলোবালিতে ত্বক নিষ্প্রাণ হতে শুরু করে, ত্বক হারায় প্রাকৃতিক সৌন্দর্য, হাতে-পায়ে-মুখে দেখা দেয় স্যানটান। রোদের কারণে ত্বকে নানা ধরনের চর্ম রোগ দেখা দিতে পারে।

গবেষণায় দেখা গেছে, সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মি স্কিন ক্যান্সারের জন্য দায়ী। এজন্য প্রয়োজন বিশেষ যতœ। ধুলো-ময়লা ছাপিয়ে ত্বক সুস্থ আর সজীব রাখার জন্য কী করতে হবে জানালেন শোভন মেকওভার স্কিন স্টুডিওর বিউটি এক্সপার্ট শোভন সাহা। গরমের এমন দাপটে সবচেয়ে বেশি দেখা দেয় ডিহাইড্রেশনের সমস্যা। সারা দিন রোদে পুড়ে কাজ করে শরীর হয়ে যায় ফ্লুইড ব্যালেন্সহীন। গরমে ত্বকে রোদ পড়লে স্যানটানের সমস্যা দেখা দেয়। ত্বকে ছোপ ছোপ কালো দাগ পড়ে। রোদের দাপটে ত্বক হয়ে যায় নিষ্প্রাণ। চেহারায় রোদেপোড়া ভাব চলে আসে। এ ছাড়াও রোদের কারণে আমাদের ত্বকে নানা ধরনের চর্ম রোগ দেখা দিতে পারে। এমনকি গবেষণায় দেখা গেছে সূর্যের অতিবেগুনি রশ্মি স্কিন ক্যান্সারের জন্যও দায়ী। তাই রোদ থেকে বাঁচতে প্রয়োজন ক্লেনজিং, টোনিং, ময়শ্চারাইজিংয়ের মতো ট্রিটমেন্ট। প্রতিদিন বাইরে বেরুনোর আগে গোসল সেরে নিন। গোসল শেষে অবশ্যই সানস্ক্রিন লাগাবেন। তবে বাইরে বেরুনোর অন্তত ২০ মিনিট আগে। এটি সূর্যের ইউভিএ ও ইউভিবি রশ্মি থেকে ত্বককে রক্ষা করে। মুখের সঙ্গে গলা, ঘাড় এবং অন্যান্য অংশে সানস্ক্রিন লাগান।

রোদের তাপ থেকে রেহাই পেতে টকদই, চালের গুঁড়ো ও কাঁচা হলুদ বাটা মিশিয়ে ত্বকে লাগাতে পারেন। এ ছাড়া রোদ সহ্য করে দিন শেষে ঘরে ফিরে প্রতিদিন ঠান্ডা দুধে তুলো ভিজিয়ে সানবার্নের ওপর লাগান। ত্বকের কালচেভাব দূর হবে এবং ত্বক নরম হবে। রোদে বেশিক্ষণ থাকার ফলে চুলেও সানবার্নের সমস্যা দেখা দেয়। এ সমস্যা থেকে রেহাই পেতে বাড়িতে রোজ অয়েল মাসাজ, শ্যাম্পু, কন্ডিশনার ব্যবহার করুন। ত্বকের রোদে পোড়াভাব দূর করবে বেসনের সঙ্গে টকদই ও কয়েক ফোঁটা লেবুর রস। মিশ্রণটি ভালোভাবে মিশিয়ে ত্বকে লাগান। শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলুন। গরমের এ দাবদাহে ত্বক শীতল রাখা খুব প্রয়োজন। গোসলের আগে হাতে-পায়ে মোটা দানার চিনি, লেবুর রস ও দুই চামচ সানফ্লাওয়ার অয়েল মিশিয়ে ঘষুণ। এ ছাড়াও গোসলের সময় বডি শ্যাম্পু, স্ক্রাবার কিংবা শাওয়ার জেল ব্যবহার করতে পারেন। সঙ্গে পুষ্টিকর খাবার, ব্যায়াম ও পর্যাপ্ত ঘুম ত্বক ভালো রাখার জন্য খুবই জরুরি। আমাদের শরীরকে সুস্থ রাখতে খাবার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে।

গরমে পোশাকের রঙের চেয়ে বেশি প্রাধান্য দিন কাপড়ের ওপর। বেশিরভাগ সময় বাইরে কাটালে আরামদায়ক ফেব্রিকের কথা মাথায় রাখা উচিত। সেক্ষেত্রে সুতির চেয়ে আরামদায়ক আর কিছুই হতে পারে না। সুতি বা তাঁতে তৈরি কাপড়ের পোশাক হতে পারে আপনার গরমের স্বস্তিদায়ক সঙ্গী। মেয়েদের পোশাকের রং হবে হালকা। যেমন- সাদা, অফ হোয়াইট, সবুজ, বেগুনি, হালকা নীল ইত্যাদি। রংটাও অনেক সময় দেহের গরম কমায়। এ সময় স্লিভলেস পোশাক পরুন। এ সময় এমন সানগ্লাস পরুন যা অন্তত ৯৯% থেকে ১০০% সূর্যের ইউভিএ এবং ইউভিবি রশ্মি থেকে আপনার চোখকে বাঁচাতে পারে। এ সময় সাধারণত হালকা রঙের ছাতা কেনা ভালো। নীল, বেগুনি, গোলাপি বা হলুদ রঙের ছাতা কিনতে পারেন। যারা ফ্যাশনেবল লুককে বেশি প্রাধান্য দেন তারা পোশাকের সঙ্গে মিল রেখে ছাতা কিনতে পারেন। তবে এ গরমেও আপনি থাকবেন প্রাণবন্ত।

লেখা : ফেরদৌস আরা


আপনার মন্তব্য