Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ১৯ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ১৯:৫৫

সাংবাদিক জিনিয়াকে হয়রানির ঘটনায় কুবিতে মানববন্ধন

কুমিল্লা প্রতিনিধি

সাংবাদিক জিনিয়াকে হয়রানির ঘটনায় কুবিতে মানববন্ধন

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (বশেমুরবিপ্রবি) কর্মরত সাংবাদিক ফাতেমা তুজ জিনিয়াকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাময়িক বহিষ্কার ও হয়রানির ঘটনায় জড়িতদের শাস্তি, শামস জেবিনের উপর হামলার সুষ্ঠু বিচার এবং বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসগুলোতে স্বাধীন সাংবাদিকতার পরিবেশ নিশ্চিতকরণের দাবিতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতি (কুবিসাস)। বৃহস্পতিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্যের পাদদেশে এ কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়।

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক তানভীর সাবিকের সঞ্চালনায় মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য দেন সমিতির সভাপতি জাহিদুল ইসলাম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবু বকর রায়হান, অর্থ সম্পাদক মেহেদী মুরাদ, দপ্তর সম্পাদক শাহাদাত বিপ্লব, সমিতির অন্যান্য সদস্যবৃন্দ, বিভিন্ন সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলোর নেতৃবৃন্দ ও বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষার্থীবৃন্দ প্রমুখ।

প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তারা জিনিয়াকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাময়িক বহিষ্কার ও হয়রানির ঘটনায় প্রশাসনকে নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনা, শামস জেবিনসহ অন্য সাংবাদিকদের ওপর হামলা ও হয়রানির বিচারসহ এ ঘটনায় জড়িত প্রশাসনের কর্তাব্যক্তিদের শাস্তি নিশ্চিত ও দেশের ক্যাম্পাসগুলোতে স্বাধীন সাংবাদিকতার পরিবেশ নিশ্চিতের দাবি জানায়।
সাংবাদিক সমিতির সভাপতি তার বক্তব্যে বলেন, শুধু বঙ্গবন্ধু বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়েই নয় প্রতিটি বিশ্ববিদ্যালয়েই ক্যাম্পাস সাংবাদিকরা প্রশাসনের হাতে এমন হয়রানির শিকার হচ্ছে। স্বেচ্ছাচারী গোপালগঞ্জের উপাচার্যকে এ ঘটনার জন্য জনসম্মুখে ক্ষমা চাইতে হবে এবং বিনা অপরাধে শাস্তিপ্রাপ্তদের বহিষ্কারাদেশ তুলে নিয়ে এ ঘটনার সাথে জড়িতদের বিচারের আওতায় আনতে হবে।

একজন শিক্ষার্থী অথবা সাংবাদিকের ফেসবুক স্ট্যাটাস নিয়ে শিক্ষার্থীকে বহিষ্কার, আরেক শিক্ষার্থীকে মারধর করার তীব্র নিন্দা জানান তিনি। সাথে এসব ঘটনায় জড়িতদের বিচারের আওতায় আনার জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্যের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

উলে­খ্য, জিনিয়া সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ‘একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান কাজ কী হওয়া উচিত?’ এমন শিরোনামে একটি স্ট্যাটাসে দেয়ার অভিযোগ তাকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয় গত ১১ সেপ্টেম্বর। ক্যাম্পাস সাংবাদিকদের সংগঠনগুলো ও বিভিন্ন মহলে এই ঘটনার নিন্দা জানালে বুধবার রাতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন জিনিয়ার বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার করে একটি চিঠি দিয়েছে। কিন্তু ওই চিঠিতে প্রশাসন সুকৌশলে তাদের দায় এড়িয়ে যায়। এর মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের গোয়ার্তুমিপূর্ণ মনোভাবই প্রকাশ পায় বলে দাবি করে বাংলাদেশ ক্যাম্পাস জার্নালিস্টস ফেডারেশন। এরই প্রেক্ষিতে  ফেডারেশনের পূর্বঘোষিত সিদ্ধান্ত অনুযায়ী জিনিয়াকে নির্দোষ ঘোষণাসহ ক্যাম্পাসগুলোতে স্বাধীন সাংবাদিকতার পরিবেশ নিশ্চিতকরণের দাবিতে সারাদেশে কর্মসূচি পালন বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিক সংগঠনগুলো।

বিডি প্রতিদিন/ফারজানা


আপনার মন্তব্য